শিরোনাম
You are here: প্রচ্ছদ / শহর থেকে দূরে

বিভাগ: শহর থেকে দূরে

Feed Subscription

ঝুঁকি নিয়ে চলছে পাঠদান

কায়সার হামিদ মানিক, উখিয়া (কক্সবাজার):
উখিয়ার প্রত্যন্ত হতদরিদ্র জনগোষ্ঠি অধ্যুষিত জনপদ রাজাপালং ইউনিয়নের করইবনিয়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে ছাদ ছুয়ে পানি পড়ছে। বিকল্প ব্যবস্থা না থাকায় শিক্ষার্থীদের ঝুঁকিপূর্ণ শ্রেণিকক্ষে পাঠদান করতে গিয়ে বই খাতা নষ্ট হয়ে যাওয়ার অভিযোগ উঠেছে। উপরোন্তু শ্রেণিকক্ষ সংকটের কারণে শিশু শ্রেণির শিক্ষার্থীদের গাছ তলায় বসে পাঠদান করতে হচ্ছে। লাইব্রেরীর ছাদের নিচে পলিথিন দিয়ে শিক্ষকেরা দায়িত্ব পালন করলেও শিক্ষার্থী ও শিক্ষকদের মধ্যে বিরাজ করছে ছাদ ধ্বসের আতংক।
সরেজমিন করইবনিয়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় ঘুরে শিক্ষার্থী, শিক্ষক, পরিচালনা কমিটির সাথে কথা বলে জানা যায়, ১৯৮৪ সালে এলজিইডির অর্থায়নে বিদ্যালয় ভবনটি নির্মিত হয়। শিক্ষকদের অভিযোগ গুনগত মান সম্পন্ন উপকরণ ব্যবহৃত না হওয়ার কারণে শ্রেণিকক্ষে ছাদ ছুয়ে পানি পড়ছে।
সহকারি শিক্ষিকা উর্মি সালমা জানায়, শ্রেণি কক্ষে পাঠদান করতে ভয় লাগে। কখন জানি প্রাকৃতিক দূর্যোগে স্কুল ভবনটি ধ্বসে পড়ে। প্রথম শিফটে পঞ্চম শ্রেণি, দ্বিতীয় শ্রেণি ও প্রথম শ্রেণি এ তিনটি শ্রেণিকক্ষে গিয়ে দেখা যায়, শিক্ষার্থীরা বৃষ্টিভেজা বেঞ্চে বসে পড়ালেখা করছে। পঞ্চমশ্রেণির ছাত্র হারুনুর রশিদ জানায়, শ্রেণিকক্ষের প্যালেস্তরা খসে পড়ার আশংকায় পড়ালেখায় মন বসে না।
বিদ্যালয়ের উঠানের সামনে গাছতলায় পাঠদান করাচ্ছে প্যারা শিক্ষক ইয়াছমিন আক্তার। শ্রেণিকক্ষ সংকটের কারণে শিশু শ্রেণির শিক্ষার্থীদের গাছতলার মাটিতে বসে পড়াতে হচ্ছে। তবে বৃষ্টি হলে ছুটি দিতে হয় বলে ওই শিক্ষক জানান। বিদ্যালয়ের লাইব্রেরীতে গিয়ে দেখা যায়, ছাদের নিচে পলিথিন দিয়ে শিক্ষক শিক্ষিকারা দায়িত্ব পালন করছে।
প্রধান শিক্ষক মাস্টার জানে আলম জানায়, বিদ্যালয় ভবনটি ব্যবহার অনুপযোগী হওয়ার পরও বিকল্প ব্যবস্থা না থাকায় ঝুঁকি নিয়ে ছাত্রছাত্রীদের পাঠদান করাতে হচ্ছে। তিনি জানান, গত কয়েকদিনের ভারী বর্ষণে শ্রেণির কক্ষের আসবাবপত্র, লাইব্রেরীর আনুসাঙ্গিক সরঞ্জামাদি বৃষ্টিতে ভিজে নষ্ট হয়ে গেছে। বিদ্যালয়ে একটি নতুন ভবন তৈরি প্রস্তাবনা অনুমোদন হলেও বাস্তবায়নের উদ্যোগ বিলম্বিত হচ্ছে বিধায় প্রাকৃতিক দূর্যোগ, দূর্ঘটনার আশংকা নিয়ে স্কুলের দায়িত্ব পালন করে যেতে হচ্ছে।
৫ জন শিক্ষক প্রায় ৪শতাধিক শিক্ষার্থীকে ঝুঁকিনিয়ে পড়ালেখা করতে হচ্ছে এমন প্রশ্নের জবাবে উপজেলা শিক্ষা অফিসার বাবু সুব্রত কুমার ধর জানান, তিনি বিদ্যালয়ের নাজুক পরিস্থিতি দেখেছেন। নতুন ভবন নির্মিত না হওয়া পর্যন্ত এভাবে চলতে হবে বলে তিনি তার মতামত ব্যক্ত করেন।
পরিচালনা কমিটির সভাপতি ইকবাল মনির জানান, বিদ্যালয়টি পরিত্যক্ত ঘোষণা করে নতুন ভবন নির্মিত না হওয়া পর্যন্ত অন্য কোন নিরাপদ স্থানে শিক্ষার্থীদের পাঠদান করানোর অনুমতি এবং ব্যবস্থা নেওয়া শিক্ষা কর্মকর্তার নৈতিক দায়িত্ব থাকা সত্ত্বেও তিনি বিষয়টিকে গুরুত্ব দিচ্ছে না।

