হাটহাজারীতে বিক্ষোভ মিছিল ও সমাবেশ করেছে হেফাজতে ইসলাম

প্রকাশ:| সোমবার, ২৫ নভেম্বর , ২০১৩ সময় ১১:০০ অপরাহ্ণ

মহানবী হযরত মুহাম্মদ(স.) এর বিরুদ্ধে ব্লগে নাস্তিকদের অপপ্রচার ও হেফাজতের আমির আল্লামা আহমদ শফীর বিরুদ্ধে কটুক্তির প্রতিবাদে সোমবার (২৫ নভেম্বর) বিকেলে বিক্ষোভ মিছিল ও সমাবেশ করেছে হেফাজতে ইসলাম বাংলাদেশ হাটহাজারী উপজেলা শাখা।২৫
মিছিলটি স্থানীয় ডাক বাংলো চত্তর থেকে শুরু হয়ে চট্টগ্রাম নাজির হাট ও রাঙমাটি রোড প্রদক্ষিন করে পুনারায় ডাকবাংলো চত্বর এসে শেষ হয়। মিছিল পূর্বসংক্ষিপ্ত সমাবেশে হেফাজতের নায়েবে আমির আল্লামা শামশুল আলমের সভাপতিত্বে ও হাটহাজারী হেফাজতের যুগ্ন সম্পাদক মাওলানা মাহমুদুল হাসানের পরিচালনায় বক্তব্য রাখেন মঈনুুদ্দিন রুহী,মাওলানা শহিদুল আনোয়ার ,মাওলানা মীর ইদ্রীস,মাওলানা জাকারিয়া নোমান ,মাওলানা নাছির উদ্দিন মুনির,এম.আহসান উল্লাহ্,মাওলানা জাহ্গাীর আলম মেহেদী, মাওলানা আলমগীর ,মাওলানা তৈহিদুল আনোয়ার , মাওলানা শফিউল্লাহ্ প্রমুখ ।
বক্তারা বলেন , হেফাজতে ইসলাম এদেশের দলমত নির্বিশেষে সর্বস্তরের মুসলমানদের একটি সম্পূর্ণ অরাজনৈতিক ঈমানী আন্দোলন। অত্যন্ত দুঃখজনক বাস্তবতা হলো, সরকার নাস্তিক-মুরতাদ ও তাদের দোসরদের প্রশ্রয় দিতে গিয়ে হেফাজতে ইসলামের অরাজনৈতিক আন্দোলনকে বারবার রাজনৈতিকভাবে আঘাত করেছে। আমরা মনে করি, সরকার অত্যন্ত ঠাণ্ডা মাথায় পরিকল্পিতভাবে হেফাজতে ইসলামকে রাজনৈতিক তকমা লাগিয়ে আবারও দেশে একটি বিস্ফোরনমূখ পরিস্থিতি সৃষ্টি করতে চায়। অন্যদিকে আবারও কতিপয় নাস্তিক-মুরতাদ নতুনভাবে ব্লগে মহান আল্লাহ ও বিশ্বনবী মুহাম্মাদুর রাসুলুল্লাহ সম্পর্কে জঘন্য ভাষায় নানা রকম লেখালেখি ও পোষ্ট দেওয়া শুরু করেছে। হেফাজতে ইসলাম ও নবীপ্রেমিক জনতার প্রাণের দাবি ১৩ দফা সম্পর্কে বিভ্রান্তি ছড়ানোর পাশাপাশি প্রতিনিয়ত নানাভাবে মিথ্যা, ভিত্তিহীন কথাবার্তা বলে সরকার আমাদেরকে তার বিরুদ্ধে অবস্থান নিতে বাধ্য করছে, সরকার দেশের কোটি কোটি নবী প্রমিক তৈহিদী জনতার প্রাণের দাবী সমূহ উপেক্ষা করে দিল্লিরতোষামোদ ও মনোরঞ্জনে ব্যস্ত । সরকারের এই ডিজিটাল তাঁবেদারীর জবাব বাংলার নবী প্রেমিক জনতা বেলটের মাধ্যমে দিবেন।
নেতৃবৃন্দ বলেন, মহাজোটের সরকার মহাচোরের সরকার। নাস্তিকদের দোসর বর্তমান সরকারের মন্ত্রী হেফাজতের আমির কে নিয়ে যে কুৎসা রটনা ও কল্প বেয়াদবী করছেন তাতে তাকে কোন ভদ্র মানুষ মনে হয় না । তার বক্তব্যে তাকে প্রমোদ বালক মনে হয়।