হাসিনাকে লুটপাটের রানী বলে আখ্যায়িত করেছেন খালেদা

প্রকাশ:| বৃহস্পতিবার, ২৩ জুন , ২০১৬ সময় ০৮:৩৭ অপরাহ্ণ

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে লুটপাটের রানী বলে আখ্যায়িত করেছেন বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়া। তিনি বলেছেন, দেশের অর্থনৈতিক অবস্থা অত্যন্ত খারাপ। দেশের ব্যাংকগুলো লুটপাট হয়ে গেছে। আগে কখনও কেন্দ্রীয় ব্যাংক লুটপাট হতে শুনিনি। বর্তমান প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা লুটপাটের প্রধান, লুটপাটের রানী। বৃহস্পতিবার রাজধানীর গুলশানে ইমানুয়েলস কনভেশন সেন্টারে ২০ দলীয় জোটের শরিক দল লেবার পার্টি আয়োজিত ইফতার মাহফিলে যোগ দিয়ে এ মন্তব্য করেন তিনি। সারাদেশে সাধারণ মানুষ ও বিএনপি নেতাকর্মীদের ওপর অত্যাচার নির্যাতন চালানো হচ্ছে- এমন অভিযোগ করে খালেদা জিয়া বলেছেন, বিচার বিভাগে ন্যায় বিচার পায় না বিএনপি। বিচার সকলের জন্য সমান হতে হবে। তিনি বলেন, প্রধান বিচারপতি নিজেই দেখেছেন, ১৫ হাজার বন্দি রয়েছে। এরা সন্ত্রাসী হলে আওয়ামী লীগ তাদের সন্ত্রাসী তৈরি করেছে। দেশে যত অপরাধ ঘটছে তার সঙ্গে সাধারণ মানুষ জড়িত না। এর সঙ্গে পুলিশ, ছাত্রলীগ ও আওয়ামী লীগ জড়িত। খালেদা জিয়া বলেন, মাদারীপুর সরকারি নাজিমউদ্দিন কলেজের গণিত বিভাগের প্রভাষক রিপন চক্রবর্তীকে হত্যাচেষ্টার ঘটনায় জনতার হাতে আটক গোলাম ফাইজুল্লাহ ফাহিম বন্দুকযুদ্ধে মারা যাননি। ফাহিমকে পুলিশ হত্যা করেছে। আর এর সঙ্গে জড়িত আছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। কারণ তিনি দেশের স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর দায়িত্বে রয়েছেন।
লেবার পার্টির চেয়ারম্যান মোস্তাফিজুর রহমান ইরানের সভাপতিত্বে ইফতার মাহফিলে অংশ নেন- বিএনপির ভাইস চেয়ারম্যান আলতাফ হোসেন চৌধুরী, সেলিমা রহমান, চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা আমীর খসরু মাহমুদ চৌধুরী, মে. জে. (অব.) রুহুল আলম চৌধুরী, আহমদ আযম খান, ব্যারিস্টার শাহজাহান ওমর, এমএ মান্নান, ব্যারিস্টার হায়দার আলী, সাংগঠনিক সম্পাদক সৈয়দ এমরান সালেহ প্রিন্স, সহ-আইন বিষয়ক সম্পাদক তৈমুর আলম খন্দকার প্রমুখ। এছাড়া ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে সাবেক প্রো-ভিসি আ ফ ম ইউসুফ হায়দার, অস্ট্রেলিয়ার সাবেক ডেপুটি হাইকমিশনার টিম বোলোটনিক অফ, ২০ দলীয় জোটের শরিকদের মধ্যে জামায়াতের কর্ম পরিষদ সদস্য সেলিম উদ্দিন, অ্যাডভোকেট মশিউল আলম, জাগপা সভাপতি শফিউল আলম প্রধান, এনপিপি চেয়ারম্যান ড. ফরিদুজ্জামান ফরহাদ, এনডিপি চেয়ারম্যান খন্দকার গোলাম মুর্তজা, বাংলাদেশ ন্যাপের চেয়ারম্যান জেবেল রহমান গাণি, ন্যাপ ভাসানীর সভাপতি আজহারুল ইসলাম, এলডিপির সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিব শাহাদাত হোসেন সেলিম, জাতীয় পার্টি (কাজী জাফর) প্রেসিডিয়াম সদস্য আহসান হাবীব লিংকন, লেবার পার্টির মহাসচিব হামদুল্লাহ আল মেহেদী, খেলাফত মজলিসের নায়েবে আমির মুজিবুর রহমান পেশোয়ারী, পিপলস পার্টি মহাসচিব গরীবে নেওয়াজ, সাম্যবাদী দলের সম্পাদক মন্ডলীর সদস্য হানিফুল কবির, কল্যান পার্টির মহাসচিব এম এম আমিনুর রহমান, বিএনপির সাবেক এমপি আবদুল গফুর ভূঁইয়া, শিক্ষক কর্মচারী ঐক্যজোটের মহাসচিব জাকির হোসেন ও দেলওয়ার হোসেন সাঈদীর ছেলে শামীম সাঈদী প্রমুখ।