উখিয়ায় ইয়াবা সহ আটক ৪

কায়সার হামিদ মানিক, উখিয়া:
উখিয়া থানা পুলিশ উপজেলার সোনার পাড়া বাজার এলাকায় গোপন সংবাদের ভিত্তিতে অভিযান চালিয়ে ৩২৫ পিস ইয়াবা সহ ৪ জনকে আটক করেছে। বুধবার ভোরে এ অভিযান পরিচালনা করেন উখিয়া থানা পুলিশের সহকারী উপ-পরিদর্শক মোঃ আমিন উল্লাহর নেতৃত্বে একদল পুলিশ। আটককৃতরা হল মোঃ জসিম উদ্দিন, আরিফুর রহমান, মুবিন উল্লাহ ও মাহমুদুল হক। ধৃত ব্যক্তিরা উপজেলার জালিয়াপালং ইউনিয়নের সোনার পাড়া এলাকার বলে পুলিশ জানিয়েছেন। ধৃতদের সন্ধ্যার দিকে উখিয়া উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার কার্যালয়ে হাজির করা হলে ৩ জনকে বিভিন্ন মেয়াদে সাজা ও অপরজনের বিরুদ্ধে উখিয়া থানায় মাদক দ্রব্য নিয়ন্ত্রণ আইনের সংশ্লিষ্ট ধারায় মামলা রুজু করে জেল হাজতে প্রেরণ করা হয় বলে উখিয়া থানার ওসি আবুল খায়ের এ প্রতিবেদককে জানিয়েছেন।

আনোয়ারার বটতলীতে শেখ রাসেলে কর্মীসভা

আনোয়ারা প্রতিনিধি:
আনোয়ারা উপজেলার বটতলী ইউনিয়নের আইরমঙ্গল শেখ রাসেল স্মৃতি সংসদেও কর্মী সভাপতি মহিউদ্দীন মন্টুর সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত হয়।
এতে প্রধান অতিথি ছিলেন আনোয়ারা উপজেলা আওয়ামীলীগের সাবেক সদস্য আহমদ ছোবহান, বিশেষ অতিথি ছিলেন সংগঠনের উপদেষ্ঠা ও বটতলী ইউনিয়ন আওয়ামীলীগ নেতা আবু হানিফ।
বক্তব্য রাখেন শাহ আলম, নুরুল হক প্রমুখ। এসময় উপস্থিত ছিলেন ছাত্রলীগ নেতা আবদুল হামিদ আবদুল বারি, জাগের হোসেন, আহমদ উল্লাহ, মো. আরিফ, ইস্তেফাজ, সাহাবউদ্দীন, হুমায়ুন কবির প্রমুখ।
সভায় বক্তারা বলেন, আনোয়ারার উন্নয়নে ভূমিপ্রতিমন্ত্রী সাইফুজ্জামান চৌধুরী জাবেদ অনান্যদের ত’লনায় রেকর্ড পরিমান উন্নযন করে যাচ্ছেন। আগামীতেও এ উন্নযনের ধারা অব্যাহত রাখতে নৌকা প্রতীকে ভোট দেওয়ার আহবান জানান।

