শিরোনাম
You are here: প্রচ্ছদ / প্রযুক্তি ও বিজ্ঞান

বিভাগ: প্রযুক্তি ও বিজ্ঞান

Feed Subscription

স্যামসাং বানাচ্ছে ১০০০ এফপিএস ক্যামেরা

সম্প্রতি সনি বাজারে সেকেন্ডে ৯৬০ ফ্রেম ধারণ করতে সক্ষম ক্যামেরা সেন্সর নিয়ে এসেছে, যা প্রথমবারের মত সনি এক্সপেরিয়া এক্সজেড ফোনে ব্যবহার করা হয়েছিল।

একটি ক্যামেরা সেকেন্ডে কয়টি ছবি ধারণ করতে পারবে তা অনেক হার্ডওয়্যারের ওপর নির্ভর করলেও ফোনের ক্ষেত্রে এমন হাই ফ্রেমরেটে ভিডিও ধারণের মূল সীমাবদ্ধতা হচ্ছে প্রসেসরের প্রতিটি ফ্রেম সঠিকভাবে প্রসেস করার গতি ও ফোনের স্টোরেজের গতি।

সনি এই দুটি সমস্যা পাশ কাটাতে ক্যামেরার সেন্সরের সঙ্গে একটি ক্যাশ র‌্যাম যুক্ত করে। এর ফলে ক্যামেরার ধারণকৃত কিছু ফ্রেম র‌্যামে জমা থাকে, যা পরে ধীরে ধীরে প্রসেস করা হয়।

একই প্রযুক্তির সেন্সর নিয়ে স্যামসাং ও ইতোমধ্যে গবেষণা শুরু করেছে। তাদের সেন্সরের সঙ্গে আরও দ্রুতগামী  ও বেশি পরিমাণ ডির‌্যাম যুক্ত করার ফলে ক্যামেরাটি ১০০০ এফপিএস এ ভিডিও ধারণ করতে পারবে বলে তারা দাবি করেছে। এধরনের সুপার স্লো মোশন ভিডিও প্রযুক্তি খুব সম্ভবত গ্যালাক্সি এস ৯ ও নোট ৯ ফোনে যুক্ত করা হবে।

সনির যেখানে ডির‌্যাম ক্যাশের জন্য মাইক্রোনের ওপর নির্ভর করতে হয়, সেখানে স্যামসাং নিজস্ব ডির‌্যাম উৎপাদন করার ফলে সেন্সরের মূল্য কমে আসবে। ফলে অদূর ভবিষ্যতেই এমন সুপার স্লো-মোশন ক্যামেরা মাঝারি মূল্যের ফোনেও দেখা যেতে পারে।

জিএসএমএরিনা অবলম্বনে এস এম তাহমিদ

সত্যিকারের কৃত্রিম বুদ্ধিমত্তাযুক্ত স্মার্টফোন আনল হুয়াওয়ে

অ্যাপল-স্যামসাং-হুয়াওয়ের মধ্যে পাল্লা শুরু হয়ে গেছে। ব্যাপারটা এমন যে তুমি আর কী এমন করেছ, আমারটা দেখ! অ্যাপলের আইফোন টেন ঘোষণার পর থেকেই যেন ‘সুপার ফোন’-এর উত্তাপটা টের পাওয়া যাচ্ছে। স্যামসাং নোট ৮-এর পর অ্যাপল ঘোষণা দিয়েছে আইফোন টেন। কদিন পর গুগল আনছে পিক্সেল ২। কিন্তু এসব ফোনকে টেক্কা দেওয়ার কথা বলছে চীনের স্মার্টফোন নির্মাতা হুয়াওয়ে।

সত্যিকারের কৃত্রিম বুদ্ধিমত্তাযুক্ত স্মার্টফোন (এআই) আনার দাবি করছে চীনের প্রযুক্তিপণ্য নির্মাতা প্রতিষ্ঠান হুয়াওয়ে। সম্প্রতি নিজেদের সামাজিক যোগাযোগের চ্যানেলগুলোতে একটি ভিডিও ছেড়েছে প্রতিষ্ঠানটি। ভিডিওতে হুয়াওয়ে দেখাচ্ছে অ্যাপলের আইফোন টেনের ফেস আইডি ও বুদ্ধিমত্তা প্রযুক্তি নিয়ে মোটেও খুশি নয় তারা। শিরোনামে হুয়াওয়ে লিখেছে, ‘লেট’স ফেস ইট, ফেসিয়াল রিকগনিশন ইজ নট ফর এভরিওয়ান। আনলক দ্য ফিউচার উইথ #দ্যরিয়ালএআইফোন।

