২ নভেম্বর জেএসসি এবং জেডিসি পরীক্ষা-২০১৪ শুরু হবে

প্রকাশ:| বুধবার, ২৯ অক্টোবর , ২০১৪ সময় ১১:৩৮ অপরাহ্ণ

আগামী ২ নভেম্বর (রোববার) সারাদেশে জুনিয়র স্কুল সার্টিফিকেট (জেএসসি) এবং জুনিয়র দাখিল সার্টিফিকেট (জেডিসি) পরীক্ষা-২০১৪ শুরু হবে। এবার ২০ লাখ ৯০ হাজার ৬৯২ জন পরীক্ষার্থী এতে অংশ নিচ্ছে।

শিক্ষামন্ত্রী নূরুল ইসলাম নাহিদ আজ বুধবার শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের সম্মেলন কক্ষে এক প্রেস ব্রিফিংয়ে জানান, দেশের ২৭ হাজার ৯২৫টি শিক্ষা প্রতিষ্ঠান থেকে শিক্ষার্থীরা এই পরীক্ষায় অংশ নিচ্ছে।

প্রেস ব্রিফিংয়ে অন্যান্যের মধ্যে শিক্ষা সচিব মো. নজরুল ইসলাম খান, মন্ত্রণালয়ের সিনিয়র কর্মকর্তা এবং বিভিন্ন বোর্ডের চেয়ারম্যানরা উপস্থিত ছিলেন।

জেএসসি পরীক্ষার্থীর সংখ্যা ১৭ লাখ ৬৪ হাজার ৫৯৫ জন। এর মধ্যে ৮ লাখ ৩০ হাজার ২৫৬ জন ছেলে এবং ৯ লাখ ৩৪ হাজার ৩৩৯ জন মেয়ে। জেডিসি পরীক্ষার্থীর সংখ্যা ৩ লাখ ২৬ হাজা ৯৭ জন। এর মধ্যে ১ লাখ ৫৪ হাজার ৯২৭ জন ছেলে এবং ১ লাখ ৭১ হাজার ১৭০ জন মেয়ে।

মন্ত্রী বলেন, গতবছরের চেয়ে এবার পরীক্ষার্থীর সংখ্যা বেড়েছে ১ লাখ ৮৭ হাজার ৯৪৬ জন। ২০১৩ সালে মোট পরীক্ষার্থী ছিলো ১৯ লাখ ২ হাজার ৭৪৬ জন। তিনি বলেন, বিদেশের ৮টি কেন্দ্রে এবার ৫৩৩ জন পরীক্ষা দেবে।

গত কয়েক বছরে মাধ্যমিক পর্যায়ে ঝরে পড়ার হার ব্যাপকভাবে হ্রাস পেয়েছে। ২০১০ সাল থেকে জেএসসি ও জেডিসি প্রবর্তনের পর থেকে ঝরে পড়ার হারের ব্যাপারে খুবই ইতিবাচক ফল পাওয়া যাচ্ছে। দেখা গেছে, গত ৫ বছরে পাঁচ লাখ পরীক্ষার্থী বেড়েছে।

২০১০ সালে জেএসসি ও জেডিসি পরীক্ষায় ১৪ লাখ ৯২ হাজার ৮০২ জন, ২০১১ সালে ১৮ লাখ ৬১ হাজার ১১৩ জন, ২০১২ সালে ১৯ লাখ ৮ হাজার ৩৬৫ জন, ২০১৩ সালে ১৯ লাখ ২ হাজার ৭৪৬ জন এবং ২০১৪ সালে ২০ লাখ ৯০ হাজার ৬৯২ জন পরীক্ষার্থী অংশ নেয়।

নাহিদ বলেন, বাংলা দ্বিতীয় পত্র, ইংরেজি প্রথম পত্র এবং ইংরেজি দ্বিতীয় পত্র ছাড়া জেএসসি ও জেডিসি পর্যায়ে সব বিষয়ের পরীক্ষা এ বছর সৃজনশীল প্রশ্নে হবে।

তিনি বলেন, ‘শিক্ষার মানোয়ন্নয়নের জন্য আমরা জেএসসি ও জেডিসি পরীক্ষা পদ্ধতির প্রবর্তন করেছি। জেএসসি ও জেডিসি পরীক্ষার সার্টিফিকেট পাওয়ার পর ছাত্র-ছাত্রীরা তাদের শিক্ষা অব্যাহত রাখার জন্য উৎসাহিত হবে। –


আরোও সংবাদ