হাজী সেলিম অশিক্ষিত টোকাই, মূর্খ: ছাত্রলীগ

প্রকাশ:| মঙ্গলবার, ১১ ফেব্রুয়ারি , ২০১৪ সময় ১১:২৮ অপরাহ্ণ

জাতীয় সংসদে গত ১০ই ফেব্রুয়ারি সতন্ত্র সংসদ সদস্য হাজী মোহাম্মদ সেলিমের ‘শিবির রগ কাটে আর ছাত্রলীগ মাথা কাটে’ মন্তব্যের প্রতিবাদ ও নিন্দা জানিয়েছে ছাত্রলীগ। ছাত্রলীগ কেন্দ্রীয় নির্বাহী সংসদের সভাপতি এইচএম বদিউজ্জামান সোহাগ এবং সাধারণ সম্পাদক সিদ্দিকী নাজমুল এক বিবৃতিতে জাতীয় সংসদে প্রদত্ত এই বক্তব্য এক্সপাঞ্জ ও ঐতিহ্যবাহী সংগঠন ছাত্রলীগকে জড়িয়ে ঔদ্বত্যপূর্ন মন্তব্য করায় সংসদ সদস্য সেলিমকে জাতির কাছে ক্ষমা চাওয়ার আহবান জানান। বিবৃতিতে হাজী সেলিমের সমালোচনা করে তারা বলেন, তিনি জামায়াত শিবিরের সঙ্গে ছাত্রলীগকে তুলনা করে প্রমাণ করেছেন তিনি একজন অশিক্ষিত মূর্খলোক। ৫ই জানুয়ারি অনুষ্ঠিত সংসদ নির্বাচনে লালবাগ, কতোয়ালি, চকবাজার এলাকায় ছাত্রলীগ আওয়ামী লীগ সমর্থিত ছাত্রলীগের সাবেক সভাপতি ডা. মোস্তফা জালাল মহিউদ্দিনের পক্ষে কাজ করায় ছাত্রলীগ নিয়ে হাজী সেলিমের এই আক্রোশ ও বিষোদগার বলে মন্তব্য করেন তারা। হাজী সেলিম একজন দখলদার উল্লেখ করে বিবৃতিতে ছাত্রলীগ সভাপতি ও সাধারন সম্পাদক বলেন, তার নেতিবাচক কর্মকান্ড যেন এক নষ্ট উপাখ্যান। ইমামগঞ্জ, বাবুবাজার, পোস্তা, চকবাজার, ইসলামপুরসহ বিভিন্ন এলাকায় মদিনা ডেভেলপার হাউজিং এর নামে বাড়ি ও জমি দখল করেছেন। শহিদনগরে বাড়ি ও জমি দখল করেছেন। এছাড়া গুলশান টাওয়ার, হাজী সেলিম টাওয়ারসহ বিভিন্ন জায়গা অবৈধভাবে দখল করে তিনি আজ সাধু সেজেছেন। বর্তমানে আজিমপুর-চকবাজার এলাকায় বাসষ্ট্যান্ড, অটোটেম্পু স্ট্যান্ড ও ফুটপাত দখল করেছেন। বিবৃতিতে ছাত্রলীগের কেন্দ্রীয় দুই নেতা উল্লেখ করেন, হাজী সেলিম ব্যক্তিগত জীবনে একজন অশিক্ষিত টোকাই। তিনি এলাকার সাবেক সাংসদ ও বিএনপি নেতা নাসিরউদ্দিন আহমেদ পিন্টুর সহযোগী, ফাঁসি কার্যকর হওয়া কুখ্যাত খুনি এরশাদ শিকদারের ঘনিষ্ট বন্ধু। এরশাদ শিকদারকে বাঁচানোর নামে তার কাছ থেকে প্রায় সাড়ে আট কোটি টাকা ঘুষ নিয়েছিলেন। যিনি স্কুলের গন্ডি পার হতে পারেননি কিংবা ‘ছাত্র’ শব্দটির সঙ্গে পরিচিত নন, যিনি বাংলাদেশ ও ছাত্রলীগের ইতিহাস জানেন না তার মুখে ছাত্রলীগের সমালোচনা মানায় না। বিবৃতিতে তারা বলেন, সাম্প্রতিক সময়ে গণমাধ্যমের সামনে ছাত্রলীগের সমালোচনা করা ‘হালের ফ্যাশন’- এ পরিণত হয়েছে। ছাত্রলীগ একটি ঐতিহ্যবাহী ও মহান মুক্তিযুদ্ধে অন্যতম ভূমিকা পালনকারী ছাত্রসংগঠন। এই সংগঠনের ভালমন্দ নিয়ে কথা বলা, সমালোচনা করা ও দিকনির্দেশনা দেয়ার অধিকার তাদেরই যারা শিক্ষানুরাগী ও মুক্তিযুদ্ধের চেতনাধারণকারী।