 

পানিতে তলিয়ে গেছে রাউজানের নিম্মাঞ্চল

শফিউল আলম, রাউজান : কাপ্তাই বাধের পানি জোয়ারের সময়ে এসে রাউজানের নিম্মাঞ্চল পানিতে তলিয়ে গেছে । বিনাজুরী ইউনিয়ন, উরকিরচর, পুর্ব গুজরা, পশ্চিম গুজরা, নোয়াপাড়া গহিরা, নোয়াজিশপুর ইউনিয়নের সড়ক, ঘরবাড়ী, ফসলী জমি পানিতে ডুবে গেছে । গতকাল ২৩ জুলাই সকাল থেকে তিনদিনের প্রবল বর্ষন ও কাপ্তাই হৃদের পানি কর্ণফুলী নদী,হালদা নদী ও সর্তা খাল সহ বিভিন্ন খাল দিয়ে জোয়ারের সময়ে প্রবেশ করে রাউজানের নিচু এলাকা প্লাবিত হয়ে এলাকার মানুষ পানিবন্দ্বি হয়ে পড়েছে । কাপ্তাই বাধের পানি জেয়ারের সময়ে এসে রাউজানে বিভিন্ন এলাকা প্লাবিত হয়ে এলাকার সড়ক, ঘরবাড়ী পানিতে ডুবে গিয়ে এলাকার মানুষের চরম দুভোর্গের সৃষ্টি হয়েছে । রাউজানের নিচু এলাকার আমন ধানের বীজতলা ও আমন ধানের চারা পানিতে ডুবে গিয়ে ব্যাপক ক্ষতির আশংকা রয়েছে । নিচু এলাকার অনেক মানুষ তাদের চলাচলের রাস্তা পানিতে ডুবে যাওয়ায় নৌকা দিয়ে চলাচল করছে । রাউজানের মোবরকখীল, দক্ষিন গহিরা, পশ্চিম গহিরা, পুর্ব গহিরা, দক্ষিন সর্তা, সুলতান পুর কাজী পাড়া, ঢেউয়া পাড়া, লেলাঙ্গারা, ইদিলপুর, ছিটিয়া পাড়া, কাগতিয়া, ডোমখালী, মগদাই, আধার মানিক, বড়ঠাকুর পাড়া, উরকিরচর, মীরা পাড়া, পশ্চিম কদলপুর, পটিয়া পাড়া, কচুখাইন, সামমহালদার পাড়া, বদু পাড়া, গশ্চি, পাচখাইন, ফতেহ নগর, নদীম পুর, কোতোয়ালী ঘোনা, পশ্চিম বিনাজুরী, উত্তর গুজরা এলাকার সড়ক ঘর বাড়ী, ফসলী জমি পানিতে ডুবে গেছে । বন্যা কবলিত এলাকার লোকজন জানান, পুর্ব গুজরা, পশ্চিম গুজরা, বাগোয়ান, বিনাজুরী, নোয়াপাড়া, উরকির চর ইউনিয়নের শতাধিক মাছ চাষের পুকুরের মাছ পানিতে ভাসিয়ে নিয়ে গেছে । রাউজান উপজেলা প্রকল্প বাস্তবায়ন অফিসার নিয়াজ মোরশেদ জানান উপজেলা যে সব এলাকা নিচু ঐ সব এলাকায় কাপ্তাই বাধের পানি কর্ণফুলী নদী ও হালদা নদী দিয়ে এসে বিভিন্ন খালের মধ্যে এলাকায় প্রবেশ করে নিচু এলাকা প্লাবিত হয়ে পড়েছে ।