হুয়াওয়ের এ টিজার মূলত তাদের ফ্ল্যাগশিপ স্মার্টফোন মেট ১০ উপলক্ষে তৈরি করা হয়েছে। আইফোনকে টক্কর দিতে ১৬ অক্টোবর ফোনটির ঘোষণা দেবে হুয়াওয়ে।

হুয়াওয়ে বরাবরই নিজেদের উদ্ভাবনী প্রযুক্তি প্রতিষ্ঠান হিসেবে দাবি করে। বর্তমানে প্রতিষ্ঠানটি আর্টিফিশিয়াল ইনটেলিজেন্সের (এআই) ওপর বেশি গুরুত্ব দিচ্ছে। নতুন কিরিন ৯৭০ এসওসি বা নতুন চিপসেটকে বুদ্ধিমান চিপসেট বলছে প্রতিষ্ঠানটি। নতুন এই কৃত্রিম বুদ্ধিমান চিপসেটে দ্রুতগতির প্রসেসর, দীর্ঘস্থায়ী ব্যাটারি, ইনস্ট্যান্ট ছবি চেনার মতো প্রযুক্তি থাকবে।

নতুন এই চিপসেটচালিত স্মার্টফোন বাজারে ছেড়েই স্মার্টফোন বাজারের শীর্ষ দুই প্রতিষ্ঠান স্যামসাং ও অ্যাপলকে ধরার চেষ্টা করছে হুয়াওয়ে। নতুন এ চিপসেটকে হুয়াওয়ের পক্ষ থেকে বলা হচ্ছে প্রথম নিউরাল প্রসেসিং ইউনিট (এনপিইউ)।

হুয়াওয়ে মেট ১০-এর টিজার প্রকাশ করেছে হুয়াওয়ে।কিরিন ৯৭০ চিপনির্ভর নতুন ফ্ল্যাগশিপ ফোন মেট ১০ আসার বিষয়টি চলতি মাসের শুরুতেই নিশ্চিত করেছে হুয়াওয়ে কর্তৃপক্ষ। এতে কৃত্রিম বুদ্ধিমত্তার জন্য নির্দিষ্ট কোর ঠিক করা থাকবে।

হুয়াওয়ে বলছে, মেট ১০ হবে সম্পূর্ণ বেজেলহীন ডিসপ্লের ফোন, যাকে বলা হচ্ছে এন্টায়ার ভিউ। এর মাধ্যমে এলজির জি৬, স্যামসাং গ্যালাক্সি এস ৮ ও আইফোন টেনকে পেছনে ফেলবে তারা। এতে ফেসিয়াল রিকগনিশন, অগমেন্টেড রিয়্যালিটি ও থ্রিডি সেন্সিংয়ের মতো সুবিধা থাকবে বলে নিশ্চিত করেছ হুয়াওয়ে কর্তৃপক্ষ।

ফোনটির পেছনে লেইকা ব্র্যান্ডের ডুয়াল ক্যামেরা, যাতে ২০ মেগাপিক্সেল মনোক্রোম সেন্সর ও ১২ মেগাপিক্সেল আরিজিবি সেন্সর সেটআপ থাকবে। ৬ ইঞ্চি মাপের ডিসপ্লে থাকবে এতে। ফোনটির দাম? এখনো আপাতত এ বিষয়ে মুখ খোলেনি চীনা প্রতিষ্ঠানটি। তথ্যসূত্র: এনডিটিভি।

স্মার্টফোনের ছবি প্রিন্ট করবে পোর্টেবল প্রিন্টার

নতুন নতুন প্রযুক্তি উদ্ভাবনের ফলে হাতের মুঠোয় চলে আসছে সব কিছু। বড় যন্ত্রকে সহজে ব্যবহার করার উপযোগি করে দিচ্ছে প্রযুক্তি। স্পোরকেট নামের এমনই একটা পোর্টেবল প্রিন্টার বাজারে নিয়ে এলো প্রযুক্তিপণ্য নির্মাতা প্রতিষ্ঠান এইচপি।

