শিরোনাম
You are here: প্রচ্ছদ / প্রেস রিলিজ

বিভাগ: প্রেস রিলিজ

Feed Subscription

ইউএস বাংলায় গ্রামীণফোনের স্টার গ্রাহকদের জন্য ছাড়

আন্তর্জাতিক ও অভ্যন্তরীণ বিমানরুটে যৌথ প্রচারণার অধীনে স্টার গ্রাহকদের বিশেষ ডিসকাউন্ট সুবিধা দিতে অতি সম্প্রতি দেশের শীর্ষস্থানীয় ও অভিজাত এয়ারলাইন্স প্রতিষ্ঠান ইউএস বাংলার সাথে চুক্তি স্বাক্ষর করেছে গ্রামীণফোন লিমিটেড।

গ্রামীণফোনের এক বিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয়েছে এ প্রমোশনের অধীনে গ্রামীণফোনের স্টার গ্রাহকরা আন্তর্জাতিক গন্তব্যে (সিঙ্গাপুর, কুয়ালালামপুর, কলকাতা, কাঠমুন্ডু ও মাস্কট) ওয়ান ওয়ে অথবা রিটার্ন টিকেট উভয় ক্ষেত্রেই ভাড়ার ওপরে বিজনেস ক্লাসে ১২ শতাংশ এবং ইকোনোমি ক্লাসে ১০ শতাংশের বিশেষ ছাড় পাবেন। স্টার গ্রাহকরা আগামী ২০১৮ সালের ৩০ জুন পর্যন্ত এ ছাড় উপভোগ করতে পারবেন। এছাড়াও, স্টার গ্রাহকরা ব্যাংকক যাওয়ার ক্ষেত্রে বিজনেস ও ইকোনোমি উভয় ক্লাসেই আকর্ষণীয় ১২ শতাংশ ছাড় উপভোগ করতে পারবেন। এ সুযোগ থাকবে এ বছরের ৩১ অক্টোবর পর্যন্ত।

আন্তর্জাতিক রুট ছাড়াও, স্টার গ্রাহকরা অভ্যন্তরীণ রুটের (ঢাকা, চট্টগ্রাম, কক্সবাজার, সিলেট, যশোর, সৈয়দপুর, সৈয়দপুর ও বরিশাল)  ক্ষেত্রে আগামী ২০১৮ সালের ৩০ জুন পর্যন্ত ভাড়ার ওপরে ১০ শতাংশ ছাড় পাবেন।

জিপি হাউজে অনুষ্ঠিত চুক্তি স্বাক্ষর অনুষ্ঠানে নিজ নিজ প্রতিষ্ঠানের পক্ষে উপস্থিত ছিলেন গ্রামীণফোনের হেড অব প্রোডাক্ট ডিপার্টমেন্ট সৌরভ প্রকাশ খারে এবং ইউএস বাংলার ডেপুটি ডিরেক্টর অব সেলস অ্যান্ড মার্কেটিং সোহাইল মজিদ।

গ্রাহকরা ইউএস বাংলা এয়ারলাইন্সের ১৭টি সেলস অফিস থেকে এ অফার উপভোগ করতে পারবেন। বিস্তারিত তথ্যের জন্য যোগাযোগ করতে কল করুন ১৩৬০৫ নম্বর অথবা ০১৭৭৭৭৭৭৮০০-৮০৬ এই নম্বরে কিংবা ভিজিট করতে পারেন www.grameenphone.com/star-program – এই ওয়েবসাইটে।> বিজ্ঞপ্তি