কর্ণফুলী উপজেলা প্রশাসনের ত্রাণ বিতরন

আনোয়ারা প্রতিনিধি:
গত দু’দিনের টানা বৃষ্টিপাতে জোয়ারের পানিতে সৃষ্ট বন্যায় কর্ণফুলী উপজেলার ৫ ইউনিয়নের ক্ষতিগ্রস্থ পরিবারকে সাত্বনা দিতে মঙ্গলবার বিকেলে কোমর পানির মাঝে জুলধা ইউনিয়নের ডাঙ্গারচর এলাকায় সরেজমিনে পরিদর্শন করেছেন কর্ণফুলী উপজেলা নির্বাহী অফিসার ইউএনও আহসান উদদিন মুরাদ। এসময় স্থানীয় জনতা ইউএনও কে কাছে পেয়ে তাদের দুঃখ দূর্দশার কথা তুলে ধরেন।
এদিকে বুধবার সকালে বন্যায় ক্ষতিগ্রস্থ উপজেলার পাচ ইউনিয়নের ছয়শত পরিবারকে খাদ্য সামগ্রী ও দুই পরিবারকে নগদ অর্থ প্রদান করা হয়।
এব্যাপারে কর্ণফুলী উপজেলা নির্বাহী অফিসার ইউএনও আহসান উদদিন মুরাদ বলেন, ক্ষত্রিগ্রস্থ পরিবাররের জন্য সাময়িকভাবে খাদ্যসামগ্রী পাঠানো হয়েছে। সরকারের কাছে আরো ত্রাণের জন্য আবেদন করা হয়েছে।

 

বোয়ালখালীতে কারেন্ট জাল বিক্রির দায়ে জরিমানা

বোয়ালখালী প্রতিনিধি : বোয়ালখালীতে কারেন্ট জাল বিক্রির দায়ে দুইজনকে জরিমানা করেছে ভ্রাম্যমাণ আদালত।
বুধবার (২৬ জুলাই) বিকেলে উপজেলার কালাইয়ার হাটে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা আফিয়া আখতার এ আদালত পরিচালনা করেন।
কারেন্ট জাল বিক্রির দায়ে মো. শহিদুলকে ৫হাজার ও মো.নুরুল আলমকে ৫হাজার টাকার জরিমানা করা হয়েছে জানিয়ে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা বলেন, ১১টি কারেন্ট জাল জব্দ করা হয়। যা দৈর্ঘ্যে প্রায় আড়াই হাজার মিটার হবে। পরে তা পুড়িয়ে দেয়া হয়।
এ সময় উপজেলা মৎস্য কর্মকর্তা মো. আতিকুর রহমান ও থানার উপ-পরিদর্শক মাহবুব হাসান মিল্টন উপস্থিত ছিলেন।

মিরসরাইয়ে ২শ পিস ইয়াবা সহ মাদক ব্যবসায়ী গ্রেফতার

মিরসরাই (চট্টগ্রাম) সংবাদদাতা::
মিরসরাইয়ের জোরারগঞ্জ থানার শীর্ষ মাদক ব্যবসায়ী রফিকুল ইসলাম (৩৮) কে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ। মঙ্গলবার (২৫ জুলাই) রাত ৮টায় বারইয়ারহাট পৌরসভার গাছ মার্কেট এলাকা থেকে তাকে গ্রেপ্তার করা হয়। এসময় তার সাথে থাকা ২শ পিস ইয়াবা উদ্ধার করা হয়েছে। রফিক হিঙ্গুলী ইউনিয়নের গনকছড়া এলাকার মনির আহম্মদের পুত্র।

জোরারগঞ্জ থানার সেকেন্ড অফিসার বিপুল দেবনাথ জানান, গোপন সংবাদের ভিত্তিতে মঙ্গলবার রাতে তাকে আটক করা হয়েছে। এসময় তার সাথে থাকা একটি বড় মোবাইল ফোনের ভেতরে অভিনব ভাবে থাকা ২শ পিস ইয়াবা উদ্ধার করা হয়েছে। তার বিরুদ্ধে থানায় অস্ত্র আইনে ১টি সহ ৬-৭টি মাদক মামলা রয়েছে। আটকের ঘটনায় মাদকদ্রব্য আইনে একটি মামলা দায়ের করা হয়েছে। এরপূর্বে রফিক একাধিকবার গ্রেপ্তার হলেও জামিনে বেরিয়ে পুনরায় মাদক ব্যবসার সাথে জড়িয়ে পড়ে।