ডিভাইসটি হাতের মুঠোয় নিয়ে স্মার্টফোন থেকে সরাসরি ছবি প্রিন্ট করতে সক্ষম। এই প্রিন্টারটি দিয়ে ২x৩ ইঞ্চি আকারের ছবি তোলা যাবে।

ফোনের সাহায্যে এই প্রিন্টার দিয়ে ছবি প্রিন্ট করার জন্য এইচপির স্পোরকেট নামের একটি অ্যাপ রয়েছে। এই অ্যাপ দিয়েই প্রিন্টারটি ব্লুটুথের সাহায্যে নিয়ন্ত্রণ করা যাবে।

ডিভাইসটি থেকে ছবি প্রিন্ট দেয়ার জন্য এইচপির নিজস্ব জিঙ্ক পেপার ব্যবহার করা হয়েছে। প্রিন্টের জন্য একসঙ্গে ২০টি কিংবা ৫০ টি জিঙ্ক পেপার ব্যবহার করা যাবে। এর দাম পড়বে ১২৪৯ ডলার।

ডিভাইসটি ভারতের বাজারে সাদা, কালো ও লাল রঙে পাওয়া যাচ্ছে। এটির দাম রাখা হচ্ছে ৮ হাজার ৯৯৯ রূপি। সূত্র : ইকোনমিকটাইমস

“বাংলালিংক নেক্সট টিউবার”

শুরু হতে যাচ্ছে বাংলাদেশের প্রথম ডিজিটাল রিয়ালিটি শো 

 

বাংলাদেশের অন্যতম ডিজিটাল সেবদাতা প্রতিষ্ঠান বাংলালিংক নতুন প্রজন্মের ভিডিও কন্টেন্ট নির্মাতাদের প্রশিক্ষণের মাধ্যমে আরও দক্ষ করে তোলা ও তাদের লক্ষ্য পূরণের উদ্দেশ্যে বাংলাদেশে প্রথমবারের মত নিয়ে আসল ডিজিটাল ভিত্তিক রিয়েলিটি শো “বাংলালিংক নেক্সট টিউবার”। “বাংলালিংক নেক্সট টিউবার” হচ্ছে ভিডিও কনটেন্ট ভিত্তিক প্রতিভা অন্বেষণের উদ্যোগ।

 

ডিজিটাল প্ল্যাটফর্ম ভিত্তিক এই অভিনব রিয়েলিটি শো’র মাধ্যমে বেছে নেওয়া হবে প্রতিভাবান ভিডিও কন্টেন্ট নির্মাতাদের। এর লক্ষ্য হল উৎকৃষ্ট মানের ভিডিও কন্টেন্ট নির্বাচিত করার পাশাপাশি নতুন প্রজন্মকে অনলাইনে উপস্থিতি বাড়াতে উদ্বুদ্ধ করা। সুনিয়ন্ত্রিত নির্বাচন প্রক্রিয়া, অভিজ্ঞদের মাধ্যমে প্রশিক্ষণ ও তীব্র প্রতিযোগিতার মাধ্যমে নির্বাচিত চূড়ান্ত বিজয়ী পাবেন বাংলালিংকের ডিজিটাল অ্যাম্বাসেডর হওয়া, এবং সিঙ্গাপুরে গুগলের হেড কোয়ার্টারে প্রশিক্ষণের সুযোগ। এছাড়া বিজয়ীর জন্য থাকবে আকর্ষণীয় প্রাইজ মানিসহ অন্যান্য উপহার। প্রথম ও দ্বিতীয় রানার-আপের জন্যও থাকছে প্রাইজ মানি। এর পাশাপাশি প্রথম তিন বিজয়ী বাংলালিংকের ডিজিটাল সার্ভিসের জন্য এক্সক্লুসিভ কনটেন্ট তৈরির সুযোগ পাবেন।

 

ওয়েবসাইটে উল্লেখিত শর্তাবলী অনুসরণ করে যে কোনো বাংলাদেশী নাগরিক এই প্রতিযোগিতায় অংশগ্রহণ করতে পারেন। এ জন্য প্রতিযোগীকে ইউটিউবে একটি ভিডিও আপলোড করে ভিডিওটির ইউআরএল এন্ট্রি হিসাবে “বাংলালিংক নেক্সট টিউবার”-এর  নিচের সাইটে সাবমিট করতে হবেঃ https://www.banglalink.net/en/next-tuber