মো. ইসমাঈল আল আমিরীর ইন্তেকাল

কোতয়ালী থানার আলকরণস্থ আহমদিয়া হাশেমিয়া ইসমাঈলিয়া সুন্নিয়া মাদ্রাসার প্রতিষ্ঠাতা এবং মা-মমতাজ হোসনে আরা হেফজখানার প্রতিষ্ঠাতা, ২০১৫ সালে ছুফি সাধনায় রাহে ভান্ডার এনোবল অ্যাওয়ার্ড পদক প্রাপ্ত শাহজাদা মো. ইসমাঈল আল আমিরী বুধবার দিবাগত রাত ৩ টায় ইন্তেকাল করেছেন (ইন্নালিল্লাহে…রাজেউন)। মৃত্যুকালে তাঁর বয়স হয়েছিল ৬২ বছর। তিনি দির্ঘদিন যাবত বার্ধক্যজনিত রোগে ভুগছিলেন। আজ বুধবার বাদ এশা লাল দিঘির ময়দানে মরহুমের নামাজে জানাযা অনুষ্ঠিত হবে। তাঁর মৃত্যুতে রাহে ভান্ডার কধুরখীল দরবার শরীফের সাজ্জাদানশীন ও রাহে ভান্ডার এনোবল অ্যাওয়ার্ডের উদ্যোক্তা আল্লামা ছৈয়দ জাফর ছাদেক শাহ (মা.) গভীর শোক প্রকাশ করেছেন। এক বিবৃতিতে ছৈয়দ জাফর ছাদেক শাহ বলেন, মরহুম মো. ইসমাঈল তাঁর জীবনের অধিকাংশ সময় মানব সেবা এবং আউলিয়াগণের গোলামীতে নিজেকে উৎসর্গ করেছেন। তাঁর অভাব পূরণ হওয়ার নয়। আমরা তাঁর বিদেহী আত্মার মাগফিরাত কামনা করছি। উল্লেখ্য রাহে ভান্ডার এনোবল অ্যাওয়ার্ড ছাড়াও মরহুম মো. ইসমাঈল ২০১০ সালে কবি আবুল ফজল ফাউন্ডেশন পদক লাভ করেন। প্রেস বিজ্ঞপ্তি।

ঘাতক দালাল নির্মূল কমিটি

১৯৯৪ সালে ২৬ জুলাই নরঘাতক গোলাম আযম প্রতিরোধ আন্দোলনে শহীদদের যথাযোগ্য মর্যাদায় স্মরণকল্পে প্রতি বছরের ন্যায় এবারও একাত্তরের ঘাতক দালাল নির্মূল কমিটি চট্টগ্রাম জেলা বিভিন্ন কর্মসূচি গ্রহণ করেছে।
কর্মসূচির মধ্যে রয়েছে, আজ ২৬ জুলাই, বুধবার বিকেল ৫টায় শহীদদের প্রতিকৃতিতে পুষ্পস্তবক অর্পণ এবং নগরীর চেরাগী পাহাড়স্থ বঙ্গবন্ধু ভবনের ৩য় তলায় চট্টলবন্ধু এস.এম জামাল উদ্দিন মিলনায়তনে “আওয়ামী রাজনীতিতে মুক্তিযুদ্ধের বিপক্ষ শক্তির সংযুক্তি বিনাশে পক্ষ শক্তির করণীয়” শীর্ষক আলোচনা সভা। কমিটির কেন্দ্রীয় সহ-সাধারণ সম্পাদক ও চট্টগ্রাম বিভাগীয় সমন্বয়ক লেখক-সাংবাদিক শওকত বাঙালির সভাপতিত্বে এতে চট্টগ্রামের মুক্তিযুদ্ধের পক্ষের বিভিন্ন প্রতিনিধিত্বশীল সংগঠনের নেতৃবৃন্দ আলোচনায় অংশ নেবেন।

