হাটহাজারীতে গায়ে আগুন দিয়ে গৃহবধু হত্যার অভিযোগ

প্রকাশ:| শনিবার, ১৪ জুন , ২০১৪ সময় ১১:২০ অপরাহ্ণ

হাটহাজারী প্রতিনিধি>>
হাটহাজারী উপজেলার পশ্চিম মির্জাপুর গ্রামে অগ্নিদগ্ধ হয়ে রীনা আক্তার(৩০) নামে এক গৃহবধুর মৃত্যু হয়েছে। নিহত রীনা মির্জাপুর মিয়ার বাপের বাড়ীর মো.ইসমাইলের স্ত্রী। শনিবার বিকেল সাড়ে তিনটায় চমেক হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা যান রীনা। তবে পারিবারিক কলহের জের ধরে রীনার শরীরে আগুন দিয়ে হত্যা করা হয়েছে বলে অভিযোগ করেন রীনার পরিবার। অপরদিকে রীনার স্বামীর পক্ষ বলছেন,সকালে রান্না ঘরে চুলার আগুন থেকে শাড়ীতে আগুন লাগে। আর এতে হাসপাতালে নিয়ে গেলে হাসপাতালে মৃত্যু ঘটে রীনার।

রীনার বাবার পক্ষ বলছেন, বেশ কিছুদিন যাবত তাদের মধ্যে পারিবারিক কলেহ চলছিল। এর জের ধরে রীনার শ্বশুরপক্ষ সকালে তার শরীরে আগুন দিয়ে হত্যা করেছে। তিনি এ ঘটনায় মামলা দায়েরের প্রস্তুতি চলছে বলেও উল্লেখ করেন তারা।

অন্যদিকে শ্বশুর পক্ষ বলছেন,সকাল নয়টায় রান্না করতে অসাবধানতা বশত চুলা থেকে রীনার শাড়ীতে আগুন লাগে। পরবর্তীতে পরিবারের সদস্যরা তাকে চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজের বার্ণ ইউনিটে ভর্তি করান। চিকিৎসাধীন অবস্থায় সেখানে বিকেল সাড়ে তিনটায় মারা যায় রীনা।
চমেক হাসপাতালের বার্ণ ইউনিটের কর্তব্যরত চিকিৎসক ডা.মিসমা ইসলাম বলেন,চিকিৎসাধীন অবস্থায় দুপুরে রীনার মুত্যু ঘটে।
হাটহাজারী থানার উপ পরিদর্শক(এসআই) মো.রফিক বলেন,আমরা রীনার শ্বশুড় বাড়ীর সদস্যদের সাথে সরেজমিন কথা বলেছি। মেয়ের পরিবার বলছে আগুন দিয়ে হত্যা করা হয়েছে। আর ছেলের পক্ষ বলছে চুলার আগুন থেকে অগ্নিদগ্ধ হয়ে রীনা মারা গেছে। অভিযোগ পেলে তদন্ত সাপেক্ষে ব্যবস্থঅ গ্রহন করা হবে।
গত আট বছর পূর্বে উপজেলার নাঙ্গলমোড়া ইউনিয়নের নজির আহমদ সওদাগর বাড়ীর দুদু মিয়ার মেয়ে রীনা আক্তারের সাথে বিয়ে হয় মির্জাপুর গ্রামের মিয়ার বাপের বাড়ীর তনজু মিয়ার পুত্র মো.ইসমাইলের সাথে। রীনার সাত বছরের একটি ছেলে রয়েছে।