১৮১ রানে অনবদ্য ইনিংস টেস্ট ইতিহাসে বাংলাদেশের ব্যাটসম্যানদের তালিকায় মমিনুল

প্রকাশ:| শুক্রবার, ১১ অক্টোবর , ২০১৩ সময় ০৭:৫৮ অপরাহ্ণ

মমিনুলের সেঞ্চুরিচট্টগ্রাম টেস্টে ২২ বছর বয়সী এ ব্যাটসম্যান দেশের মাটিতে বাংলাদেশী কোনো ক্রিকেটার হিসেবে ডাবল সেঞ্চুরির স্বাদ নিতে পারেননি তবে ২৭৪ বলে ১৮১ রানে অনবদ্য ইনিংস খেলে টেস্ট ইতিহাসে বাংলাদেশের ব্যাটসম্যানদের এক ইনিংসে সর্বোচ্চ রানের তালিকায় ৩ নম্বরে জায়গা করে নিয়েছেন মমিনুল।

আজ শুক্রবার জহুর আহমেদ চৌধুরী বিভাগীয় স্টেডিয়ামে বারবার আলোচনায় উঠে এসেছে মুশফিকুর রহিমের গল টেস্টের ডাবল সেঞ্চুরির গল্প। কারণ, চট্টগ্রাম টেস্টে দারুণ খেলে ক্রমে মুশফিকের ডাবল সেঞ্চুরিকে চোখের দৃষ্টিসীমায় নিয়ে এসেছিলেন মমিনুল।
কিন্তু ঘাতক এন্ডারসনের একটি বিষাক্ত ডেলিভারি এলবিডব্লিউ করে তার স্বপ্নকে থামিয়ে দেয়। ১৮১ রানে বিদায় নেন তিনি। সেটা বাংলাদেশের প্রথম ইনিংসের ৯৩তম ওভার। যখন বাংলাদেশের স্কোরবোর্ডে ৩০১।

তবে ঘরের মাটিতে দেশসেরা হলেও বিদেশের মাটিতে ব্যক্তিগত সংগ্রহে মমিনুলকে পেছনে ফেলেছেন মোহাম্মদ আশরাফুল ও মুশফিকুর রহিম। চলতি বছরের মার্চে গল টেস্টে মুশফিক ২০০ আর আশরাফুল ১৯০ রান করেছিলেন। যা টেস্ট ক্রিকেটে বাংলাদেশী ব্যাটসম্যানদের সেরা দুই সাফল্য। চট্টগ্রামের জহুর আহমেদ চৌধুরী স্টেডিয়ামে দুই ম্যাচ সিরিজের প্রথম টেস্টের তৃতীয় দিন শুক্রবার নিউজিল্যান্ডের বিপক্ষে প্রথম ইনিংসে ৭ উইকেটে ৩৮০ করেছে বাংলাদেশ। কিউইদের চেয়ে ৮৯ রানে পিছিয়ে থেকে শনিবার চতুর্থ দিনের খেলা শুরু করবে স্বাগতিকরা।

টাইগারদের হয়ে টেস্ট ক্যারিয়ারে প্রথম সেঞ্চুরির করেন মিডল অর্ডার ব্যাটসম্যান মমিনুল হক। বাংলাদেশের হয়ে তৃতীয় সর্বোচ্চ ইনিংস খেলে কোরি এন্ডারসনের এলবিডব্লুর ফাঁদে পড়েন তিনি।

এর আগে মার্শাল আইয়ুব ও মুশফিকুর রহিমের সঙ্গে দুটি শক্ত জুটি গড়ে দলকে সন্তোষজনক অবস্থানে বাঁহাতি এই ব্যাটসম্যান নিয়ে যান। তার অনবদ্য ব্যাটিংয়ে নিউজিল্যান্ডের ৪৬৯ রানের জবাবে প্রথম ইনিংসে দলীয় সংগ্রহ ৩০০ ছাড়ায়।

সকালে আগের দিনের ২ উইকেটে ১০৩ রান নিয়ে দিনের খেলা শুরু করেন বাংলাদেশের দুই অপরাজিত ব্যাটসম্যান মমিনুল ও মার্শাল আইয়ুব। পরে ২৫ রান করে কিউই পেসার অ্যান্ডারসনের বলে স্লিপে ওয়াটলিংয়ের হাতে ক্যাচ দিয়ে বিদায় নেন আইয়ুব।

এরপর মাঠে নামেন সাকিব আল হাসান। কিন্তু মাত্র ১৯ রানের মাথায় উইলিয়ামসনের বলে ওয়াটলিংয়ের হাতে ক্যাচ আউট হন তিনি।

পরে অধিনায়ক মুশফিককে নিয়ে ব্যক্তিগত ১৫০ রান পূরণ করে ডাবল সেঞ্চুরির ম্যাজিক ফিগারের দিকে ছুটেন মমিনুল। কিন্তু ১৮১ রান করেই মাঠ ছাড়তে হয় তাকে। এর কিছুক্ষণ পরই দলকে ৬৭ রান দিয়ে সাজঘরে ফেরেন মুশফিকুর রহিম।

দুই ম্যাচ সিরিজের প্রথম টেস্টে বুধবার সকালে টস জিতে ব্যাট করতে নামে সফরকারী নিউজিল্যান্ড। বৃহস্পতিবার ম্যাচের দ্বিতীয় দিনে মধ্যাহ্ন বিরতির পর অলআউট হওয়ার আগে প্রথম ইনিংসে ৪৬৯ রানের বড় সংগ্রহ গড়ে তারা।

জবাবে ব্যাট করতে নামে বাংলাদেশ। নিজেদের প্রথম ইনিংসের প্রথম ওভারেই কোনো রান না করেই সাজঘরে ফিরে যান তামিম। বোল্টের বলে উইলিয়ামসনের হাতে ক্যাচ দিয়ে তিনি আউট হন। ইনিংসের চতুর্থ ওভারের তৃতীয় বলে দলীয় ৮ রানে ব্রেসওয়েলের বলে এলবিডব্লিউর শিকার হয়ে মাত্র ৩ রানে মাঠ ছাড়েন এনামুল।