এখনই সময়

মানসকিতার পরর্বিতন এখনই প্রয়োজন সচতেন জনগণ স্বদশেরে উন্নয়ন এই শ্লোগান নয়িে জনগনকে সচতেন নাগরকি হসিবেে গড়ে তুলে সকল অন্যায় থকেে দুরে রাখার দৃঢ় প্রত্যয় নয়িে আত্মপ্রকাশ করছেে একটি অরাজনতৈকি স্বচ্ছোসবেী সংগঠন “এখনই সময়” ।আমরা বশ্বিাস করি নাগরকি সচতেন হলইে সুন্দর নগরী ও দশে গঠন সম্ভব হব।ে গত শনবিার বকিাল ৪টায় মুক্তযিুদ্ধরে অন্যতম সংগঠক,স্বাধীন বাংলাদশেরে প্রথম মন্ত্রীসভার সফল মন্ত্রী জননতো মরহুম জহুর আহমদ চৌধুরীর বাড়ি প্রাঙ্গনে সংগঠনরে প্রধান র্কাযলয়ে ফরদি নওেয়াজরে সভাপতত্বিে কমটিি গঠন প্রক্রয়িা আনুষ্ঠানকিভাবে সম্পন্ন হয়। উক্ত সভায় র্সবসম্মতি ক্রমে মরহুম জননতো জহুর আহমদ চৌধুরীর সুযোগ্য পুত্র সাবকে ছাত্রনতো জসমি উদ্দনি চৌধুরীকে আহবায়ক ও ব্যবসায়ী এহছানুল আজমি লটিনকে সদস্য সচবি ও মোঃ ইলয়িাছ সরকার, মোঃ আমনি, সরওয়ার আলম মন,ি সাবকে সংসদ সদস্য কফলি উদ্দনিরে ছলেে সাহদে মুরাদ সাকু, ও ভোররে র্দপণ চট্টগ্রাম ব্যুরো প্রধান এস. এম. পন্টি’ুকে যুগ্ন- আহবায়ক করে স্বচ্ছোসবেী সংগঠন ’এখনই সময়’র আহবায়ক কমটিি গঠন করা হয়। উক্ত সভায় উপদষ্টো নর্বিাচতি হন আব্দুল হান্নান, বীর মুক্তযিোদ্ধা মোঃ মাহাফুজ ও ফরদি নওেয়াজ। সভায় বক্তাগন বলনে চট্টগ্রাম মহানগররে জলাবদ্ধতা, পরবিশে রক্ষা ও আইনরে প্রতি শ্রদ্ধাশীল হয়ে জনসচতেনতা বৃদ্ধি করে যার যার অবস্থান থকেে সুন্দর নগরী গঠন করার জন্য সকলকে র্সাবকি সহযোগতিার আহবান করা হয়। অন্যান্যদরে মাঝে বক্তব্য রাখনে শহদিুল ইসলাম মনু, উত্তম বড়–য়া এস.এম. মাসুক মনরি, এস.এম. সাকবি মুনরিী,মোঃ মোজাম্মলে হোসনে রয়িাদ, মোঃ মারুফ, রমজি উদ্দনি ও তরকি উল্লাহা বাহার ও মোঃ সরিাজ প্রমূখ।

মেয়র’র সাথে ট্রাক মালিক গ্রুপ নেতৃবৃন্দের সৌজন্য সাক্ষাত

চট্টগ্রাম মহানগর ও আশপাশের এলাকায় সড়ক-মহাসড়কের উপর যান চলাচল ও গাড়ি পার্কিং এর পরিকল্পিত ব্যবস্থা করতে পারলে যানজটমুক্ত নগরী গড়ে তোলা সম্ভব হবে। এ লক্ষ্যে পরিবহন জগতে শৃঙ্খলা বজায় রাখতে নগরবাসীর নিত্য নৈমিত্তিক যানজট সমস্যা সমাধানের জন্য নগরী ও জেলার বিভিন্ন পয়েন্টে পরিকল্পিতভাবে ট্রাক, কভার্ড ভ্যান ও মিনি ট্রাকগুলোর নিরাপদ পার্কিং এর জন্য টার্মিনাল নির্মাণ করার কোন বিকল্প নেই।
চট্টগ্রাম জেলা ট্রাক, কভার্ড ভ্যান এন্ড মিনি ট্রাক মালিক গ্রুপের ট্রাক টার্মিনাল নির্মাণের উদ্যোগকে স্বাগত জানিয়ে চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশনের মেয়র আলহাজ্ব আ.জ.ম নাসির উদ্দিন এসব কথা বলেন।
২৪ জুলাই চট্টগ্রাম জেলা ট্রাক, কভার্ড ভ্যান এন্ড মিনি ট্রাক মালিক গ্রুপ নেতৃবৃন্দ মেয়রের সাথে সৌজন্য সাক্ষাৎকালে গ্রুপের সভাপতি আবদুল মান্নানের ট্রাক টার্মিনাল নির্মাণের দাবি উত্থাপনের প্রেক্ষিতে মেয়র আরো বলেন, মালিক গ্রুপের টার্মিনাল নির্মাণের যাবতীয় কার্যক্রমে সর্বাত্মক সহযোগিতা করবেন।
এ সময় গ্রুপ নেতৃবৃন্দের মধ্যে ইউসুফ সরওয়ার, আবদুল মাবুদ তালুকদার, মোহাম্মদ মুসা, মো. এমদাদুল হক, মো. শাহদাত হোসেন, মো. হোসেন তালুকদার, খোরশেদ কোম্পানী, কে.এম মহিউদ্দীন, আলহাজ্ব আবু তাহের, মো. শওকত ওচমান, মো. সুলতান, মো. শাহজাহান, মো. মহিউদ্দীন তালুকদার, মো. বশির প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।
সাক্ষাৎকালে মালিক গ্রুপের পক্ষ থেকে মেয়রের হাতে শুভেচ্ছা ক্রেস্ট প্রদান করা হয়।

