রেড ক্রিসেন্টের কর্মীরা নিস্বার্থভাবে কাজ করে, এরা মহামানব- মেয়র

নিউজচিটাগাং২৪/ এক্স প্রকাশ:| সোমবার, ২৩ জুলাই , ২০১৮ সময় ০৯:০৪ অপরাহ্ণ

রেড ক্রস ও রেড ক্রিসেন্ট আন্দোলনে বিশ্বব্যাপী প্রায় ৯৭ মিলিয়ন স্বেচ্ছাসেবী, সদস্য এবং কর্মী যুক্ত। মানুষের জীবন এবং স্বাস্থ্য রক্ষা, সব মানুষের প্রতি শ্রদ্ধা নিশ্চিত করা, এবং মানুষের দুর্ভোগ প্রতিরোধ ও লাঘব করার জন্য এটি প্রতিষ্ঠিত হয়। একদিকে বোমা পড়ছে অন্যদিকে আক্রান্ত মানুষকে সেবা করছেন রেড ক্রস ও রেড ক্রিসেন্ট আন্দোলনের কর্মীরা। নিজের জীবন নয়, অন্যের জীবন বাঁচাতে মরিয়া তারা। তাই তারা ‘অতিমানব, মহামানব।’

সোমবার সকালে চট্টগ্রাম নগরের লর্ডস ইন হোটেলের স্পেকট্রাম হলে ‘প্রাথমিক চিকিৎসা প্রশিক্ষণ’ শীর্ষক দুইদিনের প্রশিক্ষণ কর্মশালার উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে তিনি এ কথা বলেন। চট্টগ্রামে কর্মরত সাংবাদিকদের জন্য এই প্রশিক্ষণ কর্মশালার আয়োজন করে বাংলাদেশ রেড ক্রিসেন্ট সোসাইটি (বিডিআরসিএস) ও ইন্টারন্যাশনাল কমিটি অব দ্য রেড ক্রস (আইসিআরসি)।

প্রধান অতিথির বক্তব্যে মেয়র আ জ ম নাছির বলেন, রেড ক্রিসেন্টে যারা নগর ও জেলা পর্যায়ে কাজ করছেন, ওনাদের আমি অতিমানব, মহামানব মনে করি। এটা সত্যিকার অর্থে। তারা নিস্বার্থভাবে কাজ করে। সময় দেন, মেধা দেন, অর্থ দেন। অবক্ষয়ের এই সময়ে একটা বিরল উদাহরণ ওনারা সৃষ্টি করেছেন। দেখি অনেক ছেলে-মেয়ে রেড ক্রিসেন্ট আন্দোলনের সঙ্গে নিজেদেরকে সম্পৃক্ত করছেন। ওনাদেরকে আমাদের সহায়তা করা উচিত। উৎসাহিত করা উচিত। আর্থিকভাবে প্রণোদনা দেওয়া উচিত। এটা আমাদের নৈতিক দায়িত্ব।

মেয়র বলেন, সারাবিশ্বে সামাজিক অস্থিরতা, রাজনৈতিক সংঘাত, প্রাকৃতিক বিপর্যয়, সড়ক দুর্ঘটনা আছে। আবার যুদ্ধবিগ্রহ আছে, কেউ কেউ স্বার্থের জন্য, কেউ স্বাধীনতার জন্য এসব করে। এসব ঘটনায় যারা পরিস্থিতির শিকার তারা সহযোগিতা পেতো না, বেঁচে থাকার অবলম্বন থাকতো না, যদি রেড ক্রস, রেড ক্রিসেন্ট না থাকতো। মানুষ মানুষের জন্য- এটা আমরা জানলেও অন্তরে ধারণ করিনা। কিন্তু রেড ক্রস, রেড ক্রিসেন্ট- এটা অন্তরে ধারণ করে এবং কাজ করে।

রেড ক্রিসেন্টের জন্য চট্টগ্রামে অফিস করে দেওয়ার প্রতিশ্রুতি দিয়ে মেয়র বলেন, রেড ক্রিসেন্টের চট্টগ্রাম অফিসের একটা কার্যালয় নেই। কিন্তু এটা দেওয়ার সুযোগ আছে আমার। রেড ক্রিসেন্টের কার্যক্রম পরিচালনার জন্য তো একটা পরিবেশ লাগবে। অফিস জরুরী। কোন জায়গায়, কোথায় করবেন আমাকে একটা আইডিয়া দেওয়া হলে আমি স্থায়ী অফিস করে দেব। আমি না থাকতে পারি। কিন্তু অফিসটা যাতে থাকে সে ব্যবস্থা করে দেব। একটা অফিস আমি করে দেবই।

প্রশিক্ষণার্থী সাংবাদিকদের উদ্দেশ্যে মেয়র আ জ ম নাছির বলেন, প্রশিক্ষণের প্রয়োজনীয়তা কতটুকু আপনারা যারা এখানে আছেন, আমার চেয়ে বেশী অবগত আছেন। প্রশিক্ষণের অনেক বেশী গুরুত্ব আছে। এবং প্রশিক্ষণের কোন বিকল্প নেই। প্রশিক্ষণের মাধ্যমে আমরা প্রয়োজনীয় জিনিসগুলো রপ্ত করতে পারি, জানতে পারি। এবং সেটি ধারণ করতে পারি, আত্মস্থ করতে পারি। প্রাথমিক চিকিৎসার প্রশিক্ষণটি প্রত্যেকটি মানুষের জন্য প্রযোজ্য। এটি আমাদের নিজেদেরকে রক্ষা করবে। আমাদের না জানার কারণে অনেক সময় ক্ষয়ক্ষতির পরিমাণটা বেশী হয়ে যায়। উন্নত দেশের নাগরিকরা প্রাথমিক চিকিৎসার জ্ঞান জেনে রাখাকে নাগরিক দায়িত্ব মনে করেন।

অনুষ্ঠানে বাংলাদেশ রেড ক্রিসেন্ট সোসাইটির ম্যানেজিং বোর্ড মেম্বার ডা. শেখ শফিউল আজম, সিটি ইউনিটের ভাইস চেয়ারম্যান এম এ সালাম, সিটি ইউনিটের সেক্রেটারি আব্দুল জব্বার প্রমুখ বক্তব্য রাখেন।

কর্মশালায় প্রশিক্ষক ছিলেন- ইন্টারন্যাশনাল কমিটি অব দ্য রেড ক্রসের কমিউনিকেশন ও প্রিভেনশন কোঅর্ডিনেটর আন্না শাআপ, রেড ক্রিসেন্টের সহকারি পরিচালক সাবিনা ইয়াসমিন ও মৃনাল কান্তি রায়। এতে চট্টগ্রামে কর্মরত বিভিন্ন গণমাধ্যমের ২৫জন সংবাদকর্মী অংশ নিচ্ছেন।


আরোও সংবাদ