হাটহাজারীতে ঝুকিপূর্ণ ভবন নিয়ে নানা তালবাহানা

প্রকাশ:| সোমবার, ২৭ অক্টোবর , ২০১৪ সময় ১০:৫৫ অপরাহ্ণ

[two_fifth]
মোঃ মহিন উদ্দীন ঃ
হাটহাজারী উপজেলার বড়দিঘী পাড় এলাকার চট্টগ্রাম-হাটহাজারী মহাসড়কের পশ্চিম পাশে যে কয়েকটি বহুতল ভবন রয়েছে । তার মধ্যে নুরু আহমদ প্রকাশ ( নুরু সরদার) (৬০) নিজের জায়গায় একটি পাচতলা বিশিষ্ট ভবন নির্মাণ করে । বর্তমান এই ভবনে ৮ -১০ টি ভাড়াটিয়া পরিবার বসবাসরত রয়েছে । কিছু দিন অতিবাহিত হওয়ার পর ভবনটি উত্তর দিকে ঝুকে পড়ে । যে কোন সময় রানা প্লাজার মত ধসে পড়তে পারে ভবনটি । স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, এই ঝুকিপূর্ণ ভবনটির মালিক লোক দেখানোর জন্য তার পাচতলা বিশিষ্ট ভবনের পঞ্চম তলার আংশিক অংশ ভেঙ্গে ফেলে এবং তা ক্রমান্বয় ভাঙ্গা হবে বলে পার্শবতীদের জানান। কিন্তু এখনো পর্যন্ত নুরু গড়িমসি করে তার ভবনটি না ভাঙ্গার জন্য প্রভাবশালী ব্যক্তিবর্গের আশ্রয় গ্রহণ করে । সরেজমিনে পরিদর্শনে গেলে পার্শবতী ভবনের মালিকরা ঝুকিপূর্ণ ভবনটি নিয়ে সংশয় প্রকাশ করে । ভবনটির পঞ্চম তলার কিছু অংশ ভাঙ্গা এবং উত্তর দিকে সম্পূর্ণ ঝুকে গেছে যে কোন সময় মারাত্মক দূর্ঘটনা হওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে । এই বিষয়ে ভবনের মালিক(নুরু) কাছে তার মুঠোফোনে যোগাযোগ করলে তিনি এই প্রতিবেদককে কয়েকজন প্রভাবশালী রাজনৈতিক ও প্রশাসনিক ব্যক্তিবর্গের নাম উল্লেখ্য করে তাদের সাথে যোগাযোগ করতে বলে সংযোগ বিচ্ছিন্ন করে দেওয়ার কিছুক্ষণ পর হাটহাজারী থানা বিএনপির আহবায়ক কমিটির সদস্য সচিব সোলায়মান মনজু এই প্রতিবেদককে ফোন করে বলেন, নুরুকে ফোন করবেন না। এছাড়াও ঝুকিপূর্ণ ভবনের মালিকের(নুরু) যে কয়েকজনের নাম উল্লেখ্য করেন তার মধ্যে মেজর জে.অব.ইব্রাহিম এর নাম ও বলেন । তারপর তাকে ফোন করলে তিনি বলেন , আমি এ বিষয় সম্পর্কে কিছুই জানি না । হাটহাজারী আমার রাজনৈতিক এলাকা কিন্তু আমি কারো বিল্ডিং নিয়ে রাজনৈতি করি না । এ বিল্ডিং থাকবে কি থাকবে না তা আমার চিন্তার বিষয় না ?
এই ব্যাপারে সিডিএ চেয়ারম্যান আব্দুস ছালাম সাথে মুঠোফোনে যোগাযোগ করলে তিনি এই প্রতিবেদককে বলেন, এই বিষয় আমি অবগত নয় । তবে তদন্ত করে ভবন মালিকের বিরুদ্ধে অবশ্যই ব্যবস্থা নেওয়া হবে ।


আরোও সংবাদ