৫বছর বয়সী আনিকাকে অপহরণ,পাঁচ অপহরণকারী গ্রেপ্তার

প্রকাশ:| বৃহস্পতিবার, ৮ আগস্ট , ২০১৩ সময় ০২:৩৭ অপরাহ্ণ

নগরীর বাকলিয়া থানার চাক্তাই এলাকা থেকে টাকার লোভে পাঁচ বছর বয়সী ফুপাত বোন আনিকাকে অপহরণ করে নিয়ে পাঁচ অপহরণকারীকে গ্রেপ্তারগিয়েছিল আলী আজম (২৩) নামে একজন। আনিকার বাবা-মা ভেবেছিলেন, মেয়ে পুকুরে কিংবা খালের পানিতে পড়ে মারা গেছে।

কিন্তু বুধবার সকালে তিন লক্ষ টাকা মুক্তিপণ দাবি করে আনিকার বাবা আব্দুর রহমানের ‍কাছে ফোন আসার পর অভিযানে নামে পুলিশ।

নগরীর বাকলিয়া, পটিয়া ও চন্দনাইশ থানার বিভিন্ন এলাকায় বুধবার রাতভর অভিযান চালিয়ে পুলিশ আলী আজমসহ পাঁচ অপহরণকারীকে গ্রেপ্তার করতে সক্ষম হয়। এছাড়া পটিয়ায় অপহরণকারীদের আস্তানা থেকে আনিকাকেও উদ্ধার করা হয়েছে।

নগর পুলিশের অতিরিক্ত উপ-কমিশনার (দক্ষিণ) মোস্তাক আহমেদ বাংলানিউজকে বলেন, ‘মুক্তিপণ দাবির পর আনিকার বাবা নিশ্চিত হন তার মেয়ে বেঁচে আছে। এরপর তিনি একটি মামলা দায়ের করেন। এ মামলার সূত্র ধরে পাঁচজনকে গ্রেপ্তারের পর আনিকাকে উদ্ধার করা হয়।’

গ্রেপ্তার হওয়া পাঁচজন হল, আনিকার মামাত ভাই আলী আজম (২৩), আরিফুল ইসলাম (২৬), আক্তার জালাল বাবু (২৩), মো.সবুজ মিয়া (২১) এবং সাইফুল (২৯)।

বাকলিয়া থানার ওসি মো.মহসিন বাংলানিউজকে বলেন, ‘গ্রেপ্তার পাঁচজনের মধ্যে আলী আজমসহ চারজন বিভিন্ন গার্মেণ্টসে চাকুরি করেন। একজন সিএনজি অটোরিক্সা চালক। বাড়তি আয়ের আশায় তারা এ ঘটনা ঘটিয়েছে।’

পুলিশ সূত্র জানায়, বাকলিয়া থানার চাক্তাই এলাকায় ফায়ার সার্ভিসের সামনে আনিকার বাসা। গত ১ আগস্ট সন্ধ্যায় আনিকা নিখোঁজ হন।

এ ঘটনায় তার বাবা বাকলিয়া থানায় একটি জিডি করেন। বুধবার সকালে টেলিফোনে তিন লক্ষ টাকা মুক্তিপণ দাবির পর আনিকার বাবা অপহরণের অভিযোগে মামলা দায়ের করেন।

এ ঘটনায় গ্রেপ্তার হওয়া পাঁচজনকে জিজ্ঞাসাবাদ অব্যাহত রয়েছে বলে জানিয়েছেন বাকলিয়া থানার ওসি মো.মহসিন।


আরোও সংবাদ