১৬ দিনে ক্ষতি ৩৬ হাজার ৪৪৫ কোটি টাকা

প্রকাশ:| শুক্রবার, ২৩ জানুয়ারি , ২০১৫ সময় ১১:৪৬ অপরাহ্ণ

ঢাকা চেম্বার অব কমার্স অ্যান্ড ইন্ডাস্ট্রির (ডিসিসিআই) সভাপতি হোসেন খালেদ বলেছেন, রাজনৈতিক সহিংসতার কারণে পোশাক, পরিবহন, আবাসন, পর্যটন, শিল্প, কৃষিসহ ১৬টি খাতে প্রতিদিন প্রায় ২ হাজার ৩০০ কোটি টাকা ক্ষতি হচ্ছে। হরতাল-অবরোধের কারণে ১৬ দিনে ১৬টি খাতে মোট ক্ষতি হয়েছে ৩৬ হাজার ৪৪৫ কোটি টাকা।

বৃহস্পতিবার ডিসিসিআই’র সম্মেলন কক্ষে এক সংবাদ সম্মেলনে তিনি এ তথ্য তুলে ধরেন।

সংবাদ সম্মেলনে চেম্বার সভাপতি বলেন, ‘একমাত্র সংলাপই পারে চলমান রাজনৈতিক সংকট নিরসন করতে। অচলাবস্থা অবসানের জন্য প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ও বিএনপি চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়ার সঙ্গে দেখা দেখা করবেন ব্যবসায়ীরা।

হোসেন খালেদ বলেন, ‘বর্তমান রাজনৈতিক সংকট নিরসনে সংলাপই একমাত্র পন্থা। পৃথিবীর কোন দেশেই চাপ বা শক্তি প্রয়োগের মাধ্যমে কাঙ্খিত সমাধান অর্জন সম্ভব হয়নি। এজন্যে অবিলম্বে দুই দলকে সংলাপের আয়োজন করে এ রাজনৈতিক সংকট সমাধান করতে হবে।’

সংকট উত্তরণে ব্যবসায়ীরা কোনো পদক্ষেপ নেবেন কিনা জানতে চাইলে তিনি বলেন, ‘দুই নেত্রীর সঙ্গে দেখা করতে আমরা (ব্যবসায়ীরা) এক পায়ে খাড়া। এখন তারা যদি আমাদের সময় দেন, আমাদের সুযোগ করে দিলে দুই নেত্রীর কাছে আনুষ্ঠানিক সংলাপের আহ্বান জানাব।’

সিটিজেন কাউন্সিল গঠন করার সুপারিশ তুলে ধরে তিনি বলেন,‘ দেশের সিনিয়র নাগরিক, ব্যবসায়ী প্রতিনিধি, গণমাধ্যমের প্রতিনিধি, শিক্ষাবিদ ও বিশেষজ্ঞদের সমম্বয়ে একটি সিটিজেন কাউন্সিল গঠন করা যেতে পারে। যারা কোনভাবেই রাজনীতিক পরিচয়ে পরিচিত হবেন না। এ কাউন্সিল রাজনৈতিক দলগুলোকে সমানভাবে মূল্যায়ন করে গ্রহণযোগ্য সুপারিশ প্রণয়ন করবে।’

চলমান পরিস্থিতে বিদ্যুতের দাম বাড়ানোর সমালোচনা করে তিনি বলেন, ‘বর্তমান রাজনৈতিক পরিস্থিতিতে সরকার পিডিবির পক্ষ থেকে বিদ্যুতের দাম বৃদ্ধির প্রস্তাব করেছে। যেখানে বিশ্বজুড়ে জ্বালানি তেলের দাম কমেছে সেখানে বাংলাদেশে বিদ্যুতের দাম বাড়ালে ব্যবসায়ী সম্প্রদায় মারাত্মক ক্ষতির মুখে পড়বে।’

এ ছাড়া রপ্তানিমুখী শিল্পকে হরতাল-অবরোধের আওতামুক্ত রাখার আহ্বানও জানান ডিসিসিআই সভাপতি।

সংবাদ সম্মেলনে অন্যান্যদের মধ্যে আরও উপস্থিত ছিলেন, ডিসিসিআই-র সিনিয়র সহ-সভাপতি হুমায়ন রশিদ,সহ-সভাপতি মো. সোয়েব চৌধুরীসহ সংগঠনটির পরিচালকরা।