 

বাংলালিংকের চিফ ডিজিটাল অফিসার সঞ্জয় ভাগাসিয়া বলেন, “ডিজিটাল এন্টারটেইন্টমেন্ট ও উদ্যোগতা ভিত্তিক মনোভাবের সমন্বয়ের মাধ্যমে পরবর্তী প্রজন্মের ডিজিটাল পারফর্মারদের অন্বেষণের জন্য এই অভিনব উদ্যোগ নিতে পেরে বাংলালিংক গর্বিত ও আনন্দিত। এই অসাধারণ উদ্যোগের মাধ্যমে আমরা দ্রুতগতির ইন্টারনেটের সুবিধাও তুলে ধরতে পারবো। ডিজিটাল সেবাদানকারী প্রতিষ্ঠানে রূপান্তর ও ডিজিটাল বৈষম্য হ্রাস করার একটি প্রয়াস হিসেবে আমরা এই উদ্যোগ গ্রহণ করছি।”

 

প্রযুক্তির মাধ্যমে জীবনযাত্রার পরিবর্তন করার ক্ষেত্রে বাংলালিংক অতীতে অবদান রেখেছে। গ্রাহকদের কাছে অভিনব উদ্যোগ পৌঁছে দেওয়ার ক্ষেত্রে প্রতিষ্ঠানটি সবসময় অগ্রণী ভূমিকা পালন করেছে। ডিজিটাল জীবনযাপন আগামী দিনের বাস্তবতা। স্মার্টফোন ও ইন্টারনেট ব্যবহারের মাধ্যমে মানুষ এখন সমগ্র পৃথিবীকে হাতের মুঠোয় নিয়ে এসেছে। ফোর-জির মত দ্রুতগতির ইন্টারনেটের ফলে ভবিষ্যতে বিনোদনের মাধ্যম আরও প্রসারিত হবে। “বাংলালিংক নেক্সট টিউবার” ডিজিটাল জীবনযাত্রার সুবিধা কাজে লাগিয়ে বাংলাদেশী ভিডিও কনটেন্টের প্রচার ও প্রসারে সহায়তা করবে।

আইফোন টেন ল্যাপটপের চেয়ে শক্তিশালী

অ্যাপলের সর্বশেষ আইফোন ৮, ৮ প্লাস এবং বিশেষ সংস্করণ আইফোন টেন সর্বশেষ বাজারে আসা ল্যাপটপের চেয়ে শক্তিশালী।

খটকা লাগলেও বিষয়টি এমনই। কারণ প্রতিষ্ঠানটির ডিজাইন করা চিপ ডিভাইসগুলোকে বরাবরই অন্যান্য মোবাইলের পারফরমেন্সকে টেক্কা দিয়ে আসছে।

সেই ধারাবাহিকতায় আইফোন ৮, ৮+ ও ১০ এ থাকা এ১১ বায়নিক চিপটিও ব্যতিক্রম নয়। আর তাতেই বাজিমাত অ্যাপল। সর্বশেষ আইফোনে ব্যবহার করা তাদের প্রসেসরটি ইন্টেলের সর্বশেষ ৭ম জেনারেশনের ল্যাপটপ কোর আই৫ প্রসেসরকেও পারফরমেন্সে টেক্কা দিচ্ছে।

প্রসেসরের পারফরমেন্স মাপার জনপ্রিয় সফটওয়্যার গিকবেঞ্চ চালানোর পর দেখা গেছে, এ১১ বায়নিক সমৃদ্ধ আইফোন ১০ এর সিঙ্গেল কোর পারফরমেন্স স্কোর এসেছে ৪০৬১, একই পরীক্ষায় কোর আই৫ সমৃদ্ধ ম্যাকবুক প্রোতে চালানোর পর স্কোর পাওয়া গিয়েছে ৪০৩৬।

স্কোর দুটি নিয়ে চুল-চেরা বিশ্লেষণ প্রয়োজন নেই, সরাসরি দেখা যাচ্ছে প্রসেসর দুটির সিঙ্গেল কোর প্রায় সমান ক্ষমতাধর।