নবীণ-প্রবীণের সেতুবন্ধন রচনা করে পরিষদের কর্মকান্ডকে প্রসারিত করতে হবে

চিটাগাং পুলিশ ইনস্টিটিউশন প্রাক্তন ছাত্র-ছাত্রী পরিষদের
সাথে বৈঠক অনুষ্ঠানে লে: জেনারেল (অব) মাসুদ চৌধুরী

চিটাগাং পুলিশ ইনস্টিটিউশন প্রাক্তন ছাত্র-ছাত্রী পরিষদের উপদেষ্টা লে: জেনারেল (অব) মাসুদ উদ্দিন চৌধুরী বলেছেন, এই শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে ৬ষ্ঠ থেকে মাধ্যমিক শ্রেণী পর্যন্ত অধ্যয়নকালে অনেক মধুর স্মৃতি জড়িয়ে আছে। এখনও আমি সেই স্মৃতি আমার কর্মময় জীবনে ধারণ করে আছি। তাই শত ব্যস্ততার মাঝেও প্রাক্তন ছাত্র-ছাত্রী পরিষদের আহ্বানে যে কোনো কর্মকান্ড পরিচালনায় সাড়া দিই। তিনি আরো বলেন, এই শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের প্রাক্তন শিক্ষার্থীরা দেশ-বিদেশে নিজেদের মেধা ও প্রজ্ঞায় সুপ্রতিষ্ঠিত হয়েছেন। বর্তমানেও এই প্রতিষ্ঠান থেকে নতুন প্রজন্মের অনেক মেধাবী শিক্ষার্থী বেরিয়ে আসছেন। তাই নবীণ-প্রবীণের মধ্যে সেতুবন্ধন রচনা করে প্রাক্তন ছাত্র-ছাত্রী পরিষদের কর্মকান্ডকে আরো প্রসারিত করা হবে বলে তিনি আশা প্রকাশ করেন। তিনি এ লক্ষ্য অর্জনে এই পরিষদের বর্তমান নেতৃত্বের ভূয়সী প্রশংসা করেন এবং তাদের সাথে তিনি নিজের একাত্মতা ঘোষণা করেন। ২২ জুলাই সন্ধ্যায় নগরীর একটি অভিজাত রেঁস্তেুারায় পুলিশ ইনস্টিটিউশন প্রাক্তন ছাত্র-ছাত্রী পরিষদের কর্মকর্তাদের সাথে এক বৈঠকে প্রধান অতিথির বক্তব্যে আরো বলেন, ৬৯-ব্যাচের মাধ্যমিক উত্তীর্ণ একজন ছাত্র হিসেবে এই সংগঠনের কর্মকান্ডের সাথে আমি নিবিরভাবে জড়িত। আগামীতেও এই সংগঠনের সকল উদ্যোগের সাথে নিজেকে সম্পৃক্ত করবো বলে আমি প্রতিজ্ঞাবদ্ধ। তিনি ৬৯-ব্যাচের শিক্ষার্থীদের সাথে বর্তমান নেতৃত্বের কর্মকর্তাদের সাথে তাঁর একান্ত বৈঠকে মুগ্ধতা প্রকাশ করে বলেন, এর ফলে আমাদের মধ্যে পারস্পরিক যোগাযোগ ও যে কোন মহৎ কর্ম সম্পাদনে প্রেরণা যোগাবে। চিটাগাং পুলিশ ইনস্টিটিউশন প্রাক্তন ছাত্র-ছাত্রী পরিষদের সভাপতি আলহাজ্ব নাজমুল হায়দারের সভাপতিত্বে ও সাধারণ সম্পাদক আলহাজ্ব শফিকুল ইসলাম ফারুকের সঞ্চালনায় এই মিলনমেলায় অন্যান্যের মধ্যে বক্তব্য রাখেন প্রাক্তন ছাত্র পরিষদের উপদেষ্টা ও সাবেক সভাপতি রোটারিয়ান মাহমুদুর রহমান, ৬৮-ব্যাচের ছাত্র আলহাজ্ব জাকির হোসেন চৌধুরী, প্যাসিফিক জিন্টস্ লি: এর মহাব্যবস্থাপক নাছির আলম খান, ৬৯-ব্যাচের মোমিনুল হক, ডা: রবিউল কবির, ফেরদৌস হারুন, মিসেস কামরুন নাহার রুবি, ডা: পুর্ণেন্দু বিকাশ সাহা, সামসুল আলম, মো: আবদুল হক, মোহাম্মদ আলী, প্রাক্তন ছাত্র পরিষদের সাবেক সভাপতি মো: শাহ্ আলম, মির্জা মনিরুল হক, আলহাজ্ব মনজু মিয়া, কাজী মাহমুদ ইমাম বিলু, মো: গোলাম কিবরিয়া, গোলাম মোস্তফা দুলু, আবছার উদ্দিন সেলিম, আরিফুর রহমান শাহীন, সহকারী পুলিশ কমিশনার কাজী সাহাব উদ্দিন আহমেদ, আবু তারেক মো: নোমায়েন আজাদ প্রমুখ। পরিষদের প্রধান অতিথি অনুষ্ঠান স্থলে উপস্থিত হলে পরিষদের পক্ষ হতে ফুলেল শুভেচ্ছায় অভিনন্দন জানান এবং ৬৯-ব্যাচের প্রাক্তন শিক্ষার্থীদের রজনীগন্ধা স্টিক ও গোলাপ ফুল দিয়ে তাদের বরণ করে নেয়া হয়। নৈশভোজ শেষে কাজী মাহমুদ ইমাম বিলুর পরিচালনায় র‌্যাফেল ড্র অনুষ্ঠিত হয়।

