হরতাল দিয়ে রায় বদলানো যায় না

প্রকাশ:| মঙ্গলবার, ১৩ আগস্ট , ২০১৩ সময় ০৮:৩৯ অপরাহ্ণ

হরতাল বা সভা-সমিতি করে রায় বদলানো যায় না বলে মন্তব্য করেছেন আইনমন্ত্রী ব্যারিস্টার শফিক আহমেদ।shafique_16069

আদালতের রায়ের বিরুদ্ধে হরতাল ডাকায় জামায়াতে ইসলামীর সমালোচনা করে তিনি বলেন, হাইকোর্ট বা কোনো আদালত কোনো রায় দিলে তা সবারই মেনে নেয়া উচিত। রায়ের বিরুদ্ধে আপিলের ব্যবস্থা আছে। আপিল বিদ্যমান থাকা অবস্থায় বা আপিলের রায় আসার পর বা কোনো রায়ের পর এর বিরুদ্ধে হরতাল ও রাস্তায় বিশৃঙ্খলা সৃষ্টি আইনের শাসনের পরিপন্থী বলেও উল্লেখ করেন তিনি।

আজ মঙ্গলবার সকালে বিচার প্রশাসন প্রশিক্ষণ ইনস্টিটিউটে সর্বশেষ নিয়োগ পাওয়া বিচারকদের একটি প্রশিক্ষণ কর্মশালার উদ্বোধনের পর আইনমন্ত্রী এসব কথা বলেন।

জুডিশিয়াল সার্ভিসের ষষ্ঠ ব্যাচের ৩৫জন বিচারক বিচার প্রশাসন প্রশিক্ষণ ইনস্টিটিউটের এই প্রশিক্ষণে অংশ নিচ্ছেন। আগামী ১২ অক্টোবর পর্যন্ত এই প্রশিক্ষণ চলবে।

গত ১ অগাস্ট এক রিট আবেদনের রায়ে হাই কোর্ট রাজনৈতিক দল হিসাবে নির্বাচন কমিশনে জামায়াতে ইসলামীর নিবন্ধন অবৈধ ও বাতিল ঘোষণা করার পর মঙ্গল ও বুধবার টানা ৪৮ ঘণ্টার হরতাল ডাকে জামায়াত।

আইনমন্ত্রী বলেন, আইনের শাসনের ওপর গণতন্ত্র নির্ভর করে। আইনের শাসনের ভিত হচ্ছে বিচার বিভাগের স্বাধীনতা। এর ওপর সবার আস্থা থাকতে হবে। নয়তো গণতান্ত্রিক ব্যবস্থা ও গণতন্ত্রের প্রাতিষ্ঠানিকীকরণ এগিয়ে যেতে পারে না।

তিনি বলেন, এক কথায় বলা যায়, আইনের শাসন ও বিচার বিভাগের স্বাধীনতা রক্ষা করতে বিচারকদেরকে স্বাধীনভাবে কাজ করতে দিতে হবে। হরতাল বা সভা সমিতি করে রায় বদলানো যায় না।

হরতালের নামে অরাজকতা বা সংহিসতা সৃষ্টি করা হলে জনগণ তা প্রতিহত করবে বলেও মন্তব্য করেন আইনমন্ত্রী।