হৃদরোগ ও স্ট্রোক হওয়ার ঝুঁকি হ্রাসে উদ্ভিজ্জ প্রোটিন

নিউজচিটাগাং২৪/ এক্স প্রকাশ:| শনিবার, ২৩ ডিসেম্বর , ২০১৭ সময় ০২:১২ পূর্বাহ্ণ

প্রাণিজ প্রোটিন যেমন- মাংস বা দুধের পরিবর্তে প্রতিদিন উদ্ভিজ্জ প্রোটিন যেমন- সয়া, বাদাম বা ডালজাতীয় খাবার খাওয়ার অভ্যাস করলে কোলেস্টরলের মাত্রা কম থাকে। ফলে হৃদরোগ ও স্ট্রোক হওয়ার ঝুঁকি হ্রাস পায়।
সাম্প্রতিক গবেষণায় দেখা গেছে প্রতিদিন এক বা দুই সার্ভিং উদ্ভিজ্জ প্রোটিন খাওয়ার অভ্যাস করলে ‘লো-ডেনসিটি লিপোপ্রোটিন কোলেস্টেরল বা এলডিএল বা খারাপ কোলেস্টেরলের মাত্রা উল্লেখযোগ্য হারে কমাতে পারে।

কানাডার ওন্টারিও’তে অবস্থিত ‘সেন্ট মাইকেল’স হসপিটাল’য়ের চিকিৎসক ও এই গবেষণার প্রধান জন সিভেনপাইপার বলেন, “আমরা বিভিন্ন ক্লিনিক ও সুপার মার্কেটের নজরদারী চালিয়ে ভূমধ্যসাগরীয় অঞ্চল থেকে নিরামিষাশীদের খাদ্যাভ্যাস পর্যবেক্ষণ করে সমন্বিত ফলাফল এলোমেলোভাবে যাচাইবাছাইয়ের পর এই প্রমাণ পেয়েছি যে, উদ্ভিজ্জ প্রোটিন হৃদপিণ্ডের জন্য স্বাস্থ্যকর।

পাশাপাশি কোলেস্টেরল মাত্রা কমাতে পারে এরকম অন্যান্য খাবার যেমন ওটস বা বার্লি উদ্ভিজ্জ প্রোটিনের সঙ্গে খেতে পারলে স্বাস্থ্যের জন্য আরও উপকারী হবে।

‘আমেরিকন হার্ট অ্যাসোসিয়েশন’ জার্নালে প্রকাশিত এই গবেষণার জন্য, অংশগ্রহণকারীদের তিন সপ্তাহ ধরে প্রাণিজ প্রোটিনের পরিবর্তে উদ্ভিজ্জ প্রোটেন গ্রহন করার পর তাদের নিয়ে ১১২টি নিয়ন্ত্রিত নিরীক্ষার প্রণালিবদ্ধ পর্যালোচনা এবং ‘মেটা অ্যানালাইসিস করা হয়।

আগের গবেষণায় দেখা গেছে যারা প্রাণিজ প্রোটিন বেশি গ্রহণ করেন তাদের অ্যালকোহল সেবন ছাড়াও ‘ফ্যাটি লিভার’ রোগ হওয়ার ঝুঁকি বেশি। এর ফলে লিভার বা যকৃতে চর্বি জমে, স্থূলকায় বা অতিরিক্ত ওজনদার মানুষের এই রোগ হয়।

দীর্ঘদিন উদ্ভিজ্জ প্রোটিন খাওয়ার অভ্যাস করলে শরীরের যে পরিবর্তন হয় তা থেকে কোলেস্টেরলের মাত্রা কমার পাশাপাশি বাড়তি ওজন ঝরা এবং উচ্চ-রক্তচাপ কমাতে সাহায্য করে।