হাটহাজারীর ২৭টি রেজিষ্টার প্রাথমিক বিদ্যালয় সরকারী হলো

প্রকাশ:| বুধবার, ৩ জুলাই , ২০১৩ সময় ০৬:৪১ অপরাহ্ণ

হাটহাজারীর ১১টি ইউনিয়ন ও ১টি পৌরসভার আওতায় ২৭টি রেজিষ্টার প্রাথমিক বিদ্যালয় সরকারী করন করা হয়েছে। সরকারপ্রাথমিক বিদ্যালয়-27 সম্প্রতি এক প্রজ্ঞাপনে এ আদেশ জারি করেছে। এতে করে বিদ্যালয় সমূহে কর্মরত শিক্ষক ও এলাকাবাসীর দীর্ঘদিনের একটি দাবি পূরন হয়েছে।
হাটহাজারী উপজেলা শিক্ষা অফিসার মহাম্মদ আবদুল হামিদ থেকে প্রাপ্ত তথ্যে জানাযায় এ উপজেলার ১১টি ইউনিয়ন ও ১টি পৌরসভার ২৭টি রেজিষ্টার প্রাথমিক বিদ্যালয় দীর্ঘ দিন এলাকার শিক্ষার্থীদের মধ্যে শিক্ষার আলো বিতরন করে আসছিল । ্এসব বিদ্যালয়ে কর্মরত শিক্ষকেরা দীর্ঘদিন তাদের চাকুরী সরকারী করনের দাবী জনিয়ে আসছিল । মুক্তিযোদ্ধের পরবর্তী সময়ের সরকার প্রাথমিক শিক্ষার গুরুত্ব অনুধাবন করে প্রাথমিক শিক্ষাকে সরকারী করন করেছিল। এরপর জনসংখ্যা বৃদ্ধির ফলে শিক্ষা প্রতিষ্টানের প্রয়োজনীয়তা বৃদ্ধি পাওয়ায় উপজেলার বিভিন্ন স্থানে প্রয়োজনের তাগিদে আরো বেশ কিছু প্রাথমিক বিদ্যালয় প্রতিষ্ঠা করেন স্থানীয় বিদ্যানুরাগীরা। বিদ্যালয় প্রতিষ্টার পর উদ্যোগতা ও প্রতিষ্ঠাতারা।অনেক চেষ্টাকরে ও বিদ্যালয় গুলো সরকারীকরন করতে পারেনি। বর্তমান সরকার পুনরায় প্রাথমিক শিক্ষার গুরুত্ব অনুধাবন এবং বিদ্যালয়ের সংখ্যা বৃদ্ধির প্রয়োজনীয়তা উপলব্ধি করে বিদ্যালয় গুলো সরকারীকরনের উদ্যোগ গ্রহন করেন।
সরকারের এ প্রেক্ষিতে হাটহাজারী্ উপজেলার ১নং ফরহাদাবাদ ইউনিয়নের তিনটি প্রাথমিক বিদ্যালয় সরকারী করনের আওতায় আনেন। বিদ্যালয় গুলো হচ্ছে ছোট কাঞ্চনপুর রেজিষ্টার্ড বেসরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়,হাদী নগর বাস্তুহারা রেজিষ্টার্ড বেসরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয় ও নাজিরহাট রেজিষ্টার্ড বেসরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়। ২নং ধলই ইউনিয়নে তিনটি বিদ্যালয়কে সরকারী করনের আওতায় আনা হয়। বিদ্যালয় গুলো হল পূর্ব এনায়েতপুর নুরুল্লা চৌধুরী রেজিষ্টার্ড বেসরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়,পশ্চিম ধলই সাইর মোহাম্মদ চৌধুরী রেজিষ্টার্ড বেসরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়,ধলই শফিনগর রেজিষ্টার্ড বেসরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়,৩নং মির্জাপুর ইউনিয়নের তিনটি বিদ্যালয়কে সরকারী করনের আওতায় আনা হয়। বিদ্যালয় গুলো হল মির্জাপুর ওবাইদুল্লাহ নগর রেজিষ্টার্ড প্রাথমিক বিদ্যালয়,মির্জাপুর মনসুরাবাদ কলোনী রেজিষ্টার্ড বেসরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়,মধ্য পাহাড়তলী রেজিষ্টার্ড বেসরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়। ৪নং গুমানমর্দ্দন ইউনিয়নে দুইটি বিদ্যালয়কে সরকারীকরনের আওতায় আনা হয়। বিদ্যালয় গুলো হল দক্ষিন গুমানমর্দ্দন মাষ্টারপাড়া রেজিষ্টার্ড বেসরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়,উত্তর গুমানমর্দ্দন কদলবাড়ী রেজিষ্টার্ড বেসরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়। ৬নং ছিপাতলী ইউনিয়নের পূর্ব ছিপাতলী রেজিষ্টার্ড বেসরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়কে সরকারীকরনের আওতায় আনা হয়। ৮নং মেখল ইউনিয়নে দুইটি বিদ্যালয়কে সরকারীকরনের আওতায় আনা হয়। বিদ্যালয় গুলো হল জাফরাবাদ রেজিষ্টার্ড বেসরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়,রহুল্লাপুর সর্ত্তারঘাট আশরাফী শামসুল আলম রেজিষ্টার্ড বেসরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়। ৯নং গড়দুয়ারা ইউনিয়নে তিনটি বিদ্যালয়কে সরকারীকরনের আওতায় আনা হয়। বিদ্যালয় গুলো হল পশ্চিম গড়দুয়ারা ও পূর্ব মেখল রেজিষ্টার্ড বেসরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়,পূর্ব গড়দুয়ারা রেজিষ্টার্ড বেসরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়,পূর্ব গড়দুয়াড়া সিকদারপাড়া রেজিষ্টার্ড বেসরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়। ১০ নং উত্তর মার্দাশা ইউনিয়নে রহমতগোনা রেজিষ্টার্ড বেসরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়কে সরকারীকরনের আওতায় আনা হয়। ১১নং ফপেুর ইউনিয়নে দুইটি বিদ্যালয়কে সরকারীকরনের আনা হয়। বিদ্যালয় গুলো হল জোবরা গুনালংকার বৌদ্ধ অনাথ আশ্রম রেজিষ্টার্ড বেসরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয় ও জোবরা খামার রেজিষ্টার্ড বেসরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়। ১৪ নং শিকারপুর ইউনিয়নের বাথুয়া আহমদিয়া রেজিষ্টার্ড বেসরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়কে সরকারীকরনের আওতায় আনা হয়। দক্ষিন পাহাড়তলী পশ্চিম খাগরিয়া ছড়া রেজিষ্টার্ড বেসরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়কে সরকারীকরনের আওতায় আনা হয়। তাছড়া হাটহাজারী পৌরসভা এলাকায় চারটি বিদ্যালয়কে সরকারীকরনের আওতায় আনা হয়। বিদ্যালয় গুলো হল আজিমপাড়া গাউছিয়া রেজিষ্টার্ড বেসরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়,আলমপুর আর্দশ রেজিষ্টার্ড বেসরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়,পূর্ব দেওয়াননগর শায়েস্থা খাঁ পাড়া রেজিষ্টার্ড বেসরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয় ও সূজানগর হাজী জেবল হোসেন রেজিষ্টার্ড বেসরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়। এসব বিদ্যালয়ের দেড়শতাধিক শিক্ষকের চাকুরি সরকারীকরন হয়েছে। তাছাড়া ১৫ সহ¯্রাধিক শিক্ষার্থীর সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ে শিক্ষার সুযোগ সৃষ্টি হয়েছে।