শিরোনাম
You are here: প্রচ্ছদ / আমাদের চট্টগ্রাম / পটিয়ায় বাকপ্রতিবন্ধী ধর্ষণের অভিযোগ
পটিয়ায় বাকপ্রতিবন্ধী ধর্ষণের অভিযোগ

পটিয়ায় বাকপ্রতিবন্ধী ধর্ষণের অভিযোগ

পটিয়া প্রতিনিধি॥
পটিয়ায় ধর্ষনের শিকার হয়েছে বাক এক প্রতিবন্ধী যুবতী (২০)। গত রবিবার পটিয়া পৌর সদরেরর ১ নং ওয়ার্ডের আল্লাই ওখাড়া গ্রামে এ ঘটনা ঘটে। গতকাল সোমবার ঘটনায় ধর্ষিতার মা শহর বানু বাদী হয়ে পটিয়া থানায় একটি মামলা দায়ের করেছে। অভিযুক্ত ধর্ষক আবুল হাসেমের বাড়ী একই এলাকায়। ঘটনার পর থেকে আবুল হাসেম পলাতক রয়েছে।
জানা যায়, পটিয়া পৌরসভার ১ নং ওয়ার্ডের আল্লাই ওখাড়া কাগজীপাড়া এলাকায় মকবুল হোসেনের বাড়ীতে আহমদ নুরের বসবাস। তিনি ভ্যানগাড়ী চালিয়ে সংসার চালিয়ে আসছেন। তার সংসারে ৩ মেয়ে ২ ছেলে। অর্থসংকটে জর্জরিত কষ্ঠের মধ্যেও ধার দেনা করে দুই মেয়েকে বিয়েও দিয়ে দেন। অন্য দুই ছেলে শ্রমিক হিসেবে কাজ করছে মোটর গ্যারেজে। ছোট মেয়ে বাক প্রতিবন্ধী। পার্শ্ববর্তী ওখাড়া গ্রামের আবুল হাসেম থেকে প্রতিদিন আধা কেজি করে গরুর দুধ রোজ নেন আহমদ নুর। গত রবিবার সকাল ১০ টায় আহমদ নুরের ঘরে দুধ দিতে যায় আবুল কাসেম। এসময় আহমদ নুরের বাক প্রতিবন্ধী মেয়ে ছাড়া ঘরে অন্য কেউ না থাকার সুযোগ নিয়ে আবুল হাসেম বেড়ার ঘরের সামনে পেছনের দরজা বন্ধ করে দিয়ে বাক প্রতিবন্ধী মেয়েকে জোরপূর্বক ধর্ষণ করে। পরে এ খবর জানাজানি হলে আবুল হাসেম ঘটনা স্বীকার করে ধর্ষিত পরিবারের নিকট হাত জোর করে ক্ষমা প্রার্থনা করে। এসময় পাশে থাকা কোরআন শরীফ হাতে নিয়ে আর জীবনে এ কুকর্ম করবে না বলে শপথও করেন।
এ বিষয়ে ধর্ষিতার পিতা আহমদ নুর জানান, ‘ঘরে কেউ না থাকায় আমার বাক প্রতিবন্ধী মেয়েকে একা পেয়ে জোরপূর্বক ধর্ষন করেছে। মামলা না করার জন্য সে আমাদের নিকট ক্ষমা চেয়েছে। কোরআন ধরে শপথ করেছে জীবনে আর কখনও এ ধরনের কুকর্ম করবে না। তবুও সমাজের এ ধরনের কুলাঙ্গার যাতে পশ্রয় না পায় তার জন্য আমরা সংশ্লিষ্ঠ কর্তৃপক্ষের নিকট আবেদন করছি। আমি এ ঘটনার বিচার দাবী করছি।’
এ বিষয়ে পটিয়া থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) শেখ মোহাম্মদ নেয়ামত উল্লাহ জানান ধর্ষণের ঘটনায় মামলা দায়ের হয়েছে। আসামীকে খুব দ্রুত সময়ে গ্রেপ্তার করতে অভিযান চলছে।

আপনার মতামত দিন

Scroll To Top