৫ জানুয়ারির নির্বাচনের মাধ্যমে আওয়ামী লীগের রাজনৈতিক অপমৃত্যু

প্রকাশ:| মঙ্গলবার, ২৪ ডিসেম্বর , ২০১৩ সময় ০৭:৫৯ অপরাহ্ণ

৫ জানুয়ারির নির্বাচনের মাধ্যমে আওয়ামী লীগের রাজনৈতিক অপমৃত্যু ঘটবে বলে মন্তব্য করেছেন বিএনপির ভাইস চেয়ারম্যান আব্দুল্লাহ আল নোমান।

তিনি বলেন, ‘১৯৭৫ সালে বাকশাল বিলুপ্তির পর পুনরায় রাজনৈতিক দল হিসেবে প্রতিষ্ঠা লাভ করতে আওয়ামী লীগের অনেক বছর সময় লেগেছিল। ৫ জানুয়ারির নির্বাচনের পর আওয়ামী লীগের অবস্থা ৭৫’এর বাকশাল পরবর্তী সময়ের মতো হবে।’

১৮ দলীয় জোটের অবরোধ চলাকালে মঙ্গলবার সকালে দলীয় কার্যালয়ে মিছিল শেষে চট্টগ্রাম মহানগর বিএনপি আয়োজিত এক সমাবেশে তিনি একথা বলেন।

বিএনপির ভাইস চেয়ারম্যান বলেন, ‘রাষ্ট্রীয় সন্ত্রাসের কবলে পড়েছে এরশাদ। সরকারের শর্তপূরণ ছাড়া মুক্তি অনিশ্চিত। সরকারের শর্ত হচ্ছে পাতানো নির্বাচনে অংশগ্রহণ করে সরকারকে সহযোগিতা করা। নির্বাচনে অংশগ্রহণের সব সুযোগ এরশাদের জন্য উমুক্ত রাখা হয়েছে।’

আবদুল্লাহ আল নোমান বলেন, ‘সংসদীয় গণতন্ত্রের আদলে প্রহসনের নির্বাচন করতে চাইলে একটি গৃহপালিত বিরোধী দল প্রয়োজন হয় সেটাও সরকার করতে পারে নাই। সরকারের শেষ ভরসা ছিল হুসেইন মুহাম্মদ এরশাদ। কি কারণে জাতীয় পার্টি খণ্ড-বিখণ্ড হয়ে গেল সরকারের হাসপাতাল নামক সাবজেল থেকে এরশাদ মুক্তি পেলে তার মুখ থেকেই তা জাতি জানতে পারবে।’

তিনি বলেন, ‘আওয়ামী লীগ পালানোর পথ খুঁজছে। কিন্তু জনগণ তাদের পালানোর সুযোগ দেবে না। একদলীয় নির্বাচনের আগেই চলমান গণ-অভ্যূত্থানে আওয়ামী লীগের পতন ঘটবে এবং দেশে রাজনৈতিক পট পরিবর্তন হবে।’

মহানগর বিএনপির সিনিয়র সহ-সভাপতি আবু সুফিয়ানের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত সমাবেশে বিশেষ অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন বিএনপির কেন্দ্রীয় তথ্য ও গবেষণা সম্পাদক সৈয়দ ওয়াহিদুল আলম, মহানগর বিএনপির সাবেক সাধারণ সম্পাদক জাহাঙ্গীর আলম চৌধুরী, সাবেক যুগ্ন-সম্পাদক অ্যাডভোকেট আব্দুস সাত্তার, মহানগর বিএনপির সাবেক যুগ্ন-আহবায়ক কাজী আকবর, মহানগর বিএনপি নেতা ওহাব কাসেমী, আহমেদুল আলম রাসেল, আব্দুল মান্নান প্রমুখ।

এছাড়া সকাল ৮টায় নগরীর কাজীর দেউরী মোড় থেকে আবদুল্লাহ আল নোমানের নেতৃত্বে অবরোধের সমর্থনে চট্টগ্রাম মহানগর বিএনপির এক বিশাল মিছিল শুরু হয়। মিছিলটি নূর আহমেদ সড়ক, লাভলেইন, জুবলি রোড ও এনায়েত বাজার মোড় প্রদক্ষিণ করে নূর আহমেদ সড়কে এসে সমাবেশে মিলিত হয়।