হোপের দুই নাবিকের লাশ দেশে এসেছে

প্রকাশ:| বুধবার, ১৭ জুলাই , ২০১৩ সময় ০৩:৫২ অপরাহ্ণ

mv hope._7163_0থাইল্যান্ডের আন্দামান সাগরে জাহাজ ডুবে মারা যাওয়া দুই নাবিকের মরদেহ দেশে পৌঁছেছে।২ নাবিকের মরদেহে দেশে
বুধবার বিকেল সাড়ে ৪টায় বাংলাদেশ বিমানের একটি ফ্লাইটে তাদের লাশ ঢাকায় হযরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে পৌঁছে।

নিহতরা হচ্ছেন- জাহাজের চিফ ইঞ্জিনিয়ার কাজী সাইফুদ্দিন ও চিফ অফিসার মোহাম্মদ মাহবুব মোর্শেদ। কাজী সাইফুদ্দিনের গ্রামের বাড়ি মানিকগঞ্জে এবং মাহবুব মোর্শেদের বাড়ি চট্টগ্রাম এলাকায়।

বিমানবন্দরে সাইফুদ্দিনের আত্মীয়স্বজন তার লাশ গ্রহণ করে। বিমানবন্দর থেকে লাশ নিয়ে বিকেল ৫টায় মানিকগঞ্জের উদ্দেশে রওনা হন তারা।

মাহবুব মোর্শেদের লাশ বিকেল ৫টায় বিমানের অন্য একটি ফ্লাইটে চট্টগ্রাম বিমানবন্দরে নেওয়া হয়।

গত ৪ জুলাই থাইল্যান্ডের ফুকেট থেকে আন্দামান সাগরে আংশিক ডুবে যাওয়া বাংলাদেশি মার্চেন্ট জাহাজ এমভি হোপে মারা যান এ দুই নাবিক।

ওই জাহাজে ১৭ জন বাংলাদেশি নাবিক ছিলেন। তাদের মধ্যে নয় নাবিককে জীবিত উদ্ধার করা হয়। তাদের আটজনই দেশে ফিরেছেন। গুরুতর আহত একজন এখনও থাইল্যান্ডের একটি হাসপাতালে চিকিৎসাধীন বলে জানা গেছে।

চট্টগ্রাম ব্যুরো জানায়, ঢাকা থেকে সন্ধ্যা ৬টায় মাহবুব মোর্শেদের লাশ চট্টগ্রামে পৌঁছে। বিমানবন্দরে নিহতের স্বজনরা তার লাশ গ্রহণ করেন। বৃহস্পতিবার বাদ জোহর জানাজা শেষে হালিশহরের পারিবারিক কবরস্থানে তার লাশ দাফন করা হবে।

মানিকগঞ্জ প্রতিনিধি জানান, বুধবার রাত সাড়ে ৮টায় সাইফুদ্দিন খোকনের লাশ মানিকগঞ্জের বাসায় আনা হয়েছে। লাশ আসার সঙ্গে সঙ্গে আত্মীয়স্বজনের আহাজারিতে পরিবেশ ভারি হয়ে ওঠে।

সরকারি দেবেন্দ্র কলেজ মাঠে বৃহস্পতিবার বাদ জোহর নামাজের জানাজা শেষে সেওতা কবরস্থানে তাকে দাফন করা হবে।


আরোও সংবাদ