১৮ জন ব্যক্তিকে ইসরাইলের পক্ষে গুপ্তচরবৃত্তির অভিযোগে হত্যা

প্রকাশ:| শুক্রবার, ২২ আগস্ট , ২০১৪ সময় ১০:৪১ অপরাহ্ণ

১৮ জন ব্যক্তিকে ইসরাইলের পক্ষে গুপ্তচরবৃত্তির অভিযোগে হত্যাগাজায় ১৮ জন ব্যক্তিকে ইসরাইলের পক্ষে গুপ্তচরবৃত্তির অভিযোগে হত্যা করেছে হামাস। এদের মধ্যে দুইজন নারীও রয়েছেন। হামাসের ৩ শীর্ষ নেতাকে ইসরাইল বিমান হামলা চালিয়ে হত্যার পাল্টা জবাব হিসেবে এ ঘটনাকে দেখা হচ্ছে। শুক্রবার এ ঘটনা ঘটে। প্যালেস্টাইন সেন্টার ফর হিউম্যান রাইটস ‘বিচারবহির্ভূত হত্যা’ হিসেবে অভিহিত করে এ কার্যক্রম বন্ধের দাবি জানিয়েছে। হামাস সমর্থিত কিছু মিডিয়ায় এটাকে নতুন অভিযানের শুরু বলে অভিহিত করা হয়েছে। এদের মধ্যে আল মাজদ নামের হামাসের ঘনিষ্ঠ একটি ওয়েবসাইটে বলা হয়েছে, সন্দেহভাজনদের ব্যাপারে আর আদালতের আদেশের অপেক্ষা করা হবে না। হামাসের সঙ্গে ঘনিষ্ঠ আরেকটি সূত্র জানিয়েছে, এই শাস্তি অন্যান্যদের বেলায়ও প্রযোজ্য হবে শীঘ্রই। তিনজন জ্যেষ্ঠ হামাস কমান্ডারকে ইসরাইল বিমান হামলা চালিয়ে হত্যার একদিন পর হামাস এই পদক্ষেপ নিল। এছাড়াও এ সপ্তাহের শুরুতে আরেকটি বিমান হামলা চালিয়ে হামাসের সামরিক শাখার প্রধান মোহাম্মেদ দেইফের স্ত্রী ও দুই সন্তানকে হত্যা করেছে ইসরাইল। মোহাম্মদ দেইফ অক্ষত আছেন বলে হামাস দাবি করলেও, তার সত্যিকার অবস্থান নিয়ে এখনও সংশয় রয়েছে। বার্ত সংস্থা এপির খবরে বলা হয়, গাজার আল ওমারি মসজিদে জোহরের নামাজের পর ৭ জন ইসরাইলি গুপ্তচরকে আটক করে মসজিদের পেছনে গুলি করে হত্যা করে মুখোশ পরিহিত হামাস সদস্যরা। একজন প্রত্যক্ষদর্শী জানান, কিছু বন্দুকধারী মসজিদের পাশের একটি দেয়ালের অপরপাশ থেকে এসে ৭ ব্যক্তিকে ধরে নিয়ে যায়। তখন একজন বন্দুকধারী আটককৃতদের নির্দেশ করে বলতে থাকে, এরা তাদের আত্মা শত্রুদের কাছে অত্যন্ত সস্তা দামে বিক্রি করেছে।