তবে মাল্টিকোর, অর্থাৎ সবগুলো কোর ব্যবহার করে পরীক্ষাটি চালানো হলে এ১১ স্কোর করে ৯৯৫৯, অথচ কোর আই৫ মাত্র ৮৮৬৯ স্কোর করতে সক্ষম। ফলে দেখা যাচ্ছে, সব মিলিয়ে অ্যাপল এ১১ বায়নিক ৭ম জেনারেশন কোর আই৫ এর চাইতে দ্রুত কাজ করতে সক্ষম।

তাই বলে এমনটি ভাবার মানে নেই যে, আইফোন ১০ ম্যাকবুকের কাজ করতে পারবে, দুটির ডিজাইন ও কাজের পরিধি দুই ধরনের। তবে ভাবনার বিষয় হচ্ছে, অ্যাপল যদি ক্ষুদ্রাকৃতির প্রসেসর থেকে বড়সড় প্রসেসরের চাইতেও বেশি পারফরমেন্স বের করে নিতে পারে।

অ্যাপল ভবিষ্যতে ম্যাকবুকেও এমন প্রসেসর ব্যবহার করতে পারে। তখন কম্পিউটার দুনিয়ায় বড় ধরনের একটা ধাক্কা লাগবে এতে সন্দেহ নেই।

5জির বাণিজ্যিক ব্যবহার ২০১৯ সালে

পরবর্তী প্রজন্মের মোবাইল নেটওয়ার্ক বা ৫জির বাণিজ্যিক ব্যবহার ২০১৯ সালের মধ্যে শুরু হবে এবং এ সময়ের মধ্যে ৫জি ফোন মূলধারার মোবাইল ডিভাইস হিসেবে ব্যবহার হবে।

এক সাক্ষাৎকারে কোয়ালকমের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা (সিইও) স্টিভ মোলেনকফ এমনটাই দাবি করেন।

কোয়ালকম সিইও বলেন, গ্রাহক পর্যায় ও ব্যবসায়িক চাহিদা বৃদ্ধির কারণে ফাইভজি নেটওয়ার্ক ও ডিভাইস ব্যবহার শুরুর জন্য ২০২০ সাল নাগাদ যে সময়সীমা দেয়া হয়েছিল, তা আরো দ্রুততর করতে চাপ সৃষ্টি হচ্ছে। আগামী বছরের মধ্যেই ফাইভজি সংবলিত ডিভাইস দেখতে পারবেন।

এক বছর আগে এ বিষয় নিয়ে প্রশ্ন করলে আমি চলতি দশকের শেষ সময়কার কথাই বলতাম। তিনি বলেন, আগামী বছরের মধ্যে ফাইভজি নেটওয়ার্ক উন্মোচন এবং মূলধারার বাজার হিসেবে শীর্ষে থাকবে দক্ষিণ কোরিয়া, জাপান ও যুক্তরাষ্ট্র। এ প্রতিযোগিতায় চীনও অতি দ্রুত যোগদান করবে।

স্টিভ মোলেনকফ বলেন, আমি মনে করি ফাইভজির উন্নয়ন এবং আগাম ব্যবহারের ক্ষেত্রে তিনটি দেশই এগিয়ে রয়েছে। ফাইভজি নেটওয়ার্কের উন্নয়নে চীনও কাউকে অনুসরণ করতে চায় না বরং অন্যদের মতো এগিয়ে যেতে চায়।

স্বয়ংক্রিয়ভাবে অ্যান্ড্রয়েড ব্যাকআপ মুছে গুগল

যদি দুই মাস আপনার অ‍্যান্ড্রয়েড ডিভাইসটি ব‍্যবহার না হয় তাহলে অ‍্যান্ড্রয়েড ব‍্যাকআপ স্বয়ংক্রিয়ভাবে মুছে ফেলা হয়। এমন কি এক্ষেত্রে গুগলের পক্ষ থেকে কোনো মেইল বা নোটিফিকেশন দেয়া হয় না।

রেডিটের ট‍্যাঙ্গেলব্রুক নামে এক ব‍্যবহারকারীর বরাত দিয়ে সম্প্রতি ফোনএরিনায় প্রকাশিত এক খবরে এমন তথ্য জানা গেছে।