৭ বছরে শেষ হয়নি গুজরা পুলিশ তদন্ত কেন্দ্র নির্মান কাজ

শফিউল আলম, রাউজান (চট্টগ্রাম) প্রতিনিধি ঃ সাত বৎসর হলে ও পুর্ব গুজরা পুলিশ তদন্ত কেন্দ্র ভবন নির্মানের কাজ শেষ হয়নি ভবনের পার্শ্বে সীমানা প্রাচীর ধসে পড়েছে । রাউজান উপজেলার ১০ নং পুর্ব গুজরা ইউনিয়নে পুর্ব গুজরা পুলিশ তদন্ত কেন্দ্র ভবন নির্মানের কাজ শুরু করে ২০১০ সালের ফেব্রুয়ারী মাসে । ভবনের নির্মান কাজ শুরু করার ৬বৎসর ৭ মাস অতিবিাহিত হলে ও ভবনের নির্মান কাজ শেষ হয়নি । ভবনের নির্মান কাজ শেষ করার পুর্বে গত ১৮ জুন সকাল সাড়ে এগারটার সময়ে ভবনের বাইরে নব নির্মিত সীমানা প্রাচীর ধসে পড়ে । পুর্ব গুজরা পুলিশ তদন্ত কেন্দ্র ভবন নির্মান কাজ শেষ না হওয়ায় পুর্ব গুজরা পুলিশ তদন্ত কেন্দ্রের কাজ পুর্ব গুজরা অলিমিয়ার হাট নাজিম বিল্ডিংয়ের ৩য় তলায় । ভাড়া ঘরের জানালা নেই, নেই হাজতখানা, নেই অস্ত্রাগার, নেই পানির ব্যবস্থা । ভাড়া ঘরে ২জন অফিসার সহ ১৮ জন পুলিশ থাকে মানবেতর জীবন যাপন করছেন । রাউজান পুর্ব গুজরা পুলিশ তদন্ত কেন্দ্রের ইনচার্জ এস আই মহসিন রেজা বলেন, ভবন নির্মান কাজ শেষ না হওয়ায় প্রতিমাসে ৭ হাজার টাকা ভাড়া দিয়ে ঘর ভাড়া নিয়ে প্রতিদিন পুলিশের কাজ করতে হয় । ভাড়া ঘরে জানালা না থাকায় বাতাশ ও বৃষ্টি হলে রাতে পুলিশের সদস্যার ঘুমাতে পারেনা বাতাশে বৃষ্টির পানি ভাড় করা ঘরে প্রবেশ করে পুীলম সদস্যরা নির্ঘুম রাত কাটাতে হয় । ভাড়া ঘরে পানির কোন ব্যবস্থা না থাকায় পুলিশের সদস্যরা বাইরে গিয়ে লোকজনের পুকুরে গোসল ও কাপড় ধোয়ার কাজ করতে হয় । গত ১৯৯৩ সালের ১৫জানুয়ারী পুর্ব ইউনিয়ন পরিষদ ভবনে একটি সালিসি বৈঠক করার সময়ে তৎকালীন চেয়ারম্যান আকতার হোসেন রাজুকে সন্ত্রাসীরা গুলি করে হত্যা করে । ঐ সময়ে পুর্ব গুজরা ইউনিয়ন পরিষদ ভবনে অস্থায়ী পুলিশ ক্যম্প বসানো হয় । পরবর্তী ১৯৯৮ সালে পুর্ব গুজরা পুলিশ ক্যম্পকে পুলিশ তদন্ত কেন্দ্র হিসাবে স্থায়ীকরন করা হয় । ১৯৯৩ সাল থেকে ২০১২ সাল পর্যন্ত সময়ে পুর্ব গুজরা পুলিশ তদন্ত কেন্দ্রের কার্যক্রম পুর্ব গুজরা ইউনিয়ন পরিষদ ভবনে চলে । পুর্ব গুজরা ইউনিয়ন পরিষদ ভবন পুরাতন হওয়ায় তা ভেঙ্গে নতুন ভবন নির্মানের কাজ শুরু করলে ২০১২ সাল থেকে অলিমিয়ার হাট নাজিম বিল্ডিং এর তিন তলা একটি ভবন ভাড়া নিয়ে পুর্ব গুজরা পুলিশ তদন্ত কেন্দ্রের কাজ চালানো হয় । রাউজানের সাংসদ এবি এম ফজলে করিম চৌধুরীর একান্ত প্রচেষ্টায় অলিমিয়ার হাটের দক্ষিনে এক একর জমিতে পুর্ব গুজরা পুলিশ তদন্ত কেন্দ্র ভবন নিমানের কাজ শুরু করা হয় ২০১০ সালের ফেব্রুয়ারী মাসে ৬ বৎসর ৭মাস অতিবাহিত হলে ও ভবনের নির্মান কাজ শেষ করতে পারেনি ঠিকাদারী প্রতিষ্টান । ভবনের নির্মান কাজে ব্যাপক অনিয়ম হওয়ার অভিযোগ রয়েছে । ভবনের নির্মান কাজের অভিযোগ পেয়ে পুলিশ সদর দপ্তর থেকে অতিরিক্ত আই, জি,পি অর্থ সরেজমিনে এসে ভবনের নির্মান কাজ দেখে অসন্তোষ প্রকাশ করে । ৬ বৎসর ৭ মাস অতিবাহিত হলে ও ভবনটির নির্মান কাজ শেষ হবে কবে ? তা সংশ্লিষ্ট বিভাগের কাছে জানতে চাই এলাকার লোকজন ।