প্রবীণ জননেতা ইসহাক মিয়ার ইন্তেকাল মেয়রের শোক

বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের উপদেষ্টা, সাবেক গণপরিষদ ও সংসদ সদস্য, চট্টগ্রাম বন্দরের সাবেক চেয়ারম্যান, সাবেক ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান ও রাজনীতির কিংবদন্তি জননেতা হাজী মোহাম্মদ ইসহাক মিয়া আজ ২৪ জুলাই ২০১৭ খ্রি. বেলা ১১টা ১০ মিনিটে চট্টগ্রাম নগরীর ম্যাক্স হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় হৃদযন্ত্রের ক্রীয়া বন্ধ হয়ে ইন্তেকাল করেন (ইন্না—রাজিউন) ।
মরহুমের নামাজে যানাজা ২৫ জুলাই ২০১৭ খ্রি. সকাল ১০ টায় নগরীর জমিয়তুল ফালাহ জাতীয় মসজিদ মাঠে অনুষ্ঠিত হবে। মৃত্যুকালে তিনি স্ত্রী, ৩ ছেলে, ৭ মেয়ে সহ অসংখ্য আত্মীয় স্বজন রেখে যান।
কিংবদন্তি এই নেতার মৃত্যুতে চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশনের মেয়র ও চট্টগ্রাম মহানগর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক আলহাজ্ব আ জ ম নাছির উদ্দীন গভীর শোক ও দুঃখ প্রকাশ করেছেন। তিনি আজ এক শোকবার্তায় মরহুমের বিদেহী আত্মার মাগফেরাত ও শোক সন্তপ্ত পরিবার পরিজনের প্রতি সমবেদনা জানান।