ট্যাঙ্গেলব্রুক নামের এক ব্যবহারকারী দুই মাস তার নেক্সাস ৬পি ডিভাইসটি ব‍্যবহার করেননি। ফলে তিনি অ্যাপ ও ওয়াই ফাই পাসওয়ার্ড ডাটা হারিয়েছেন। পরে তা পূনরায় ফিরিয়ে আনার চেষ্টা করতে গেলে ব‍্যর্থ হযন তিনি। তারপর বেশ হতাশা নিয়ে রেডিটে বিষয়টি জানান তিনি।

তিনি বলেন, ব‍্যাকআপ ফাইল মুছে ফেলার আগে গুগলের পক্ষ থেকে সর্তকবার্তা পাঠানো উচিত ছিল। আমি আমার মেইল, গুগল ড্রাইভে কোনো নোটিফিকেশন পাইনি। পূনরায় ডাটাগুলো ফিরে পাওয়ার জন্য চেষ্টা করে দেখলাম এমন কোনো সুবিধা নেই। অর্থাৎ চিরতরে আমার ডাটাগুলো মুছে ফেলা হয়েছে।

জানা যায়, দুই সপ্তাহের বেশি অ‍্যান্ড্রয়েড ডিভাইসটি ব‍্যবহার না করলে পরবর্তীতে হিসেবে করে ২ মাসের মাথায় ব‍্যাকআপ ডাটা মুছে দেয় গুগল।

তবে ডাটা সংরক্ষণের ক্ষেত্রে গুগল ড্রাইভ চমৎকার সেবা দেয় বলে জানায় ট্যাঙ্গেলব্রুক। কেননা গুগল ড্রাইভে যতদিন ইচ্ছা ডাটা সংরক্ষণ করা যায়।

ফোনএরিনা অবলম্বনে তুসিন আহমেদ

নতুন যা কিছু আইফোন ৮ এ

হোম বাটন আর থাকছে না। নিজ থেকে সোয়াইপ করলেই চলে যাবে হোমে

চার্জ ও ইয়ারফোন সুবিধা হয়ে যাচ্ছে তারবিহীন। ফলে ইয়ারফোনের তারের প্যাঁচ লাগার ঝামেলা থেকে মুক্তি মিলবে

আঙুলের চাপের বদলে ফোন আনলক হবে চেহারা দিয়ে। যাকে বলা হচ্ছে ফেস আইডি

ইমোজি হবে প্রাণবন্ত। নিজের মুখের ভাব চলমান ইমোজি দিয়ে প্রকাশ করতে পারবেন

সত্যিকারের ছবির মধ্যে ঢুকে যাবে কল্পনার ডাইনোসর

স্টুডিওর লাইটিং সুবিধা পাওয়া যাবে। ইচ্ছেমতো নিয়ন্ত্রণ করা যাবে আলো

ছবি তোলার আগে অবজেক্টের গতি ও অবস্থা বুঝে তারপর তুলবে ডুয়াল ক্যামেরা। ফলে ছবি অনেকটা পেশাদার আলোকচিত্রীদের তোলা ছবির মতো

ওলেড প্রযুক্তি থাকছে। ফোন হাতে নিলেন বা স্ক্রিনে স্পর্শ করলেই স্লিপ মুড থেকে অন হবে ফোন। বাটন আর চাপতে হবে না

মানববিহীন যুদ্ধ হেলিকপ্টার প্রকাশ্যে আনল চীন

বিশ্বব্যাপী ছড়িয়ে থাকা যুদ্ধ পরিস্থিতির মধ্যেই বিদেশের বাজারে বিক্রির জন্য তাদের প্রথম মানববিহীন যুদ্ধ হেলিকপ্টার প্রকাশ্যে আনল চীন। দেশের উত্তর-পূর্বের তাইজিং প্রদেশে অনুষ্ঠিত হওয়া চতুর্থ চায়না হেলিকপ্টার এক্সপোতে প্রথম দেখান হল হেলিকপ্টার এভি৫০০ডব্লিউ- কে।

হেলিকপ্টার তৈরি করেছে অ্যাভিয়েশন ইন্ডাস্ট্রি কর্পস অফ চায়না।

এ ব্যাপারে এর অন্যতম নির্মাণকর্তা জিয়াং তাইয়ু জানিয়েছেন, গত আগস্ট মাসে প্রথম পরীক্ষায় সফল হয়েছে এটি। এমনকি, যেকোন স্থান ও পরিবেশে ওঠা-নামা করতেও সক্ষম এটি। চলতি বছরের মধ্যে এই হেলিকপ্টারটির চূড়ান্ত পরীক্ষা শেষ করতে চায় চীন। ২০১৮ থেকে এটি বিদেশে বিক্রি শুরু হবে বলেও জানানো হয়েছে।

