‘কৃমি’কে নিয়ে অবহেলা করার কোন সুযোগ নাই’

প্রকাশ:| বৃহস্পতিবার, ২৪ মার্চ , ২০১৬ সময় ০৮:১৩ অপরাহ্ণ

কৃমিচট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশনের স্বাস্থ্য বিভাগের উদ্যোগে চসিক জেনারেল হাসপাতাল মিলনায়তনে আগামী ২-৭ এপ্রিল চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশন এলাকায় জাতীয় কৃমি নিয়ন্ত্রণ সপ্তাহ ২০১৬খ্রি. উদ্যাপন উপলক্ষে ‘এ্যাডভোকেসি ও পরিকল্পনা সভা’ ২৪ মার্চ বৃহষ্পতিবার প্রধান স্বাস্থ্য কর্মকর্তা ডাঃ সেলিম আকতার চৌধুরী এর সভাপত্বিতে অনুষ্ঠিত হয়। সভায় প্রধান অতিথি সভাপতি ছিলেন চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশনের শিক্ষা, স্বাস্থ্য পরিবার পরিকল্পনা এবং স্বাস্থ্যরক্ষা ব্যবস্থা ষ্ট্যান্ডিং কমিটির চেয়ারম্যান ও ২৪ নং উত্তর আগ্রাবাদ ওয়ার্ড এর কাউন্সিলর নাজমুল হক (ডিউক), বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন সহকারী বিভাগীয় পরিচালক (স্বাস্থ্য) ডাঃ মোঃ আবদুর রহিম, স্বাস্থ্য কর্মকর্তা ডাঃ মোহাম্মদ আলী। অন্যান্যদের মধ্যে সভায় বক্তব্য রাখেন এম ও ইনচার্জ ডাঃ আশীষ কুমার মুখার্জী, ডাঃ নাছিম ভুঁইয়া, ডাঃ আর পি আসিফ খান, ডাঃ তৌহিদুল আনোয়ার, জোনাল মেডিকেল অফিসার ডাঃ মোঃ ইমাম হোসেন রানা, ডাঃ মোঃ রফিকুল ইসলাম, ডাঃ তপন কুমার চক্রবর্তী, ডাঃ মোঃ হাসান মুরাদ চৌধুরী, ডাঃ সুমন তালুকদার ও ডাঃ মুজিবুল আলম চৌধুরী, কৃষ্ণ কুমারী চসিক বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ের সিনিয়র শিক্ষক জাহানুর খান, আইডিএফ প্রতিনিধি ডাঃ মুক্তা খানম, ইউনিসেফ প্রতিনিধি জাহিদুল মনির, ইমেজ ক্লিনিক ম্যানেজার মোঃ মোহসিনুল ইসলাম। এছাড়াও বিভিন্ন সরকারী/বেসরকারী সংস্থার প্রতিনিধিগণ উপস্থিত ছিলেন। সভা পরিচালনা করেন ভ্যাকসিনেশান ইনচার্জ মুহাম্মদ আবু ছালেহ।

সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে কাউন্সিলর নাজমুল হক (ডিউক) কৃমি’কে শিশুদের শরীরের শত্রু আখ্যা দিয়ে বলেন, কৃমি শিশুদের জন্য একটি মারাত্বক ব্যাধি, যা খাবারের পুষ্টিগুন খেয়ে ফেলে, ফলে পুষ্টিহীনতা দেখা দেয়। কৃমি আক্রান্ত শিশুরা মেধাশূন্য হয়ে পড়ে ফলে বদহজম ও ডায়রিয়ায় আক্রান্ত হতে পারে। তাই এই কর্মসূচী অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ। বিশেষ অতিথির বক্তব্যে সহকারী পরিচালক (স্বাস্থ্য) ডাঃ মোঃ আবদুর রহিম বলেন, কৃমি অনেক প্রকার আছে, তাই কৃমি’কে নিয়ে অবহেলা করার কোন সুযোগ নাই। তিনি এই ব্যাপারে চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশনকে এগিয়ে আসার আহবান জানান। সভাপতির বক্তব্যে প্রধান স্বাস্থ্য কর্মকর্তা ডাঃ সেলিম আকতার চৌধুরী বলেন, চসিক এলাকায় একটি জিকা ভাইরাস আক্রান্ত রোগী পাওয়া গেছে এবং সম্প্রতি ডেঙ্গুজ্বরের প্রাদূর্ভাব বেড়ে গেছে। তিনি এই ব্যাপারে সিটি মেয়র আলহাজ্ব আ.জ.ম. নাছির উদ্দীন এর সাথে আলোচনা করে পত্রিকায় বিজ্ঞপ্তি, লিফলেট ও জনসচেতনতা বৃদ্ধি করবেন বলে সভায় জানানো হয়। তিনি আরো বলেন, আসন্ন জাতীয় কৃমি নিয়ন্ত্রণ সপ্তাহ সফলভাবে বাস্তবায়নের নিমিত্ত্বে স্বাস্থ্য বিভাগের পক্ষ হতে সর্বাত্ত্বক প্রস্তুতি গ্রহণ করা হয়েছে। ইতিমধ্যে কেন্দ্রীয়ভাবে ও জোন পর্যায়ে এ্যাডভোকেসী সভা আয়োজন সহ অন্যান্য কার্যক্রম সম্পাদন করা হয়েছে। সভায় সংশ্লিষ্ট জোনাল মেডিকেল অফিসারগণ স্ব স্ব জোন ভিত্তিক তাদের কার্যক্রম সঠিকভাবে সম্পাদন করবেন মর্মে অঙ্গীকার ব্যক্ত করেন।
উল্লেখ্য যে, আগামী ২-৭ এপ্রিল ২০১৬ইং জাতীয় কৃমি নিয়ন্ত্রণ সপ্তাহ চলাকালীন সময়ে ১২৯৫ টি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের মাধ্যমে ৫-১২ বছরের বয়সী প্রায় ৪ লক্ষ ছাত্র ছাত্রীদেরকে কৃমিনাশক ট্যাবলেট ঞধন. ঠবৎসড়ী (গবনবহফধুড়ষব-৫০০সম)” খাওয়ানো হবে যাহা শিশুদের ভরা পেটে খাওয়ানোই উত্তম।