চকরিয়ার কৃতি সন্তান আব্দুল্লাহ এখন জেলা জুডিশিয়াল ম্যাজিষ্ট্রেট

বি,এম হাবিব উল্লাহ, চকরিয়া(কক্সবাজার)প্রতিনিধি-
কক্সবাজারের চকরিয়া উপজেলার খুটাখালী ইউনিয়নের স্থায়ী বাসিন্দা আব্দুল্লাহ এখন শরীয়তপুর জেলা সদরের জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট। আগামী জানুয়ারী ১০১৮ সালে তার প্রথম কর্মস্থলে যোগদানের কথা রয়েছে। আব্দুল্লাহ খান খুটাখালী ইউনিয়নের শিয়াপাড়া গ্রামের বাবা ইউসুফ আলী ও মা মিসেস তাজমুন নেছার পুত্র । আব্দুল্লাহ ২০০৭ সালে খুটাখালী কিশলয় আদর্শ শিক্ষা নিকেতন থেকে এসএসসি, ২০০৯ সালে চট্টগ্রাম সরকারী সিটি কলেজ থেকে এইচএসসি পরবর্তি ২০১৪ সালে জগন্নাত বিশ্ববিদ্যালয় থেকে এলএলবি (অনার্স) পরে ২০১৫ সালে এলএলএম ডিগ্রী অর্জন করেন। পরে চলতি ৩৫ তম বাংলাদেশ জুডিসিয়াল সার্ভিস পরীক্ষায় তিনি সফলতার সাথে উত্তীর্ণ হয়।

নাফনদীতে নিখোঁজ জেলের লাশ উদ্ধার

টেকনাফ প্রতিনিধি:: নাফনদীর জাদিমুরা বরাবর মাছ শিকারে গিয়ে নিখোঁজ হওয়া জেলে নুরুল আলম (৩৫) এর লাশ উদ্ধার করেছে টেকনাফ মডেল থানার পুলিশ। সে জাদিমুরা এলাকার নুর মোহাম্মদের ছেলে। ২৬ জুলাই বেলা ১১ টার দিকে থানার এসআই মাহির উদ্দিন খাঁন নেতৃত্বে একদল পুলিশ শাহপরীরদ্বীপ জেটিঘাট এলাকা থেকে তার লাশটি উদ্ধার করে।

 

টেকনাফ মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মাইন উদ্দিন খাঁন জানান, উদ্ধার হওয়া জেলের পরিচয় লাশটি তাদের পরিবারের সনাক্ত করেছে এবং পরিবারের নিকট হস্তান্তরের প্রক্রিয়া চলছে।

 

উল্লেখ্য, গত ২৪জুলাই সকালে উপজেলার হ্নীলা দক্ষিণ জাদিমোরাস্থ নাফনদীতে মোস্তাক আহমদের পুত্র নোম্মাল হাকিম (৩০) ও উদ্ধার হওয়া জেলে মৃত হাবিব উল্লাহর মেয়ে জামাই নুর আলম (৩৫) ভাসা জাল নিয়ে ইলিশ মাছ শিকারে যায়। মাছ শিকাররত অবস্থায় প্রবল বৃষ্টি আর ঝড়ো হাওয়ায় কবলে পড়ে জইল্যারদ্বীপ সংলগ্ন নাফনদীতে নৌকাটি ডুবে যায়। ঐসময় জইল্যারদ্বীপে গিয়ে বিহিঙ্গী জালের ভেতর হতে লোকমাল হাকিমকে ডুবে যাওয়া নৌকা থেকে উদ্ধার করে। এরপর থেকে উদ্ধার হওয়া নুরুল আলম নিখোঁজ ছিল।

Scroll To Top