এছাড়া, মানববিহীন যুদ্ধ হেলিকপ্টারটির দৈর্ঘ্য ৭.২ মিটার, ওজন ৪৫০ কিলোগ্রাম ও গতিবেগ ঘন্টায় ১৭০ কিলোমিটার। সূত্রের খবর, ১২০ কিলোগ্রাম ওজনের অস্ত্র ও মালপত্র বহনে সক্ষম এই কপ্টার।

উল্লেখ্য, এখন পর্যন্ত যুক্তরাষ্ট্র ও ইজরায়েলের কাছে শুধুমাত্র মানবহীন যুদ্ধ হেলিকপ্টার রয়েছে। সেই তালিকায় নয়া সহযোজন চীন৷ বিশেষজ্ঞরা বলছেন, আট কিলোগ্রাম ওজনের এয়ার-টু-গ্রাউন্ড মিসাইল বহনে সক্ষম এটি। এতে রয়েছে ব়্যাডার হোমিং প্রযুক্তি। পাঁচ কিলোমিটার দূরে থাকা শত্রুকে নিমেষে শেষ করতে পারবে এটি। এছাড়া রয়েছে বোম্বার মেশিন।

চীনা মিডিয়া সূত্রে খবর, মধ্য-প্রাচ্যের যে সমস্ত দেশ সন্ত্রাসবাদের বিরুদ্ধে লড়াই চালাচ্ছে মূলত তাদেরকেই এই মানববিহীন যুদ্ধ হেলিকপ্টারটি বিক্রি করতে চায় চীন।

বিকাশে হুন্ডি, ২ হাজার ৮৮৭ এজেন্ট বন্ধের নির্দেশ

অবৈধ হুন্ডিতে জড়িত থাকার অভিযোগে বিকাশের ২ হাজার ৮৭৭ এজেন্টের কার্যক্রম বন্ধের নির্দেশ দিয়েছে বাংলাদেশ ব্যাংক।

এছাড়া এক হাজার ৮৬৩ গ্রাহকের হিসাবও বন্ধ করতে বলেছে কেন্দ্রীয় ব্যাংক।

বৃহস্পতিবার বিকাশ কর্তৃপক্ষের কাছে এই নির্দেশ চিঠি ও সিডি আকারে পাঠানো হয়েছে। পুলিশের অপরাধ তদন্ত বিভাগকেও (সিআইডি) চিঠি দেয়া হয়েছে। সেখানে অভিযুক্ত এজেন্টদের বিরুদ্ধে আইনি ব্যবস্থা নিতে বলা হয়েছে।

বাংলাদেশ ফিন্যান্সিয়াল ইন্টেলিজেন্স ইউনিট (বিএফআইইউ) মানি লন্ডারিং প্রতিরোধ ও সন্ত্রাসবিরোধী আইন অনুযায়ী এসব নির্দেশ দিয়েছে।

boimela-bkash-e-payment-techshohor

অনেকদিন ধরেই  অবৈধভাবে বিকাশ ব্যবহার করে বিদেশ হতে দেশে প্রবাসীদের আয় পাঠানো হচ্ছিল। ফলে বৈধ চ্যানেলে রেমিট্যান্সের পরিমাণ ব্যাপকভাবে কমে যায়।

রেমিট্যান্স কমে যাওয়ায় বাংলাদেশ ব্যাংক কয়েকটি তদন্ত করে।  এতে রেমিট্যান্স কমে যাওয়ার কারণ দেখা যায় অবৈধ  হুন্ডি।

এই হুন্ডি ব্যবসায়ীরা বিদেশে অর্থ সংগ্রহ করে ও পরে দেশে বিকাশের মাধ্যমে টাকা পাঠায়। এমনকি এতে তারা মোবাইল অ্যাপ ও কম্পিউটার নির্ভর স্বয়ংক্রিয় ব্যবস্থাও ব্যবহার করে। আর অ্যাকাউন্টগুলোতে শুধু অর্থ জমা হতো।

Scroll To Top