সড়ক বাতির সুইচ অন অফকারী, ঈমাম, মুয়াজ্জিন ও পুরোহিতদের মাঝে সম্মানী দিলেন মেয়র

প্রকাশ:| শনিবার, ১৯ জুলাই , ২০১৪ সময় ১১:৪২ অপরাহ্ণ

মেয়রসিটি মেয়র আলহাজ্ব মোহাম্মদ মনজুর আলম বলেছেন, ঈমাম, মুয়াজ্জিন ও পুরোহিতগন সমাজের অতিব গুরুত্বপূর্ণ প্রতিনিধি। প্রতিদিন প্রতি ওয়াক্ত নামাজ, জুমার নামাজ ও মন্দিরে আরাধনায় আগতদের সাথে ঈমান, মুয়াজ্জিন ও পুরোহিতদের সাক্ষাত হয়। এ সময় তাদেরকে সিটি কর্পোরেশনের বর্জ্য ব্যবস্থাপনায় সচেতন করার জন্য মেয়র অনুরোধ করেন। তিনি বলেন, যত্রতত্র, নালা-নর্দমা, খালে-বিলে, সড়ক ও জনপথে যখন-তখন আবর্জনা ফেলার কারণে জলাবদ্ধতা সৃষ্টি হয়ে নাগরিক জীবনে দূর্ভোগ ডেকে আনে। নাগরিকগন এ বিষয়ে সজাগ ও সচেতন হলে জলাবদ্ধতা অনেকাংশে কমে যাবে। বিদ্যুৎ ও অর্থ সাশ্রয়ে ঈমাম, মুয়াজ্জিন ও পুরোহিতদের সহযোগিতার জন্য মেয়র তাদের ধন্যবাদ জানান। ১৯ জুলাই ২০১৪খ্রি: ২১ রমজান শনিবার সকালে নগরীর থিয়েটার ইনস্টিটিউট হল রুমে চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশনের সড়ক বাতির সুইচ অন-অফকারী ঈমাম, মুয়াজ্জিন ও পুরোহিতদের মাঝে সম্মানী ভাতা প্রদান অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির ভাষনে মেয়র এসব কথা বলেন।
সম্মানী ভাতা প্রদান অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশনের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা আলী আহমেদ। এতে প্যানেল মেয়র লায়ন মোহাম্মদ হোসেন, কাউন্সিলর জহর লাল হাজারী, কাউন্সিলর মো. গিয়াসউদ্দিন, সচিব রশিদ আহমদ, মেয়রের একান্ত সচিব মো. মনজুরুল ইসলাম, তত্ত্বাবধায়ক প্রকৌশলী মাহফুজুল হক, সহকারী প্রকৌশলী বিবেক কান্তি দাশ, ঝুলন কুমার দাশ, জামাল উদ্দিন, রেজাউল বারী সহ সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তগন উপস্থিত ছিলেন। পরে মেয়র ঈমাম, মুয়াজ্জিন ও পুরোহিতদের হাতে হাতে সম্মানী ভাতা তুলে দেন। উল্লেখ্য যে, নগরীর ৪১টি ওয়ার্ডে ১৪৪২টি সুইচের মাধ্যমে সড়ক বাতি অন-অফ করা হয়। এ কাজে ১৪৪২জন দায়িত্ব পালন করেন। প্রতিজনকে মাসিক ১ শত ৫০ টাকা করে বছরে ১ হাজার ৮শত টাকা প্রদান করা হয়। ২০১৪ সনে ২৫ লক্ষ ৯৫ হাজার ৬ শত টাকা এ কাজে ব্যয় হলো। ঈমাম, মুয়াজ্জিন ও পুরোহিতদের মাধ্যমে সুইচ অন-অফ করার কারণে বিদ্যুৎ সাশ্রয়, জনশক্তি সাশ্রয় হচ্ছে। ফলে চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশন প্রতি বছর ১ কোটি ৭৪ লক্ষ ৩ হাজার ৭৫ টাকা সাশ্রয় করছে।

নগরীর ৪১টি ওয়ার্ডের ৪১টি মসজিদে মেয়রের ইফতারী বিতরণ

চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশনের মেয়র আলহাজ্ব মোহাম্মদ মনজুর আলম আলহাজ্ব মোস্তফা-হাকিম ওয়েলফেয়ার ফাউন্ডেশনের উদ্যোগে নগরীর জমিয়তুল ফালাহ জাতীয় মসজিদ, আন্দরকিল্লা শাহী জামে মসজিদ, আরেফিন নগর জামে মসজিদ, বান্ডেল সেবক ফলোনী জামে মসজিদ সহ নগরীর ৪১টি ওয়ার্ডে ৪১টি মসজিদে রোজাদার মুসল্লিদের ইফতারী বিতরণ করেন। ১ রমজান থেকে ৩০ রমজান পর্যন্ত এ কর্মসূচি চলমান থাকবে। ২০ রমজান পর্যন্ত প্রতিদিন ৪টি মসজিদে এবং প্রতি বৃহস্পতিবার জমিয়তুল ফালাহ জামে মসজিদে ইফতারী বিতরণ করা হয়। এ সকল ইফতারী মেয়রের পক্ষে আলহাজ্ব মোস্তফা-হাকিম ওয়েলফেয়ার ফাউন্ডেশনের পরিচালনাগন বিতরণ করেন।