১৫ ও ২১ আগস্ট শহীদদের স্মরণে সুবিধাবঞ্চিত শিশুদের সম্মানে অনুষ্ঠান

প্রকাশ:| মঙ্গলবার, ৬ আগস্ট , ২০১৩ সময় ১০:১৪ অপরাহ্ণ

সুবিধাবঞ্চিত শিশুদের সম্মানে বিশেষ আয়োজনে মুক্তিযুদ্ধ গবেষক নাসিমুল কামাল
কাজের মিল না থাকা অনেক সংগঠক-সংগঠনকে দেখেছি-চিনেছি
কিন্তু অর্ধযুগের ‘আমরা করবো জয়’ সম্পূর্ণ ব্যতিক্রম, অন্যধারার

সুবিধাবঞ্চিত শিশুদের সম্মানে বিশেষ আয়োজনে বক্তারা বলেছেন, এ সমাজে অনেক কিছুর আয়োজনকে আমরা নানা কারণে waso 6.8‘মহতী’ হিসেবে অভিহিত করি, কিন্তু সত্যিকারার্থে ঐসবে মহৎ কিছু থাকে না। ‘মহৎ’ আয়োজনগুলি বিভিন্ন কারণে চাপা পড়ে যায়, মহৎ অনেক উদ্যোগই আলোর মুখ দেখেনা।
সত্যিকারার্থে ‘আমরা করবো জয়’ শুধু মহৎ সব উদ্যোগ নিয়েই ক্ষান্ত নয়, নিরবচ্ছিন্নভাবে বাস্তবায়নও করে যাচ্ছে।
প্রতিবছর সুবিধাবঞ্চিত শিশুদের সম্মানে নানা আয়োজনে সীমাবদ্ধ নেই তাদের কার্যক্রম। দেশের বিভিন্ন স্থানে বিভিন্ন বিষয়ে কাজ করে যাচ্ছে এ অন্যধারার সংগঠনটি। কখনো সরবে-কখনো নীরবে।
প্রতিবছরের মতো এবারও জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান এবং শহীদ আইভি রহমানসহ ১৫ ও ২১ আগস্ট শহীদদের স্মরণে গতকাল ৬ আগস্ট জেলা শিশু একডেমি মিলনায়তনে সম্সুবিধাবঞ্চিত শিশুদের সমানে বিশেষ আয়োজনে বক্তারা এসব কথা বলেন।
সমাজ, সংস্কৃতি, উন্নয়ন, মানবাধিকার, মুক্তিযুদ্ধ ও মুক্তচিন্তার জবাবদিহিমূলক সংগঠন আমরা করবো জয়-এর ব্যবস্থাপনা পরিচালক ও প্রধান নির্বাহী লেখক-সাংবাদিক শওকত বাঙালির সভাপতিত্বে ও সঞ্চালনে অনুষ্ঠানে সম্মানিত অতিথি ছিলেন বিশিষ্ট শিক্ষাবিদ ও সাংস্কৃতিক ব্যক্তিত্ব অধ্যক্ষ হাছিনা জাকারিয়া বেলা ইসলাম, মুক্তিযুদ্ধ গবেষক, মুক্তিযোদ্ধা প্রফেসর এ.কে.এম নাসিমুল কামাল, মিসেস রিজিয়া কামাল, উত্তর জেলা যুবলীগ সাধারণ সম্পাদক এস.এম রাশেদুল আলম, দেশ টিভি’র চট্টগ্রাম ব্যুরো প্রধান সৈয়দ আলমগীর সবুজ, চ্যানেল ৭১’র সিনিয়র স্টাফ রিপোর্টার আজাদ তালুকদার প্রমুখ। সুবিধাবঞ্চিতদের পক্ষে অংশগ্রহণ করে রবিউল ইসলাম, হৃদয় হাশেম, রাসেল, জুম্মন, রুবেল, আরজিনা আকতার, মর্জিনা আকতার, মামুন, নার্গিস, তানিয়া, সীমা প্রমুখ।
অধ্যাপক নাসিমুল কামাল বলেন, ৭২ বছর বয়সে কথার সাথে কাজের মিল না থাকা অনেক সংগঠক-সংগঠনকে দেখেছি-চিনেছি। কিন্তু অর্ধযুগের ‘আমরা করবো জয়’ সম্পূর্ণ ব্যতিক্রম। কথার এবং কাজের অপূর্ব মেলবন্ধনই যেন তাঁদের মূল শক্তি। মূল সুর। সমাজ, সমাজের মানুষের জন্যেই যেন তাঁদের অভিযাত্রা। একদিন এই সংগঠনটি সত্যিকারার্থে অন্ধকারাচ্ছন্ন মানুষগুলিকে আলোর পথ দেখাবে। তিনি শিশুদের গল্পের মাধ্যমে আগামী দিনে কিভাবে পথ চলবে তার দিকনির্দেশনা দেন।
অধ্যক্ষ হাছিনা জাকারিয়া বেলা ইসলাম বলেন, আমরা করবো জয় শুধু সুবিধাবঞ্চিতদের নয়, সমাজ, সংস্কৃতি, উন্নয়ন, মানবাধিকার, মুক্তিযুদ্ধ ও মুক্তচিন্তা কোথায় নেই তারা? তাঁদের স্লোগানেই যে শক্তি, জয় করবার যে দুর্নিবার বোধ সেটিই সংগঠনটিকে এগিয়ে নিয়ে যাবে অনেক দূর। ‘আমরা মিথ্যা বলিনা’-এ স্লোগানের ভূয়সী প্রশংসা করে বেলা ইসলাম বলেন, আমরা করবো জয়-এর সংস্পর্শে যারা একবার এসেছেন তারা অবশ্যই এর মূলমন্ত্রে উদ্দীপ্ত হবেন। সমাজ থেকে মিথ্যা বিনাশ করা গেলে বাংলাদেশই হবে পৃথিবীর সবচেয়ে সুন্দর এবং সম্ভাবনাময় রাষ্ট্র।
সভাপতির বক্তব্যে শওকত বাঙালি বলেন, আমাদের স্বপ্ন একটি নিরক্ষরমুক্ত, কুসংস্কারমুক্ত, দারিদ্রতামুক্ত অসাম্প্রদায়িক বাংলাদেশ। মানুষের ভালোবাসা, অকুণ্ঠ সমর্থনে আমরা এগিয়ে যাচ্ছি। আমাদের আগামী পথ চলার সবাইকে আমন্ত্রণ জানাই। তিনি সচেতন মানুষদের আমরা করবো জয়-এর সদস্য পদ গ্রহণ করার আহবান জানান। পুরো আয়োজনে অতিথিবৃন্দ প্রায় আড়াইশ শিশুকিশোর ইফতারী এবং রাতের খাবাওে অংশগ্রহণ করে।


আরোও সংবাদ