তাজউদ্দিন আহমেদ ছিলেন মেধাবী রাজনীতিবিদ

দক্ষিণ বাকলিয়া ওয়ার্ড ছাত্রলীগের আলোচনা সভায় বক্তারা

বাংলাদেশের প্রথম প্রধানমন্ত্রী ও স্বাধীনতা সংগ্রামের অন্যতম নেতা বঙ্গতাজ তাজউদ্দিন আহমেদের ৯২ তম জন্মবার্ষিকী উপলক্ষে ১৯ নং দক্ষিণ বাকলিয়া ওয়ার্ড ছাত্রলীগের উদ্যোগে এক আলোচনা সভা ২৩ জুলাই সন্ধ্যায় স্থানীয় মিয়া খান নগর চত্বরে অনুষ্ঠিত হয়। দক্ষিণ বাকলিয়া ওয়ার্ড ছাত্রলীগ নেতা ইরফান উদ্দিন তাসকিনের সভাপতিত্বে ও ছাত্রনেতা গোফরান চৌঃ পরিচালনায় আলোচনা সভায় প্রধান অতিথি ছিলেন চট্টগ্রাম মহানগর ছাত্রলীগের নির্বাহী সদস্য ছাত্রনেতা বোরহান উদ্দিন গিফারী। বিশেষ অতিথি ছিলেন চট্টগ্রাম আইন কলেজ ছাত্রলীগের সাবেক সহ সম্পাদক কবি আসিফ ইকবাল, ওয়ার্ড যুবলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক সায়েম হোসেন, আল আমিন, মুকিত হোসেন, নাহিদুর রহমান হিরা,ওয়ার্ড ছাত্রলীগ নেতা জুনায়েদ, পারভেজ, লক্ষণ, মাহিন, শাহীন, আজগর, ফয়সাল, ঈসমাঈল প্রমুখ। আলোচনা সভায় প্রধান অতিথি বোরহান উদ্দিন গিফারী বলেন, ১৯৭১ সালে বাংলাদেশের মুক্তিযুদ্ধের সময় অস্থায়ী বাংলাদেশ সরকারের প্রধানমন্ত্রীর দায়িত্ব সাফল্যের সাথে পালন করেন তাজউদ্দিন আহমেদ। তিনি একজন সৎ ও মেধাবী রাজনীতিবিদ হিসেবে তাঁর পরিচিতি ছিল। তাজউদ্দীন আহমদ মুক্তিযুদ্ধকালীন বাংলাদেশের প্রথম সরকার গঠনে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখেন যা মুজিবনগর সরকার নামে অধিক পরিচিত। স্বাধীনতা পরবর্তীকালে তিনি বাংলাদেশের অর্থমন্ত্রী হিসাবে ১৯৭৪ সাল পর্যন্ত দায়িত্ব পালন করেন। ১৯৭৫ সালে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান স্বপরিবারে নিহত হবার পর আরও তিনজন জাতীয় নেতাসহ তাঁকে বন্দী করে ঢাকা কেন্দ্রীয় কারাগারে রাখা হয়। সেই ঢাকা কেন্দ্রীয় কারাগারেই ১৯৭৫ সালের ৩রা নভেম্বর বন্দী অবস্থায় ঘাতকের বুলেটে তিনি নিহত হন। আলোচনা সভা শেষে বঙ্গতাজ তাজউদ্দিন আহমেদের ৯২ তম জন্মবার্ষিকীর কেক কাটা হয়।

