হাস্য-কৌতুকের প্রহসনে পরিণত হয়েছে নির্বাচন : ফখরুল

প্রকাশ:| শনিবার, ৪ জানুয়ারি , ২০১৪ সময় ০৮:১৩ অপরাহ্ণ

৫ জানুয়ারির নির্বাচন হাস্য-কৌতুকের প্রহসনে পরিণত হয়েছে বলে মন্তব্য করেছেন বিএনপির ভারপ্রাপ্ত মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর। আজ শনিবার সন্ধ্যায় এক বিবৃতিতে তিনি এ কথা বলেন।

মির্জা ফখরুল বলেন, সরকার তাদের অনুগত নির্বাচন কমিশনকে দিয়ে ‘ভোটারবিহীন-প্রার্থীবিহীন’ নির্বাচন করতে চলেছে। তিনি বলেন, ১৫৩ জন সরকারি জোটের প্রার্থী ইতিমধ্যেই বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় নির্বাচিত বলে ধরে নেওয়া হয়েছে। বাকি আসনগুলোতে যৌথ বাহিনী, যৌথ বাহিনীর সহযোগিতায় নির্বাচনের একটা নাটক মঞ্চস্থ করা হচ্ছে। ইতিমধ্যে এই তথাকথিত প্রহসনমূলক একতরফা নির্বাচন স্থগিত করার জন্য দেশের প্রায় সব রাজনৈতিক দল, সংগঠন, পেশাজীবী সংগঠন, বিশিষ্ট নাগরিক, পত্রিকার স্বনামধন্য সম্পাদক তাঁদের মতামত ব্যক্ত করেছেন। জাতিসংঘ, কমনওয়েলথ, যুক্তরাষ্ট্র, যুক্তরাজ্য, কানাডা, ইউরোপীয় ইউনিয়ন, জাপান, চীনসহ আন্তর্জাতিক সংস্থা, দেশি-বিদেশি গণমাধ্যম এই প্রহসনের নির্বাচন স্থগিত করার জন্য সরকারের কাছে অনুরোধ জানিয়েছে।

আওয়ামী লীগ ‘রাজনৈতিকভাবে দেউলিয়া’ হয়েছে বলেই এই ধরনের একটি ‘জনসম্পৃক্ততাবিহীন’ নির্বাচনের পথ বেছে নিয়ে ক্ষমতায় টিকে থাকতে চাইছে বলেও মন্তব্য করেন মির্জা ফখরুল।

ফখরুল আরও বলেন, আওয়ামী লীগ সামাজিকভাবে, নৈতিকভাবে ও রাজনৈতিকভাবে সম্পূর্ণ পরাজিত হয়েছে বলেই আজ বলপ্রয়োগের মাধ্যমে গণতন্ত্রের সব নিয়ম-নীতিকে ধ্বংস করে স্বৈরতান্ত্রিক একনায়কতন্ত্র প্রতিষ্ঠা করতে চলেছে।

বিএনপির ভারপ্রাপ্ত মহাসচিব বলেন, ‘বিরোধীদলীয় নেতা খালেদা জিয়াকে গৃহবন্দী করে রেখে, তাঁর রাজনৈতিক কার্যালয় এবং বিএনপিসহ অন্য রাজনৈতিক দলের কেন্দ্রীয় কার্যালয় অবরুদ্ধ রেখে, বিরোধী দলের শীর্ষ নেতাদের কারান্তরীণ করে, মিথ্যা মামলা দিয়ে, দেখামাত্র গুলির নির্দেশ দিয়ে, সারা দেশের বিরোধী দলের নেতা-কর্মীদের হত্যা, গুলি, নির্যাতন, গ্রেপ্তার, তাদের বাড়িঘর ভাঙচুর, অগ্নিসংযোগের মাধ্যমে নজিরবিহীন রাষ্ট্রীয় সন্ত্রাসের মধ্য দিয়ে এই নির্বাচন সত্যিকার অর্থেই একটি প্রহসনের নির্বাচনের অপপ্রয়াস।’

সরকার সুপরিকল্পিতভাবে জাতিকে বিভক্ত করতে চাইছে বলেও মন্তব্য করেন তিনি। চিরস্থায়ীভাবে ক্ষমতায় থাকার জন্য বিরোধী মতকে নির্মূল করে ভিন্ন আঙ্গিকে একদলীয় শাসনব্যবস্থা আবারও প্রতিষ্ঠা করার চেষ্টা করছে বলে অভিযোগ করেন তিনি। বিএনপি শান্তিপূর্ণভাবে সরকারের ‘ফ্যাসিবাদী নৈরাজ্যের’ জবাব দিতে চায় বলেও মন্তব্য করেন মির্জা ফখরুল।