হাইকোর্টের নির্দেশে পটিয়ায় ৬টি শিল্পপ্রতিষ্ঠানকে সিলগালা

প্রকাশ:| সোমবার, ২৩ নভেম্বর , ২০১৫ সময় ০৮:৪১ অপরাহ্ণ

পটিয়া সিলগালা

পটিয়া প্রতিনিধি॥ পটিয়ায় মহামান্য হাইকোর্টের নির্দেশে পরিবেশ দূষন এবং গভীর নলকূপ বসানোর অভিযোগে ৬ টি শিল্পপ্রতিষ্ঠানকে সিলগালা করেছে পরিবেশ অধিদপ্তর। বুধবার সকাল ১১ টা থেকে বিকেল ৫ টা পর্যন্ত উপজেলার এ অভিযানে নেতৃত্ব দেন পরিবেশ অধিদপ্তরের চট্টগ্রাম বিভাগের পরিচালক মকবুল হোসাইন। এসময় উপস্থিত ছিলেন পটিয়া উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান অধ্যাপক মোজাফফর আহমদ চৌধুরী টিপু, উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা রোকেয়া পারভীন, সহকারী কমিশনার (ভূমি) গৌতম বাড়ৈ, হাবিলাসদ্বীপ ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান শফিকুল ইসলাম, উপজেলা জনস্বাস্থ্য প্রকৌশলী ঋত্বিক চৌধুরী প্রমুখ।

জানা যায়, চলতি বছরের ২৯ জানুয়ারী মহামান্য হাইকোর্ট-এ বেলা নামের একটি পরিবেশবাদী সংগঠন পটিয়ার ৬ টি শিল্পপ্রতিষ্ঠানের বিরুদ্ধে পরিবেশ দূষনের অভিযোগে একটি রিট দায়ের করেন। তারই প্রেক্ষিতে গত ২২ নভেম্বর হাইকোর্টের বিচারপতি মির্জা হোসেন হায়দার ও বিচারপতি এ.কে. এম জহিরুল হকের সমন্বয়ে গঠিত ১১ নং বেঞ্চে এই রিটের শুনানী হয়। শুনানী শেষে মহামান্য আদালত ২৪ ঘন্টার মধ্যে অভিযুক্ত সব শিল্প প্রতিষ্ঠানগুলোতে শিল্প বর্জ্য শোধনাগার (ইটিপি) না থাকলে এবং থাকলেও তা পরিবেশ অধিদপ্তরের অনুমোদন না থাকলে সেসব প্রতিষ্ঠানগুলোকে বন্ধ করার জন্য পরিবেশ অধিদপ্তরকে নির্দেশ দেয়। এরই প্রেক্ষিতে পরিবেশ অধিদপ্তর সোমবার সকাল থেকে উপজেলার ৬টি শিল্প প্রতিষ্ঠানের মধ্যে মোস্তফা পেপার মিল, আম্বিয়া নিটিং এন্ড ডায়িং পেপার মিল, আনোয়ারা পেপার মিল সিলগালা করে এবং হক্কানী পেপার মিল, বনফুল এন্ড কোং এবং শাহ আমানত নিটিং এন্ড ডায়িং মিলস এ গভীর নূলকূপ সিলগালা করে দেয়া হয়।

অভিযান শেষে গনমাধ্যমকর্মীদের দেয়া এক প্রেস ব্রিফিংয়ে পরিবেশ অধিদপ্তরের পরিচালক মকবুল হোসাইন সাংবাদিকদের জানান, বেলা নামের একটি সংগঠন হাইকোট-এ রিট দায়ের করলে মহামান্য হাইকোর্টের নির্দেশে ৬ শিল্প প্রতিষ্ঠানের মধ্যে তিনটি পেপার মিল সম্পূর্ণ সিলগালা এবং তিনটি প্রতিষ্ঠানের গভীর নলকূপ গুলো সিলগালা করে দেয়া হয়।