বায়তুশ শরফ মাদরাসা পরিদর্শনে ভিসি আহসান উল্লাহ

বায়তুশ শরফ আদর্শ কামিল মাদরাসার পরিদর্শনকালে ইসলামী আরবী বিশ্ববিদ্যালয়ের ভিসি প্রফেসর ড. আহসান উল্লাহ (আহসান সাইয়্যেদ) বলেছেন, বায়তুশ শরফ আদর্শ কামিল মাদরাসার শিক্ষার্থীরা দেশের বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানে এবং সরকারের বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানে সুনাম ও দক্ষতার সাথে দায়িত্ব পালন করে যাচ্ছে। ডাক্তার, ইঞ্জিনিয়ার ও বিসিএস পরীক্ষায় উত্তীর্ণ হয়ে এ প্রতিষ্ঠানে শিক্ষার্থীরা অন্যান্য নজির স্থাপন করেছে। বিশ্ববিদ্যালয় থেকে শুরু করে সরকারী বেসরকারী প্রতিষ্ঠানে শিক্ষকতায় নিয়োজিত রয়েছে হাজার হাজার শিক্ষার্থী। তিনি বলেন আধুনিক লাইব্রেরী, মাল্টিমিডিয়া ক্লাস এবং যুগোপযোগী শিক্ষা দানে বায়তুশ শরফ মাদরাসা সারা দেশে দৃষ্টান্ত স্থাপন করার মতো। অদ্য সকাল ১০টায় ইসলামী আরবী বিশ্ববিদ্যালয়ের পরিদর্শন টীম মাদরাসার ভবন, লাইব্রেরী, মাল্টিমিডিয়া ক্লাস রুমসহ সার্বিক বিষয় পরিদর্শনকালে তিনি উপরোক্ত কথা বলেন। পরিদর্শন টীমে আরো উপস্থিত ছিলেন জমিয়তুল মোদাররেসিরে মহাসচিব মাওলানা শব্বির আহমদ মোমতাজি, ইসলামী আরবী বিশ্ববিদ্যালয়ের পরিদর্শক প্রফেসর ড. ইলিয়াছ সিদ্দিকী। এ সময় উপস্থিত ছিলেন বায়তুশ শরফ আদর্শ কামিল মাদরাসার অধ্যক্ষ মাওলানা প্রফেসর ড. সাইয়্যেদ আবু নোমান, উপাধ্যক্ষ মাওলানা আমীনুল ইসলাম, মুহাদ্দিস মাওলানা জয়নাল আবেদীন, মুহাদ্দিস মাওলানা জসিম উদ্দিন, প্রভাষক মাওলানা আবু তাহের, পদার্থ বিজ্ঞানের প্রভাষক জামাল উদ্দিন প্রমুখ।
পরিদর্শন টীমের সদস্যদের রোভার সদস্যরা মাদরাসা প্রাঙ্গণে অভ্যার্থনা জানান এবং গার্ড অব অনার দিয়ে মাদরাসা মিলনায়তনে নিয়ে যান। অধ্যক্ষ মাওলানা ড. সাইয়্যেদ আবু নোমান বলেন, বায়তুশ শরফ আদর্শ কামিল মাদরাসা সব দিক দিয়ে অতীতের চেয়ে অনেক ভাল করছে। ইসলাম ও ইসলামী মূল্যবোধ এবং নৈতিকতা সম্পন্ন এবং দেশের ভাবমুর্তি উজ্জল করার মতো শিক্ষাদান করার সামর্থ অর্জন করেছে। যে কোন পরিস্থিতিতে দেশ প্রেমী আদর্শ মানুষ গড়ার ইন্ড্রাষ্টি হিসেবে কাজ করবে এ মাদরাসা। তিনি মাদরাসার উন্নয়নে সকলের সার্বিক সহযোগিতা কামনা করেন।

শিক্ষিত জাতিই দিবে আলোক বর্তিকা

নগরীর কোতোয়ালীর মোড়ে প্রতিধ্বনি ক্লাবের উদ্যোগ এইচ.এস.সি. শিক্ষার্থীদের বিনামূল্যে মার্কসিট বিতরণ করা হয়। ক্লাব সভাপতি সমন্যু চক্রবর্তীর আকাশে সভাপতিত্বে এবং সাধারণ সম্পাদক রিমন দত্তের সঞ্চাচলনায় প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন, ৩৩নং ফিরিঙ্গীবাজার ওয়ার্ড কাউন্সিলর এবং চট্টগ্রাম উন্নয়ন কর্তৃপক্ষের বোর্ড সদস্য আলহাজ¦ হাসান মুরাদ বিপ্লব। প্রধান বক্তা হিসেবে উপস্থিত ছিলেন, ৩৪নং পাথরঘাটা ওয়ার্ড আওয়ামীলীগ নেতা ও কেন্দ্রীয় ছাত্রলীগের সাবেক সদস্য পুলক খাস্তগীর, বিশেষ অতিথি উপস্থিত ছিলেন ক্লাবের উপদেষ্টা এবং চট্টগ্রাম মহানগর ছাত্রলীগ নেতা অনিন্দ্য দেব। অন্যান্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন, ক্লাবের জয়দাশ গুপ্ত, সৌরভ দাশ, পান্না সরকার, তন্ময় দাশগুপ্ত, জয় চৌহান, সঞ্জয় দে, জনি, প্রান্ত, রুবেল, হৃদয়, পার্থ, দিবাকর, আদি, নিলয় প্রমুখ।
এইচ এস সি শিক্ষার্থীদের উদ্দেশ্যে প্রধান অতিথি বলেন, সমৃদ্ধশীল ও ডিজিটাল বাংলাদেশ গড়ার লক্ষে বঙ্গবন্ধুর সোনার বাংলা বিনির্মাণে তোমরাই আগামিতে নেতৃত্ব দিবে। কৃতকার্য শিক্ষার্থীদের আরো উচ্চতর শিক্ষায় শিক্ষিত হতে পারে তার শুভেচ্ছা জ্ঞাপন করেন এবং অকৃতকার্যদের আগামী পরীক্ষায় ভালো ভাবে প্রস্তুতি নেয়ার পরামর্শ দেন।

Scroll To Top