হোল্ডিং ট্যাক্স বৃদ্ধির মাধ্যমে জনগণের বিরুদ্ধে যুদ্ধ ঘোষণা করেছে

প্রকাশ:| বৃহস্পতিবার, ৫ অক্টোবর , ২০১৭ সময় ০৭:৫৭ অপরাহ্ণ

চট্টগ্রাম মহানগর বিএনপির সভাপতি ও কেন্দ্রীয় বি.এন.পি’র সাবেক সাংগঠনিক সম্পাদক ডা.শাহাদাত হোসেন বলেছেন, চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশন হোল্ডিং ট্যাক্স বৃদ্ধির মাধ্যমে জনগণের বিরুদ্ধে যুদ্ধ ঘোষণা করেছে। হোল্ডিং ট্যাক্স দিতে সবাই রাজি। কিন্তু যৌক্তিক ভাবে তা হতে হবে। সিটি কর্পোরেশনের প্রধান কাজ হচ্ছে নাগরিক সেবা সু-নিশ্চিত করা। তা না করে জনগণের ভোগান্তি আরো বাড়িয়ে দিয়েছে। আর আমাদের কর্পোরেশন এলাকার অবস্থা এই যে, একটু বৃষ্টি হলেই জলাবদ্ধতার সৃষ্টি হয়। পানিতে পানিতে সয়লাভ হয়ে পড়ে পুরো মহানগর। জলাবদ্ধতা প্রতিরোধে কোন ব্যবস্থায় নেই, স্বাস্থ্য সেবা নেই বললে চলে, রাস্তা ঘাটের বেহাল দশা। ফলে সাধারণ জনগণ এই অবস্থার কারণে দূর্ভোগের অন্ত নেই। এছাড়াও নিত্য প্রয়োজনিয় দ্রব্য মূলের উর্দ্ধগতিতে সাধারণ মানুষের নিশ^াস বন্ধ হয়ে যাওয়ার মত অবস্থা তৈরি হয়েছে। সেখানে অযৌক্তিক হারে জনগণের উপর ট্যাক্সের বোঝাঁ চাপিয়ে দিয়ে “মরার উপর খড়ার ঘাঁ” হিসাবে পরিণত হয়েছে।
ডা. শাহাদাত হোসেন আরো বলেন, বর্তমানে যে ট্যাক্স নির্ধারণ করা হচ্ছে কোন কোন ক্ষেত্রে ২০ গুন আবার কোন কোন ক্ষেত্রে ৫০ গুণের অধিক হারে নির্ধারণ করা হচ্ছে। এটা চট্টলা বাসি কোন দিনেই মেনে নিবেনা। তিনি অনতিবিলম্বে অতিরিক্ত ট্যাক্স প্রত্যাহার করা না হলে আগামী সোমবার সমাবেশ থেকে কঠিন কর্মসূচি ঘোষণা করবেন বলে ঘোষণা দিয়েছেন। তিনি অদ্য বৃহস্পতিবার বিকাল ৫.০০ ঘটিকার সময় লাভলেইনস্থ মেট্টো-পুল কমিউনিটি সেন্টারে সিটি কর্পোরেশন কর্তৃক হোল্ডিং ট্যাক্স বৃদ্ধির প্রতিবাদে পেশাজীবী, মোহল্লার সর্দ্দার, করদাতাদের নিয়ে মহানগর বি.এন.পি’র উদ্দেগে আয়োজিত মতবিনিময় সভায় সভাপতির বক্তব্য উরোক্ত বক্তব্য রাখেন।
চট্টগ্রাম মহানগর বি.এন.পি’র সাধারণ সম্পাদক আবুল হাশেম বক্কর বলেন, চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশন কর্তৃক বাসা ভাড়া হোল্ডিং ট্যাক্স অস্বাভাবিক ভাবে বাড়িয়ে নগর বাসির জন্য নতুন বিপদ ডেকে এনেছে। এই ট্যাক্স সীমাহিন ভাবে বৃদ্ধি করা হয়েছে। এই ট্যাক্স বৃদ্ধির ফলে নগরির বাসাবাড়ির মালিকরাই নয়, বাসা ভাড়া বৃদ্ধির আশঙ্কায় ভাড়াটিয়ারাও হুমকির মুখে পড়েছে। জনগণের নির্বাচিত মেয়র না হওয়ার কারণে অযৌক্তিক হাওে ট্যাক্স বৃদ্ধি করেছে। অনতিবিলম্বে বর্ধিত ট্যাক্স কমানোর আহ্বান জানান।
নগর বি.এন.পি’র সিনিয়র সহ-সভাপতি আলহাজ¦ আবু ছুফিয়ান বলেন, অভিলম্বে অযৌক্তিকভাবে বর্ধিত হোল্ডিং ট্যাক্স কমাতে হবে। জনগণ আগে যে হারে হোল্ডিং ট্যাক্স দিত ঠিক সেভাবে রাখতে হবে।
এই সময় অন্যানদের মধ্যে চট্টগ্রাম মহানগর বি.এন.পি’র সহ-সভাপতি এম.এ আজিজ, মোহাম্মদ মিয়া ভোলা, সবুক্তগীন সিদ্দিকি মক্কি, আরশরা চৌধুরী, এডভোকেট মফিজুর হক ভূইয়া, জয়নাল আবেদীন জিয়া, ছৈয়দ আহম্মদ, ইকবাল চৌধুরী, চট্টগ্রাম জাতীয়তাবাদী আইনজীবী ফোরামের সভাপতি এডভোকেট দেলোয়ার হোসেন, চট্টগ্রাম বিশ^বিদ্যালের শিক্ষক অধ্যাপক শাহ্ আলম, অন্যানদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন যুগ্ন সম্পাদক এস.এম. সাইফুল আলম, ইসকান্দর মির্জা, ইয়াছিন চৌধুরী লিটনের সঞ্চালনায় যুগ্ন সম্পাদক মনজুর আলম মনজুর, আনোয়ার হোসেন লিপু, আব্দুল মন্নান, গাজী মোহাম্মদ সিরাজুল্লাহ, বাবু টিংকু দাশ, কোষাধক্ষ ছৈয়দ শিহাব উদ্দীন আলম, সাংগঠনিক সম্পাদক কামরুল ইসলাম, মনজুর আলম মনজু প্রমূখ। থানা বি.এন.পি’র নেতৃবৃন্দদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন মনজুর আলাম মনজু, মুক্তিযুদ্ধা সাইফুল ইসলাম বাবুল, মামুনুল ইসলাম হুমায়ন প্রমূখ। মহল্লা সর্দ্দারদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন আমিনুল ইসলাম সর্দ্দার পূর্ব মাদার বাড়ী, বেলাল সর্দ্দার পাঁচলাইশ, মোহাম্মদ আলী এনায়েত বাজার, ফেরদৌস আলম বক্সির হাট, হানিফ সওদাগর গোসাইল ডাঙ্গা, আক্তার খান ফিরিঙ্গীবাজার, এম.এ হালিম বাবলু চকবাজার, মোহাম্মদ মহসিন দক্ষিণ কাট্টলী, এছাড়াও বিভিন্ন এলাকার সর্দ্দারগণ বক্তব্য রাখেন। কর্মসূচী: আগামী ০৯ অক্টোবর সোমবার বিকাল ৩.০০ ঘটিকায় চট্টগ্রাম মহানগর বি.এন.পি’র উদ্ব্যগে দলীয় কার্যালয় সম্মুখে নুর আহম্মদ সড়কে ট্যাক্স বৃদ্ধির প্রতিবাদে বিক্ষোভ সমাবেশ অনুষ্ঠিত হবে।