হালদা নদী থেকে বেপরোয়া ভাবে উঠানো হচ্ছে বালু

প্রকাশ:| সোমবার, ১১ জানুয়ারি , ২০১৬ সময় ০৮:১০ অপরাহ্ণ

বেপরোয়া বালি উত্তোলন
শফিউল আলম, রাউজান. হালদা নদীর বিভিন্ন পয়েন্ট থেকে মেশিনে বালু উঠানোর কারণে নদীর ভাঙ্গন ভয়াবহ পর্যায়ের দিকে যাচ্ছে। নদী থেকে রাতদিন অব্যাহত ভাবে বালু উঠিয়ে ওসব বালু ট্রাকে ট্রাকে পরিবহন করতে গিয়ে ধসে দিচ্ছে গ্রামীণ রাস্তারঘাট। এলাকার জনসাধারেণের সাথে কথা বলে জানা যায়, নির্বিচারে বালু উঠানোর কারণে নদীর পাড় ভেঙ্গে বিভিন্ন জায়গায় কৃত্রিম খালের সৃষ্টি হচ্ছে। নদীর ভাঙ্গন ভয়াবহতায় পরিবর্তন হচ্ছে গতিপথ। এলাকার লোকজনের মতে হালদা নদীটি এখন রাউজানের অভ্যন্তরে ডুকে পড়েছে। এই উপজেলার শত শত একর ফসলি জমি নদী গর্ভে তলিয়ে যাচ্ছে।
সরেজমিনে পরিদর্শন করে দেখা যায়, হালদার মোকানীপাড়া, কচুখাইন, নাপিতেরঘাট, বিনাজুরী এলাকায় ছোট বড় পাম্প মেশিন বসিয়ে নদীর কিনারা থেকে বালু টেনে উপড়ে উঠাচ্ছে। এই বালু প্রতিদিন ট্রাকে করে বিভিন্ন স্থানে সরবরাহ করা হচ্ছে। সূত্র জানিয়েছে স্থানীয় কিছু সন্ত্রাসী প্রকৃতির লোকজন এসব বালু উঠানোর ব্যবসায় জড়িত রয়েছে। অথচ হালদার ওসব স্পট থেকে বালু উঠানোর পক্ষে তাদের কাছে কোনো প্রতিষ্ঠানের বৈধ কাগজপত্র নেই। বিনাজুরী ইউনিয়নের ধীমান বড়–য়া অভিযোগ করেছেন পশ্চিম বিনাজুরী এলাকাটির প্রায় শতাধিক একর ফসলী জমি গত কয়েক বছরে নদীতে তলিয়ে গেছে। বিপরীতে চর জেগেছে হাটহাজারী উপজেলার দিকে। অভিযোগকারীরা বলেছেন হালদা পাড়ের বিভিন্নস্থানে কয়েকটি ব্রিকফিল্ড গত কয়েক বছর যাবত নদীর তীর কটে ইট তৈরীর মাটির জোগান দিচ্ছে। এভাবে মাটি কাটায় প্রতিটি ব্রিকফি-ের আশে পাশে প্রায় আধা কিলোমিটার এলাকায় পুকুর কুপ সৃষ্টি হয়েছে। বিনাজুরীর লোকজন বলেছেন তাদের এলাকার একটি ব্রিকফিল্ডের উৎপাত বন্ধ হয়েছে জনপ্রতিরোধে মুখে। তবে তারা আবারও উঃকন্ঠার মধ্যে পড়েছে বালু উঠানো সি-িকেট এর অপতৎপরতায়। জানা যায়,এখানে ব্রিক ফিল্ড বন্ধ করা হলেও এখানে উৎপাত শুরু করেছে বালু উঠানো সি-িকেট। এই সি-িকেটটি নদীতে মেশিন বসিয়ে এখানে বালু উঠাচ্ছে। এখান থেকে প্রতিদিন ট্রাকে বালু সরবরাহ দিতে গিয়ে গ্রামীণ রাস্তা ধসে দিচ্ছে। এই বালু সি-িকেটের নেতৃত্ব দিচ্ছে বিনাজুরী ইউপি সদস্য শ্যামল বড়–য়া নামের এক ব্যক্তি। পশ্চিম গহিরা এলাকার রতন বড়–য়া বলেছেন নদী থেকে অব্যাহভাবে বালু উঠানোর কারণে পশ্চিম গহিরার বড়–য়া পাড়ার বড় একটি অংশ নদী গর্ভে বিলিন হয়ে গেছে। পুরো পাড়াটি এখন ভাঙ্গনে যাওয়ার অপেক্ষায় রয়েছে। মৎস্য বিভাগ থেকে জানা যায়, হালদা নদী থেকে বেপরোয় ভাবে বালু উঠানোর কারণে হালদার প্রাকৃতিক মৎস্য সম্পদ এখন হুমকীর মধ্যে পড়েছে। রাউজান পরিবেশ দুষণ প্রতিরোধ আন্দোলনের সাধারণ সম্পাদক নুরুল আবছার বলেন খাল নদী থেকে অব্যাহত বালু উঠানোর কারণে পরিবেশের উপর হুমকির সৃষ্টি করেছে। তিনি মনে করেন পরিবেশের উপর অশুভ প্রভাব সৃষ্টিকারী চক্রসমূহকে চিহ্নীত করে অবিলম্বে আইনের আওতায় আনা জরুরী।