শান্তির মর্মবাণী জানান দিতে ফিরে আসে রবিউল আউয়াল মাস

প্রকাশ:| সোমবার, ৫ ডিসেম্বর , ২০১৬ সময় ০৯:০১ অপরাহ্ণ

 

নিখিল বিশ্বের শ্রেষ্ঠ নবী (দ.) এর শুভাগমন উপলক্ষে ঈদে মিলাদুন্নবী (দ.) ও মরহুম মুহাম্মদ আবদুল কুদ্দুছ এর বার্ষিক ফাতেহা শরীফ উপলক্ষে বিশাল মিলাদ মাহফিলে বক্তারা বলেছেন শান্তির ধর্ম ইসলাম, আর মুসলমানরা হল শান্তিকামী। দুনিয়ায় শান্তি প্রতিষ্ঠার জন্য আল্লাহ তায়ালা নবী করিম (দ.) কে দুনিয়ার বুকে প্রেরণ করে আইয়ামের জাহেলিয়াতের ঘোর অন্ধকারকে দুরবিত করে শান্তির সুবাতাস বয়ে এনেছিলেন। তাই মোমিন মুসলমানদের ঐক্য ও শান্তির বন্ধনে আবদ্ধ করতে প্রতিবছর শান্তির মর্মবাণী শিক্ষা দিতেই বারবার ফিরে আসে রবিউল আউয়াল মাস তথা জশনে জুলছে ঈদে মিলাদুন্নবী (দ.)। ৩ ডিসেম্বর, দেশের সুপ্রতিষ্ঠিত হজ্ব প্রতিষ্ঠান আল আমিন হজ্ব কাফেলা আয়োজিত বোয়ালখালী বেঙ্গুরা স্টেশন সংলগ্ন আলহাজ্ব দেলোয়ার হোসেন (সওদাগর) জামে মসজিদ ময়দানে আয়োজিত মাহফিলে বক্তারা উপরোক্ত বক্তব্য রাখেন। আল আমিন হজ্ব কাফেলার চেয়ারম্যান ও বহদ্দারহাট গাউসুল আজম জামে মসজিদের খতিব আলহাজ্ব মাওলানা আব্দুন নবী আলদেরীর সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত মাহফিলে প্রধান অতিথি ছিলেন খিতাপচর শাহ মাহবুদিয়া দরবার শরীফের সাজ্জাদনশীন মুফতি আব্দুর রহিম আলকাদেরী মজিআ। প্রধান আলোচক ছিলেন দিনাজপুর ইসলামী রিসার্চ সেন্টারের পরিচালক আল্লামা ড. সৈয়দ এরশাদ আহমদ আল বোখারী। প্রধান ওয়ায়েজ ছিলেন ফেনী পশুরাম হযরত আব্দুল্লাহ শাহ্ (রহ.) দরবার শরীফের সাজ্জাদনশীন মাওলানা শফিকুল ইসলাম শাহ্ আলকাদেরী, বোয়ালখালী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মোঃ সালাহ উদ্দিন। বাংলাদেশ টেলিভিশন ও বেতার কেন্দ্রের ক্বারী উপস্থাপক আলহাজ্ব মাওলানা মুহাম্মদ আব্দুল খালেক আলকাদেরীর সঞ্চালনায় বিশেষ অতিথিদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন রাজনীতিবিদ আলহাজ্ব নাঈমুল ইসলাম পুতুল, মুহাম্মদ নবী হোসেন, শফিউল আলম শফি, সৈয়দ এনামুল হক, আব্দুল করিম সেলিম, শায়ের হাফেজ ক্বারী মাওলানা তারেক আবেদীন, মাওলানা মুহাম্মদ এমদাদুল ইসলাম আলকাদেরী, আলহাজ্ব মাওলানা মুহাম্মদ মাহবুবুল আলম আলকাদেরী, মাওলানা মুহাম্মদ ফরিদ উদ্দিন আলকাদেরী, মাওলানা মুহাম্মদ আব্দুল কুদ্দুস আলকাদেরী, মাওলানা নজির আহমদ আলকাদেরী, মাওলানা মোস্তাক আহমদ কুতুবী, মাওলানা হাফিজুর রহমান আলকাদেরী, মাওলানা মুহাম্মদ আবুল কাশেম জদীদ, আলহাজ্ব মাওলানা জয়নাল আবেদীন আলকাদেরী, আলহাজ্ব হাফেজ মাওলানা মাহবুবুল আলম আলকাদেরী, আলহাজ্ব মাওলানা মুহাম্মদ ইসমাইল হোসাইন ও মুহাম্মদ হারুন উর রশিদ প্রমুখ। পরে দেশ ও জাতির মঙ্গল কামনা করে মুনাজাত ও তবারুকের মাধ্যমে মাহফিলের সমাপ্তি ঘটে।