৫৫হাজার টাকা জরিমান: চিকিৎসকসহ আটক ৪

প্রকাশ:| বৃহস্পতিবার, ৫ মার্চ , ২০১৫ সময় ১০:০৪ অপরাহ্ণ

পেকুয়া বাজারে ভ্রাম্যমান আদালতের অভিযান

গিয়াস উদ্দিন, পেকুয়া :

কক্সবাজারের পেকুয়া উপজেলার বৃহত্তম বানিজ্যিক কেন্দ্র আলহাজ্ব কবির আহমদ চৌধুরী বাজারের বিভিন্ন মোবাইল সার্ভিসিংয়ের দোকান, ফার্মেসীর দোকান, হোটেল ও এক দন্ত চিকিৎসকের দোকানে অভিযান চালিয়েছে নিবাহী ম্যাজিষ্ট্রেট মারুফুর রশিদ খানের নেতৃত্বে পেকুয়া থানা পুলিশ। এসময় তাদের কাছ থেকে ৫৫ হাজার টাকার জরিমান আদায় করা হয়েছে। গতকাল বৃহস্পতিবার দুপুর পেকুয়া বাজারে এ অভিযান পরিচালনা করেন পেকুয়ার ইউএনও ও নির্বাহী ম্যাজিষ্ট্রেট মারুফুর রশিদ খানঁ। এসময় পেকুয়া থানার পুলিশের এস আই বিমল দেবের নেতৃত্বে একদল পুলিশ ভ্রাম্যমান আদালতকে সহায়তা করেন। সংশ্লিষ্ট সূত্রে জানা গেছে, গতকাল দুপুরে পেকুয়ার নির্বাহী ম্যাজিষ্ট্রেট পেকুয়া বাজারের মোবাইল সার্ভিসের দোকান তাহসিন বাপ্পীকে অশ্লীল ভিডিও ও ছবি রাখার অভিযোগে আটক করেন। এরপর বাজারের একটি মোবাইল সার্ভিসের দোকান থেকে একটি ল্যাপটপসহ ৩২ জিবি পেনড্রাইভ ভর্তি অশ্লীল ছবিসহ আলা উদ্দিন আটক করেন। নিবাহী ম্যাজিষ্ট্রেট পেকুয়া বাজারেরর জামান হোটেলের পয়:নিষ্কাষন ব্যবস্থা না থাকায় হোটেল মালিক রাজাখালী এলাকার বাদশা মেম্বারকে আটক করা হয়। এর পর পেকুয়া বাজারের গাউছিয়া মাকের্টের ২য় তলা থেকে জনৈক দন্ত চিকিৎসক মূসাকে ভূল চিকিৎসার জন্য আটক করা হয়। এছাড়াও পেকুয়া বাজারের মোস্তাকের ফার্মেসীতে ভেজাল ও মেয়াদোত্তীর্ণ ঔষধ রাখার অভিযোগে ফার্মেসী মালিক মোস্তাককে ৫হাজার টাকা, একই অভিযোগে বাবুলের ফার্মেসীকে ২হাজার টাকা, ফোরকার মেডিকো ফার্মেসীকে ৫হাজার টাকা ও শাহাদাতের ফার্মেসীকে ৫হাজার টাকা জরিমানা করা হয়। এদিকে অভিযানের সময় আটক তিন জনকে পেকুয়া থানা পুলিশের এসআই বিমল দেব গতকাল বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় নিবার্হী ম্যাজিষ্ট্রেটের আদালতে হাজির করলে ম্যাজিষ্ট্রেট পেকুয়া বাজারের জামান হোটেলের মালিককে বিশুদ্ধ খাবার আইনে ২৫হাজার টাকা, রোগীদের সাথে প্রতারণা ও অপচিকিৎসার অভিযোগে কথিত ধন্ত চিকিৎসক মূসাকে ৩হাজার টাকা জরিমান করেন এবং সরকারের সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষ থেকে ধন্ত চিকিৎসার অনুমতি গ্রহণ ব্যতীত তার চেম্বারে রোগী দেখার জন্য নিষেধ করেন ভ্রাম্যমান আদালতের ম্যাজিষ্ট্রেট। তাহসিন বাপ্পীর মোবাইল সার্ভিসের দোকানে অশ্লীল ভিডিও রাখার অপরাধে বাপ্পীকে ৫হাজার টাকা ও আলা উদ্দিনের পেন ড্রাইভ ও কম্পিউটারে অশ্লীল বিডিও রাখার দায়ে তাকে ৫ হাজার জরিমানা আদায় করে তাদের ছেড়ে দেওয়া হয়। স্থানীয়রা অভিযোগ করেছেন, দীর্ঘদিন ধরে পেকুয়া ভোলাইয়া ঘোনা গ্রামের মৃত মনজুরের পুত্র ও পেকুয়া কলেজের ছাত্র তাহসিন বাপ্পী ও আলা উদ্দিন নামের দুই যুবক মোবাইল সার্ভিসিংয়ের আড়ালে অশ্লীল ভিডিও ও ছবি মেমোরী কার্ডের মাধ্যমে এলাকার উঠতি যুব ও ছাত্র সমাজের মধ্যে ছড়িয়ে দেওয়ার কাজ চালাচ্ছিল। অপরদিকে পেকুয়া বাজারের গাউছিয়া মার্কেটের ২য় তলায় শীলখালী ইউনিয়নের জনৈক মূসা একটি চেম্বার খুলে দন্ত চিকিৎসার নামে নানা অসামাজিক কার্যাকলাপে জড়িয়ে পড়ে। ভ্রাম্যমান আদালতের অভিযানে তাদের আটক করে জরিমানা আদায় করা পেকুয়ার নির্বাহী ম্যাজিষ্ট্রেটকে আন্তরিক সাধুবাদ জানিয়েছেন পেকুয়া বাজারের ব্যবসায়ী ও সাংবাদিক মহল।


আরোও সংবাদ