নিরপেক্ষ সরকারের অধীনেই নির্বাচনের ব্যবস্থা করতে হবে

প্রকাশ:| রবিবার, ৮ সেপ্টেম্বর , ২০১৩ সময় ১১:২৩ অপরাহ্ণ

kaleda খালেদা 1পার্লামেন্ট বাতিল করতে হবে দাবি করে বিরোধী দলীয় নেতা ও বিএনপি চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়া বলেছেন, বর্তমান পার্লামেন্ট বাতিল করতে হবে। নিরপেক্ষ নির্বাচন ছাড়া নির্বাচন অনুষ্ঠিত হতে দেয়া হবে না। নির্দলীয়, নিরপেক্ষ সরকারের অধীনেই নির্বাচনের ব্যবস্থা করতে হবে। দেশের নব্বই ভাগ মানুষ তত্ত্বাবধায়ক সরকারের অধীনে নির্বাচন চায়।

রবিবার নরসিংদী পৌর শিশুপার্কে (বালুর মাঠ) ১৮ দল আয়োজিত জনসভায় বিরোধীদলীয় নেতা এই হুঁশিয়ারি উচ্চারণ করেন।

খালেদা জিয়া অভিযোগ করে বলেন, সরকার আদালতের দোহাই দিয়ে তত্ত্বাবধায়ক ব্যবস্থা তুলে দিয়েছেন। অথচ আদালতের রায়ে আরো দুই মেয়াদে তত্ত্বাবধায়কের অধীনে নির্বাচন অনুষ্ঠানের কথা বলা আছে।

তৃণমূলের নেতা, কর্মী, সমর্থকদের উদ্দেশে তিনি বলেন, ‘নির্দলীয় সরকারের দাবি না মানলে হরতাল অবরোধসহ লাগাতার কর্মসূচি দেয়া হবে। তখন আপনারা রাস্তায় বসে পড়বেন। রংপুরে সমাবেশ আছে, সেখানে আপনাদের সমর্থনের কথা আমি বলবো।’

সংবিধান সংশোধনের সমালোচনা করে বেগম খালেদা জিয়া বলেন, ‘প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা আজীবন ক্ষমতায় থাকতেই সংবিধান সংশোধন করেছেন। বর্তমান সরকার সংখ্যাগরিষ্ঠতার জোরে সংবিধান সংশোধন করেছে। সুশীল সমাজ তত্ত্বাবধায়কের পক্ষে মত দিলেও তারা এ বিষয়ে কারো সাথে কথা বলেনি। আলোচনা করেনি।’

প্রায় ২১ বছর পর ঢাকার পার্শ্ববর্তী এ জেলায় খালেদা জিয়ার আগমনকে ঘিরে গোটা এলাকাজুড়ে বিরাজ করছে সাজসাজ রব। দারুণভাবে উজ্জীবিত নরসিংদীর বিএনপি ও অঙ্গ সংগঠনের নেতাকর্মীরা। সকালে বৃষ্টি উপেক্ষা করে জনসভাস্থলে কর্মী-সমর্থকদের ঢল নামে। দুপুরের দিকে বৃষ্টি থেমে গেলে জনসভা এলাকা লোকারণ্য হয়ে পড়ে। বেলা দুইটা থেকে জনসভা শুরু হয়। নরসিংদী জেলা বিএনপির সভাপতি ও বিএনপির শিক্ষা বিষয়ক সম্পাদক খায়রুর কবির খোকনের সমাবেশে সভাপতিত্ব করবেন। সমাবেশে বিএনপির ভারপ্রাপ্ত মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর, স্থায়ী কমিটির সদস্য ড. খন্দকার মোশাররফ হোসেন, ব্রি. জে. (অব.) আসম হান্নান শাহ, মির্জা আব্বাস, গয়েশ্বর চন্দ্র রায়, ড. মঈন খান, ভাইস চেয়ারম্যান আবদুল্লাহ আল নোমান, সাদেক হোসেন খোকা, সেলিমা রহমান, যুগ্ম মহাসচিব আমানউল্লাহ আমান, বরকতউল্লাহ বুলু প্রমুখ বক্তব্য রাখেন ।