জবাবদিহিতামূলক গণতান্ত্রিক ব্যবস্থা থেকে জাতির মুক্তি আসবে

প্রকাশ:| রবিবার, ২ অক্টোবর , ২০১৬ সময় ১১:৫১ অপরাহ্ণ

%e0%a6%9c%e0%a6%be%e0%a6%a4%e0%a7%80%e0%a6%b0-%e0%a6%ae%e0%a7%81%e0%a6%95%e0%a7%8d%e0%a6%a4%e0%a6%bf“চট্টগ্রাম প্রেসক্লাব আয়োজিত”
‘বাংলাদেশের রাষ্ট্রক্ষমতার কেন্দ্রিভবন ও গণতন্ত্রের সংকট-উন্নয়ন সম্ভাবনার প্রেক্ষাপটে’
চট্টগ্রাম প্রতিনিধিঃ
আজ রোববার ২ অক্টোবর বিকেলে চট্টগ্রাম প্রেসক্লাব আয়োজিত ‘অধ্যাপক মোহাম্মদ খালেদ স্মারক বক্তৃতা’ প্রদানকালে তিনি এসব কথা বলেন। তার বক্তৃতার বিষয় ছিল ‘বাংলাদেশের রাষ্ট্রক্ষমতার কেন্দ্রিভবন ও গণতন্ত্রের সংকট: উন্নয়ন সম্ভাবনার প্রেক্ষাপটে’।চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের অর্থনীতি বিভাগের ইউজিসি প্রফেসর ড. মইনুল বলেন, আমি দৃঢ়ভাবে বিশ্বাস করি, সত্যিকারভাবে জনগণের প্রতিনিধিত্বমূলক ও জনগণের কাছে জবাবদিহিমূলক গণতান্ত্রিক ব্যবস্থা কায়েমের পথেই রাজনৈতিক বিভাজন থেকে জাতির মুক্তি আসবে। জাতি এই মূহত্বে বিপজ্জনকভাবে বিভক্ত বলে খ্যাতিমান অর্থনীতিবিদ ড. মইনুল ইসলাম বলেছেন, জাতিকে এ রাজনৈতিক বিভাজনের গর্ত থেকে মুক্ত করতেই হবে।
তাই বিএনপিকে বুঝতে হবে, সত্যকে আড়াল করে কিংবা ইতিহাস বিকৃতির আশ্রয় নিয়ে কখনো সত্যিকার জাতীয় ঐক্য অর্জন করা যায় না।তিনি আরো বলেন, ২০১৪ সালের ৫ জানুয়ারির একতরফা নির্বাচন বর্তমান মহাজোট সরকারকে সাংবিধানিক বৈধতা দিলেও ভালো করে জনগণের আস্তা’ দিতে পারেনি।তাই আস্তার সংকট নিয়ে চলছে বর্তমান সরকার ব্যবস্থা।
তবুও বলবো, মুক্তিযুদ্ধের সময় মানবতাবিরোধী অপরাধের জন্যে দোষী সাব্যস্ত ব্যক্তিদের সম্প্রতি শাস্তিবিধানের ব্যবস্থা করার মাধ্যমে মুক্তিযুদ্ধের চেতনাকে জাগ্রত ও শাণিত করার ধারা জোরদার হয়েছে। যতই বিএনপি-জামায়াত নেতৃত্বাধীন জোট এ বিচারকে বিতর্কিত করার অপপ্রয়াস চালাক না কেন, বিলম্বে হলেও জাতিকে ইতিহাসের দায়মুক্তি এনে দিয়েছে এ বিচার প্রক্রিয়া। এখনকার অগ্রাধিকার দাবি করে দুর্নীতি ও পুঁজি লুণ্ঠনের বিরুদ্ধে একটি সর্বাত্মক অভিযান, যা এদেশের অর্থনীতির দুর্বৃত্তায়ন ও রাজনীতির বৈশ্যকরণকে ক্রমেই কোণঠাসা করার মোক্ষম অস্ত্র হিসেবে ভূমিকা রাখবে।
বক্তৃতা অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন চট্টগ্রাম প্রেসক্লাবের সভাপতি কলিম সরওয়ার। ক্লাবের ইঞ্জিনিয়ার আবদুল খালেক মিলনায়তনে বক্তৃতা অনুষ্ঠানে ড. মইনুল ইসলাম সম্পর্কে বলেন কবি-সাংবাদিক আবুল মোমেন। স্বাগত বক্তব্য দেন ক্লাবের সাধারণ সম্পাদক মহসিন চৌধুরী। যুগ্ম সম্পাদক চৌধুরী ফরিদের সঞ্চালনায় অনুষ্ঠান মঞ্চে ছিলেন ইস্ট ডেল্টা বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য প্রফেসর ড. মুহাম্মদ সিকান্দার খান, সাংবাদিক ইউনিয়নের (সিইউজে) সভাপতি রিয়াজ হায়দার চৌধুরী ও অধ্যাপক মোহাম্মদ খালেদের ছেলে, সাপ্তাহিক স্লোগান সম্পাদক মোহাম্মদ জহির।
পরিশেষে,প্যানেল আলোচক গণ এক বাক্যে স্বীকার করে বলেন,সত্যিকার জাতীয় ঐক্যর জন্য কেন্দ্রিভবন ও গণতন্ত্রের সংকট দুরী করণ না হওয়া পর্যন্ত উন্নয়ন প্রতিটি পথে পথে বাধাঁ গ্রস্থ হতেই থাকবে।


আরোও সংবাদ