কর্মচারীর উপর মালিকের শারীরিক নির্যাতন

প্রকাশ:| শুক্রবার, ২৫ মার্চ , ২০১৬ সময় ১০:৩১ অপরাহ্ণ

শারীরিক নির্যাতননোয়াখালীর কোম্পানীগঞ্জ উপজেলায় বৃহস্পতিবার রাতে দোকানের কর্মচারী আবদুর রহিমের (২৬) ওপর শারীরিক নির্যাতন চালিয়েছে এক জুতা ব্যবসায়ী। আবদুর রহিম উপজেলার রামপুর ইউনিয়নের আবদুল আউয়ালের ছেলে।

জানা যায়, ৮বছর ধরে বসুরহাট বাজারের শতাব্দী বাটা সুজের মালিক হাবিব উল্যাহর জুতা দোকানে চাকরি করছে সে। গত বৃহস্পতিবার আনুমানিক রাত ১১টার দিকে দোকান বন্ধ করার আগ মুহুর্তে ব্যক্তিগত প্রয়োজনে শুক্রবার বাড়িতে যাওয়ার জন্য দোকানের মালিক হাবিব উল্যাহর কাছ থেকে একদিন ছুটি চাইলে মালিক তাকে গালমন্দ করে। এ সময় রহিম তার প্রতিবাদ করলে দোকানের সাটার বন্ধ করে মালিক হাবিব উল্যাহ তাকে লাঠি দিয়ে মারধর করে। এসময় রহিমের শোর চিৎকার শুনে পাশের দোকানদাররা রক্তাক্ত অবস্থায় তাকে উদ্ধার করে কোম্পানীগঞ্জ স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করে। অবস্থার অবনতি দেখে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে নোয়াখালী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে প্রেরণ করে।

এ ঘটনায় স্থানীয়দের মনে আতঙ্কের সৃষ্টি হয়েছে। প্রশ্ন উঠেছে দরিদ্র বৃদ্ধ পিতার একমাত্র কর্মক্ষম সন্তান আবদুর রহিমের অবস্থার উন্নতি কবে হবে এবং শাস্তি কি হবে মধ্যযুগীয় নির্যাতনকারী হাবিব উল্যাহর।

শতাব্দী বাটা সুজের পরিচালনায় থাকা হাবীব উল্যাহর ছেলে নজরুল ইসলাম রাশেদ এ প্রতিবেদককে জানান, রহিম আমাদের এখানে ৮বছর কাজ করে। সে আমাদের ঘর লোকের মত। গত রোববার ৭দিন ছুটি কাটিয়ে বাড়ি থেকে আসে এরপর আবার ছুটি চাইলে আমার বাবার সাথে কথা কাটাকাটি হয়। কথা কাটাকাটির এক পর্যায়ে সাটার বন্ধ করার জন্য রাখা লাঠির সঙ্গে লেগে তার নাক পেটে যায়।