৫-১৪ আগস্ট সিএনজি স্টেশন ২৪ ঘণ্টা খোলা

প্রকাশ:| সোমবার, ২৯ জুলাই , ২০১৩ সময় ১১:৪৪ অপরাহ্ণ

ঈদকে সামনে রেখে মহাসড়ক ও নদীপথে যাতায়াত নির্বিঘ্ন করতে সরকার ব্যাপক প্রস্তুতি নিচ্ছে। রাজধানীর সবগুলো প্রবেশমুখok-m-s_13668 যানজটমুক্ত রাখা, ঈদের আগে ও পরে মিলিয়ে ৭ দিন মহাসড়কে সব ধরনের ট্রাক, লরি এবং নসিমন-করিমন চলাচল বন্ধ রাখার সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছে। একইসঙ্গে যানবাহনে অতিরিক্ত ভাড়া ও যাত্রী পরিবহন না করতে মালিকদের নির্দেশ দেয়া হয়েছে। আর আগামী ৫ থেকে ১৪ আগস্ট পর্যন্ত ২৪ ঘণ্টা সিএনজি স্টেশন খোলা রাখা হবে।

আজ সোমবার রাজধানীর ইঞ্জিনিয়ার্স ইনস্টিটিউট সভাকক্ষে এ সংক্রান্ত আন্তঃমন্ত্রণালয় কমিটির বৈঠকে এসব সিদ্ধান্ত নেয়া হয়।

পবিত্র ঈদুল ফিতরকে সামনে রেখে ঢাকার সঙ্গে সরাসরি নদীপথ, রেলপথ, সড়কপথে যুক্ত জেলাগুলোতে নিরাপদে যাতায়াত নিশ্চিত করতে সংশ্লিষ্টদের নিয়ে বৈঠকে বসে এ সংক্রান্ত আন্তঃমন্ত্রণালয় কমিটি। এতে ঢাকার প্রবেশ মুখগুলো যানজটমুক্ত রাখা, ভাঙাচোরা রাস্তা কার্পেটিং, যানবাহনে চাঁদাবাজি বন্ধে ব্যবস্থা গ্রহণের সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছে। আর ঈদের ৪ দিন ও পরে ৩ দিন জরুরি পণ্যবাহী ট্রাকের বাইরে কোনো ট্রাক রাজধানীতে প্রবেশে বিধিনিষেধ আরোপ করা হয়েছে।

ঘরমুখো মানুষের যাত্রা নির্বিঘ্ন করতে ব্যবস্থা নিতে সংশ্লিষ্টদের নির্দেশনা দেয়া হয়েছে—এ কথা জানান যোগাযোগমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের।

রেলমন্ত্রী মুজিবুল হক বলেন, এবার রেলপথে টিকিট কালোবাজারি বন্ধে শতভাগ ব্যবস্থা নেয়া হয়েছে। পাশাপাশি কোচের সংখ্যা বাড়িয়ে ঈদের আগেই বিশেষ সার্ভিস চালু করা হচ্ছে।

ঈদকে কেন্দ্র করে সড়ক-মহাসড়কে চাঁদাবাজি বন্ধে ব্যবস্থা নেয়ার কথা জানিয়েছেন স্বরাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী শামসুল হক টুকু।

এছাড়া যানবাহনগুলোতে অতিরিক্ত যাত্রী বোঝাই না করা, অতিরিক্ত ভাড়া না নেয়া এবং টিকিট কালোবাজারি যাতে না হয় সে বিষয়ে তদারক করতে প্রত্যেকটি টার্মিনালে ভিজিলেন্স টিম কাজ করবে। আর ট্রেনের পাশাপাশি বাস ও লঞ্চেও বিশেষ সার্ভিস থাকবে বলে বৈঠকে সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছে।


আরোও সংবাদ