হেরাথ ভেঙেছেন ১২৫ বছরের পুরনো এক রেকর্ড

প্রকাশ:| শনিবার, ১৬ আগস্ট , ২০১৪ সময় ০৭:২৭ অপরাহ্ণ

২০১৩ সালের জানুয়ারি মাসের ঘটনা। শ্রীলঙ্কা তখন অস্ট্রেলিয়া সফরে। সিডনিতে রঙ্গনা হেরাথকে বল করতে দেখে অনেকেই ভূত দেখার মতো চমকে উঠলেন। রাতে যাঁর মৃত্যুসংবাদ শুনে ঘুমাতে যেতে হয়েছে, সকালে তাঁকে মাঠে জলজ্যান্ত দেখলে আত্মারাম খাঁচাছাড়া হবে—সেটাই স্বাভাবিক! সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে দাবানলের মতো ছড়িয়ে পড়েছিল, সিডনিতে সড়ক দুর্ঘটনায় নিহত হয়েছেন হেরাথ! একই গাড়িতে থাকা সাবেক ফাস্ট বোলার চামিন্ডা ভাসের অবস্থাও নাকি গুরুতর। সবই যে গুঞ্জন ছিল, তা নিশ্চয় বোঝা যাচ্ছে। ‘বেঁচে আসা’ সেই হেরাথই এখন ব্যাটসম্যানদের ‘যমদূত’!

কত বড় যমদূত তার প্রমাণ মিলল কলম্বোর সিংহলিজ স্পোর্টস ক্লাবে (এসএসসি)। এসএসসির উইকেট বরাবরই বোলারদের বধ্যভূমি। সেই উইকেটেই কিনা পাকিস্তানের বিপক্ষে তুলে নিলেন ১২৭ রানে ৯ উইকেট। এত বড় প্রাপ্তির পরও হেরাথের হয়তো মনে একটা আফসোস রয়ে গেছে। আফসোসটা প্রতিপক্ষের কোনো ব্যাটসম্যানের ওপর নয় বরং সতীর্থ দিলরুয়ান পেরেরার ওপর। কী দরকার ছিল আহমেদ শেহজাদের উইকেটটা নেওয়ার! পেরেরা উইকেটটা না নিলে এক ইনিংসে ১০ উইকেট হতে পারত তাঁর। সেটি হলে নামও লেখানো হতো জিম লিকার ও অনিল কুম্বলের পরে!
1হেরাথ ভেঙেছেন ১২৫ বছরের পুরনো এক রেকর্ড
১০ উইকেট না নিলেও কিছু রেকর্ড নিজের করে নিয়েছেন। টেস্ট ক্রিকেট ইতিহাসে কোনো বাঁ-হাতি স্পিনার হিসেবে এক ইনিংসে সেরা বোলিং ফিগার তাঁর। হেরাথ ভেঙেছেন ১২৫ বছরের পুরনো এক রেকর্ড। ১৮৮৯ সালে ইংলিশ বাঁ-হাতি স্পিনার জনি ব্রিগস কেপটাউন টেস্টে দক্ষিণ আফ্রিকার বিপক্ষে নিয়েছিলেন ১১ রানে ৮ উইকেট। ১২৫ বছর পর ব্রিগসকে ছাপিয়ে গেলেন এ লঙ্কান স্পিনার।

এসএসসিতে এক ইনিংসে এটিই সেরা বোলিং ফিগার। এর আগের রেকর্ডটি ছিল মুত্তিয়া মুরালিধরনের দখলে। ২০০১ সালে এ মাঠে ভারতের বিপক্ষে এক ইনিংসে ৮৭ রানে ৮ উইকেট নিয়েছিলেন লঙ্কান স্পিনার কিংবদন্তি। আরও একটি রেকর্ড হাতছানি দিচ্ছে হেরাথের সামনে। দুই ম্যাচের টেস্ট সিরিজে তিন ইনিংসে নিয়েছেন ১৮ উইকেট। আর ৪ উইকেট নিতে পারলে ছুঁয়ে ফেলবেন মুরালির ২২ উইকেটের রেকর্ড ।

মুরালি-যুগে টেস্ট অভিষেক বলেই কিনা দীর্ঘদিন ছিলেন পাদপ্রদীপের আড়ালে। অভিষেকের প্রথম ১১ বছরে তাই দলে আসা-যাওয়া করেই কেটেছে ৩৬ বছর বয়সী বাঁ-হাতি স্পিনারের। যেটুকু সুযোগ পেয়েছেন সেটুকুও ঢাকা পড়েছে মুরালির মতো ‘বটবৃক্ষে’র ছায়ায়। মুরালি-যুগ অবসানের পরই দৃশ্যপটে নিজেকে শক্তভাবেই প্রতিষ্ঠা করেছেন হেরাথ। ২০১২-এর পর আরও একটি দুর্দান্ত বছর যাচ্ছে লঙ্কান স্পিনারের। এ বছর এখনো পর্যন্ত চারবার পেয়েছেন পাঁচ উইকেট। তবে ক্যারিয়ার-সেরা বোলিংয়ে রঙ্গনা হেরাথ বোঝালেন, সবচেয়ে বড় রঙ্গমঞ্চ সাজানো ছিল এ এসএসসিতেই!