হৃদয়ছোঁয়া সুরের ঝঙ্কারে… তরুণ উদ্যোক্তা বাণিজ্যমেলা

প্রকাশ:| শুক্রবার, ২৫ নভেম্বর , ২০১৬ সময় ১১:৫৩ অপরাহ্ণ

দেশের প্রথম তরুণ উদ্যোক্তা বাণিজ্যমেলা শুরুর পর প্রথম ছুটির দিনে ‘তিল ঠাঁই’ ছিল না মেলা প্রাঙ্গণে। শ্রোতাপ্রিয় ব্যান্ডদল ‘তীরন্দাজ’, ‘রায়হান অ্যান্ড ফ্রেন্ডস’, ‘নাটাই’, ‘দ্যা ট্রি’র হৃদয়ছোঁয়া সুরের ঝঙ্কারে বিকেল থেকে রাত পর্যন্ত হাজারো মানুষের ভিড় ছিল মঞ্চের সামনে। স্টল আর প্যাভেলিয়নগুলোতেও ছিল উপচেপড়া ভিড়। বরাবরের মতোই গেম জোনটি ছিল বিরতিহীন উচ্ছ্বাসে টইটম্বুর।

নগরীর এমএ আজিজ স্টেডিয়াম সংলগ্ন সিজেকেএস অনুশীলন মাঠে জুনিয়র চেম্বার ইন্টারন্যাশনাল (জেসিআই) চিটাগাং কসমোপলিটন আয়োজিত মেলার শুক্রবারের (২৫ নভেম্বর) চিত্র এটি।

%e0%a6%a4%e0%a6%b0%e0%a7%81%e0%a6%a3-%e0%a6%89%e0%a6%a6%e0%a7%8d%e0%a6%af%e0%a7%8b%e0%a6%95%e0%a7%8d%e0%a6%a4%e0%a6%be-%e0%a6%ac%e0%a6%be%e0%a6%a3%e0%a6%bf%e0%a6%9c%e0%a7%8d%e0%a6%af%e0%a6%ae%e0%a7%87

%e0%a6%a4%e0%a6%b0%e0%a7%81%e0%a6%a3-%e0%a6%89%e0%a6%a6%e0%a7%8d%e0%a6%af%e0%a7%8b%e0%a6%95%e0%a7%8d%e0%a6%a4%e0%a6%be-%e0%a6%ac%e0%a6%be%e0%a6%a3%e0%a6%bf%e0%a6%9c%e0%a7%8d%e0%a6%af%e0%a6%ae%e0%a7%87দর্শক-ক্রেতার ঢলে জেসিআই কর্মকর্তারা ছিলেন উচ্ছ্বসিত। জেসিআই কর্ণধার জসীম আহমেদ বাংলানিউজকে বললেন, রাত আটটার মধ্যে সাড়ে আট হাজার দর্শক-ক্রেতা মেলায় ঢুকেছেন টিকেট কেটে। এখানেই শেষ নয়। রাত বাড়ার সঙ্গে পাল্লা দিয়ে দর্শকসমাগমও বাড়ছে। এত ভিড় যে প্রবেশ টিকেটের ওপর যে কুপন তা ফেলার জন্য আরও অনেক বাক্স দিতে হয়েছে আমাদের। অবস্থাটা এমন যে মেলায় বুঝি ‘তিল ঠাঁই’ই নেই।

সন্ধ্যায় তীরন্দাজ যখন ‘বন্ধু’ গানটি শেষ করল তখনই কথা হয় কাপ্তাই রাস্তার মাথা এলাকা থেকে মেলায় আসা গৃহিণী তাবাসসুম তাহমিনার সঙ্গে। তিনি বললেন, চট্টগ্রামের সব মেলাতেই যাই দেখার জন্য, নতুন পণ্য ও সেবার সঙ্গে পরিচিত হওয়ার জন্য। তরুণ উদ্যোক্তা মেলায় আসারও পরিকল্পনা ছিল অনেক আগে থেকে। বাচ্চাদের পরীক্ষা চলছে বলে এত দিন আসতে পারিনি। আজ ছুটির দিন, কাল বাচ্চার পরীক্ষা নেই, স্কুল বন্ধ। তাই মেলায় চলে এলাম। বাড়তি পেলাম চট্টগ্রামের শীর্ষস্থানীয় ব্যান্ডদলগুলোর পরিবেশনা।

মেলার দক্ষিণ-পশ্চিম কর্নারে চমৎকার সব শার্ট, বিছানার চাদর, তোয়ালে, মেয়েদের গহনা আর শিশুদের পুতুল দিয়ে স্টল সাজিয়েছে আরকে ফ্যাশন। স্টলের বিক্রয়কর্মী মো. রিয়াদ বলেন, শনিবার মেলা শুরুর পর থেকে প্রথম সাপ্তাহিক ছুটির দিন পেয়েছি আজ। বিকেল থেকেই এত ভিড় যে দম ফেলার ফুরসত পাইনি।

স্টলটিতে ২০ টাকা থেকে শুরু করে ৪০০ টাকার মধ্যে সুদৃশ্য সব কানের দুল, মাথার ক্লিপ, চুড়িসহ সব ধরনের গহনা পাওয়া যাচ্ছে। এ ছাড়া ৫০০ থেকে ২ হাজার টাকার মধ্যে দেশি-বিদেশি বেডশিট, ২০ টাকা থেক ৫০০ টাকার মধ্যে ছোট-বড় তোয়ালে, ৩০০ টাকায় কুশন বালিশ, ২০০ থেকে ৫০০ টাকায় পুতুল পাওয়া যাচ্ছে।

গেম জোনে কথা হয় ক্রিকেট ক্লাবের প্রশিক্ষণার্থী আবিরের সঙ্গে। অনুশীলনের ব্যাট-বলের ব্যাগ, জার্সি গায়ে গেম জোনে ব্যস্ত সময় কাটাচ্ছিল এ তরুণ। বললো, কয়েকদিন ধরে মেলাটি বাইর থেকে দেখেছিলাম। আজ টিকেট কেটে ঢুকে পড়লাম। আমার কাছে এখানকার সবচেয়ে আকর্ষণীয় হচ্ছে গেম জোন।


আরোও সংবাদ