সড়ক বন্ধ করে প্রভাবশালীর বাড়ির গেইট! চরম দুর্ভোগে এলাকাবাসী

প্রকাশ:| শনিবার, ১৫ মার্চ , ২০১৪ সময় ০৭:৫২ অপরাহ্ণ

মিরসরাই সংবাদদাতা :::
চট্টগ্রামের মিরসরাইয়ে জনগুরুত্বপূর্ণ একটি সড়ক দখল করে বাড়ির গেইট নির্মাণ করেছে একটি প্রভাবশালী পরিবার। জনসাধারণের দীর্ঘদিনের চলাচলের রাস্তার দুইপ্রান্ত বন্ধ করে দেওয়া হয়েছে বলেও অভিযোগ উঠেছে। এতে এলাকার লোকজন ও স্কুল-কলেজ পড়–য়া শিক্ষার্থীরা পড়েছেন চরম দুর্ভোগে। বিষয়টি গ্রামের ভুক্তভোগী লোকজন স্থানীয় জনপ্রতিনিধি ও উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার কাছে লিখিত অভিযোগ দিলেও কোন প্রতিকার মেলেনি।
এলাকাবাসী সূত্রে জানা গেছে, সড়ক দখলদার পরিবারটি এলাকায় দোর্দন্ড প্রতাপশালী হওয়ায় কেউই তাদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নিচ্ছে না। উপরন্ত এলাকাবাসীর সমস্যা নিস্পত্তি করতে গিয়ে লাঞ্চিত হয়েছেন স্থানীয় ইউপি সদস্যরাও।
জানা গেছে, উপজেলার ১০ নম্বর মিঠানালা ইউনিয়নের আলী রাজা ভূঁইয়া নামের সড়কটি অর্ধশত বছরের পুরোনো। এটির দৈর্ঘ্য প্রায় ১ কিলোমিটার। দীর্ঘকাল ধরে সড়কটি ব্যবহার করে আসছে স্থানীয় তিন গ্রামের মানুষ। গত ২১ ফেব্রুয়ারি স্থানীয় মনসুর আহম্মদের পরিবার ভাড়াটে লোকজন এনে জোরপূর্বক সড়কের দুই প্রান্তে গেইট এবং টিনের ভেড়া দিয়ে বন্ধ করে দেয়। এ কারনে ইউনিয়নের হাদিমুসা, রাজাপুর ও মিঠানালা গ্রামের সাধারণ লোকজন ও স্কুল-কলেজ পড়–য়া শিক্ষার্থীরা পড়েছেন বিপাকে। সড়ক বন্ধ থাকায় বাধ্য হয়ে কৃষি জমির আলপথ দিয়ে যাতায়াত করছে।
গ্রামের ভুক্তভোগী বাসিন্দা লুৎফর নাহার জানান, সড়কটি জোরপূর্বক বন্ধ করে দেওয়ার পর আমরা প্রায় গৃহবন্ধি হয়ে আছি।
গ্রামের আরেক বাসিন্দা নাছির উদ্দিন অভিযোগ করেন, দখলকারী ওই প্রভাবশালী পরিবারের লোকজনের কাছে আমরা জিম্মি হয়ে পড়েছি। উপায়ন্ত না পেয়ে স্থানীয় ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান, সদস্য ও উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার কাছে লিখিত অভিযোগ দিয়েও কোন প্রতিকার পাইনি।
সড়ক বন্ধ করে দেওয়া প্রসঙ্গে দখলদার মনসুর আহম্মদের ছেলে রাশেদুল করিম বলেন, সড়কের জায়গা আমাদের ক্রয়কৃত সম্পত্তি। একসময় ভুলক্রমে সরকারের ১ নম্বর খাস খতিয়ানে থাকলেও বর্তমানে এটি আমাদের নামে বিএস সৃজন করা হয়েছে। তাই আমরা সড়কটির দুইপাশ বন্ধ করে দিয়েছি।’
এ প্রসঙ্গে মিঠানালা ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান এসএম তাহের ভূঁইয়া জানান, সম্পূর্ণ অন্যায়ভাবে মনসুর আহম্মদের পরিবার সড়কটি দখল করেছে। এটি সরকারি অর্থায়নে নির্মিত একটি জনগুরুত্বপূর্ণ একটি সড়ক। সড়কে দখল উচ্ছেদ করতে গেলে মনসুর আহম্মদের লোকজন আমার ইউনিয়ন পরিষদের ৩ জন সদস্যকে লাঞ্চিত করে।
চেয়ারম্যান আরো জানান, ৬০’র দশক থেকে এ সড়কে ইউনিয়নের ৩টি গ্রামের জনগণ চলাফেরা করে। স্বাধীনতার পর বিভিন্ন সময় সরকারি অর্থায়নে সড়কে পাকা ব্রীজ নির্মাণ এবং সংস্কারের কাজ করানো হয়েছে। জনগণের চলাচলের গুরুত্ব বিবেচনা করে সম্প্রতি এলজিএসপির অর্থায়নে এ সড়কের সাড়ে ৩শ ফুট এলাকা ব্রীক সলিং করা হয়েছে।
মিরসরাই উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মুহম্মদ আশরাফ হোসেন জানান, এ বিষয়ে এলাকাবাসীর একটি লিখিত অভিযোগ পেয়েছি। সরেজমিন গিয়ে দায়ি ব্যক্তিদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়া হবে।’