হাকালুকি হাওরে ২১ হাজার ৬৩১টি জলচর পাখি

প্রকাশ:| রবিবার, ২২ ফেব্রুয়ারি , ২০১৫ সময় ০৯:২৬ অপরাহ্ণ

প্রতি বছেরের মতো এবারও পরিযায়ীদের কলকাকলিতে মুখরিত হাকালুকি হাওর। চলতি শীত মৌসুমে এ হাওরে দেখা গেছে ৫৬ প্রজাতির ২১ হাজার ৬৩১টি জলচর পাখি বিচরণ।
হাকালুকি
বাংলাদেশ বার্ড ক্লাব আয়োজিত ১৬ এবং ১৭ ফেব্রুয়ারি দু’দিনব্যাপী পাখিশুমারিতে এ তথ্য পাওয়া যায়।

এছাড়াও ১৮ ফেব্রুয়ারি থেকে ২৪ ফেব্রুয়ারি পর্যন্ত চলবে বার্ড রিংগিং কার্যক্রম। অর্থাৎ, পাখির পায়ে রিং পরানোর কাজ। হাকালুকিতে মোট বিলের সংখ্যা ২৭৬টি। এই পরিসংখ্যান মতে এটিই দেশের বৃহত্তম জলাভূমি।

বাংলাদেশ বার্ড ক্লাবের প্রতিষ্ঠাতা সভাপতি ও বরেণ্য পাখি বিশেষজ্ঞ ইনাম আল হকের নেতৃত্বে ১৮ সদস্যের একটি দল হাকালুকি হাওরের ৩৩টি বিলে এই শুমারি চালিয়েছে। এই সংখ্যাটি গতবারের চেয়ে কিছু কম। গত বছরের ৬০ প্রজাতির ২৩ হাজার ৪২টি পরিযায়ী পাখি দেখা গিয়েছিল।

বার্ড রিংগার ও বাংলাদেশ বার্ড ক্লাবের ট্রেজারার ওমর শাহাদাত বলেন, সবচেয়ে বেশি সংখ্যক পাখি দেখা গেছে যে পাঁচটি বিলে যেগুলো হলো চালতা, চোকিয়া, পিংলা, কোয়েরকোণা ও হাওরবন্যা।

চালতা বিলে ৪ হাজার ১৭৮টি, চোকিয়া বিলে ২ হাজার ১৩২টি, পিংলা বিলে দুই হাজার ৬৩টি, কোয়েরকোণা বিলে ১ হাজার ৪৮৩টি এবং হাওরবন্যা বিলে ১ হাজার ১০৮টি।
হাকালুকি1
তিনি বলেন, সবচেয়ে বেশি যে পাঁচটি প্রজাতির পাখি দেখা গেছে, সেগুলো হচ্ছে শামখোল (Asian Openbill) ৪ হাজার ৯২৮টি, ছোট পানকৌড়ি (Little Cormorant) ১ হাজার ৯৪৭টি, পিয়াং হাঁস (Galwall) ১ হাজার ৬৯৯টি, মরচে রং ভূতিহাঁস (Ferruginous Pochard) ১ হাজার ৫৮৯টি এবং পাতি কুট (Eurasian Coot) ১ হাজার ৪৮০টি।

ওমর শাহাদাত আরও বলেন, এছাড়া উল্লেখযোগ্য যে সব পাখি দেখা গেছে যেগুলো হলো কালাঘাড় মানিকজোড় (Black-necked Stork) ১টি, ফুলুরি হাঁস (Falcated Duck) ৪টি, উত্তুরে টিটি (Northern Lawping) ২৪টি, খয়রা কাস্তেচরা (Glossy Ibis) ২৭টি এবং প্রশান্ত সোনাজিরিয়া (Golden Plover) ৩৬৬টি। যে বিলগুলো পাখির বিচরণ বেশি সেখানেই আমরা পাখিশুমারি করেছি। এখন চলছে বার্ড রিংগিং এর কাজ।