২০১০ সালের কসমেটিকসে লুসি বিউটি পার্লারে মেকআপ

প্রকাশ:| বৃহস্পতিবার, ১২ অক্টোবর , ২০১৭ সময় ১২:৩৪ পূর্বাহ্ণ

কিছু কসমেটিকস পণ্যের মেয়াদ শেষ হয়ে গেছে সেই ২০১০ সালেই। কিছুর মেয়াদ শেষ হয়েছে অবশ্য আরও পরে-২০১২, ২০১৪ ও ২০১৫ সালের দিকে। দুই থেকে সাত বছর আগে মেয়াদ শেষ হলেও মেয়াদোত্তীর্ণ এসব কসমেটিকস দিয়েই গ্রাহকদের রূপসজ্জার কাজ চালাচ্ছিল ‘লুসি বিউটি পার্লার’ নামের একটি প্রতিষ্ঠান।

তবে তাদের সেই প্রতারণা ধরা পড়েছে। বুধবার (১১ অক্টোবর) নগরীর মেহেদিবাগ এলাকায় লুসি বিউটি পার্লারে অভিযান চালায় জেলা প্রশাসনের ভ্রাম্যমাণ আদালত। অভিযানে উঠে এসেছে বিউটি পার্লারটির এই প্রতারণার চিত্র।

অভিযানে নেতৃত্ব দেন জেলা প্রশাসনের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট তানিয়া মুন। তিনি এই পার্লারকে এক লাখ টাকা জরিমানা করেন।

নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট তানিয়া মুন জানান, কিছু কসমেটিকস আইটেমের মেয়াদ শেষ হয়ে গেছে ২০১০ সালে, কিছুর শেষ হয়েছে ২০১২, ২০১৪ ও ২০১৫ সালে। অভিযানে দেখা যায় এমন কসমেটিকস এবং শ্যাম্পু-কসমেটিকস ব্যবহার করা হচ্ছিল লুসি বিউটি পার্লারে।অভিযানের সময় নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট তানিয়া মুন

তিনি জানান, বিপুল পরিমাণ মেয়াদোত্তীর্ণ কসমেটিকস তারা গ্রাহকদের ওপর ব্যবহার করছিল। এছাড়া ফ্রিজে পুরোনো ও নষ্ট হয়ে যাওয়া হারবাল প্রোডাক্ট সংরক্ষণের পাশাপাশি মাছ মাংস রাখা হচ্ছিল। জনস্বাস্থ্যের জন্য ক্ষতিকর এসব কার্যক্রম চালানোয় এবং প্রতিশ্রুত সেবা জনগণকে না দেওয়ায় প্রতিষ্ঠানটিকে এক লাখ টাকা জরিমানার পাশাপাশি সতর্ক করা হয়েছে।