সড়ক পরিবহন শ্রমিক ফেডারেশনের সমাবেশ

প্রকাশ:| মঙ্গলবার, ২ মে , ২০১৭ সময় ০৫:৫৩ অপরাহ্ণ

মহান মে দিবস উপলক্ষে গতকাল ১ মে সোমবার বিকেলে বাংলাদেশ সড়ক পরিবহন শ্রমিক ফেডারেশন চট্টগ্রাম আঞ্চলিক কমিটির উদ্যোগে চট্টগ্রাম কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারে বিশাল পরিবহন শ্রমিক সমাবেশ ও লাল পতাকা মিছিল অনুষ্ঠিত হয়। মে দিবস উদ্যাপন কমিটির আহ্বায়ক রবিউল মাওলা’র সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত সমাবেশে প্রধান অতিথি ছিলেন, বাংলাদেশ সড়ক পরিবহন শ্রমিক ফেডারেশন পূর্বাঞ্চল (চট্টগ্রাম ও সিলেট বিভাগ) কমিটির সভাপতি মৃণাল চৌধুরী। বিশেষ অতিথি ছিলেন, বাংলাদেশ সড়ক পরিবহন শ্রমিক ফেডারেশন চট্টগ্রাম বিভাগীয় কমিটির সভাপতি হাজী রুহুল আমিন। বক্তব্য রাখেন, বাংলাদেশ সড়ক পরিবহন শ্রমিক ফেডারেশন চট্টগ্রাম আঞ্চলিক কমিটির সভাপতি মোহাম্মদ মুছা, সাধারণ সম্পাদক অলি আহমদ, মে দিবস উদ্যাপন কমিটির সদস্য সচিব হাজী আবদুস ছবুর, হাজী আবদুল নবী লেদু, হুমায়ুন কবির, শফিকুর রহমান, মোঃ ইউছুফ, হারুনুর রশিদ, মোঃ হারুন, মোঃ জাফর, নুর হোসেন, মোঃ ইউনুছ, দৌলত মিয়া, নুরুল ইসলাম, জহিরুল ইসলাম, জাহেদ হোসেন, খলিলুর রহমান, নজরুল ইসলাম, জসিম উদ্দিন রানা, জানে আলম, দিলীপ সরকার, মোঃ ইয়াছিন, নুর মোহাম্মদ, মোঃ সেলিম, নুরুল হক পুতু, মোঃ শফি, মোঃ হাসান, ফরিদ আহমদ, ছিদ্দিক আহমদ, আবদুল মালেক, মনছুর আলম প্রমুখ নেতৃবৃন্দ। সমগ্র অনুষ্ঠানটি পরিচালনা করেন, বাংলাদেশ সড়ক পরিবহন শ্রমিক ফেডারেশন চট্টগ্রাম আঞ্চলিক কমিটির সহ-সাধারণ সম্পাদক মোঃ আবদুর রহিম। সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে মৃণাল চৌধুরী খসড়া পরিবহন আইন-২০১৭ প্রত্যাহারের দাবী জানিয়ে বলেন, দূর্ঘটনার জন্য এককভাবে পরিবহন শ্রমিককে দায়ী করা যাবে না। দূর্ঘটনার বহু কারণ রয়েছে। পরিবহন সেক্টর মানে বহু পক্ষ জড়িত। শ্রমিক পক্ষের মতো সকল পক্ষের দায়-দায়িত্বও রয়েছে। তিনি বলেন, ফাঁসি বা যাবতজীবন শাস্তি দিলে সমাজে যেমন খুন, ধর্ষন কমে না তেমনি পরিবহন শ্রমিককে শাস্তি ও জরিমানা বাড়ালে সড়ক দূর্ঘটনা কমবে না। প্রয়োজন সম্মিলিত উদ্যোগ ও সমন্বিত পরিকল্পনা। বিশেষ অতিথির বক্তব্যে হাজী রুহুল আমিন বলেন, প্রয়োজনে পরিবহন শ্রমিকেরা লাইসেন্স জমা দেবে, পেশা পরিবর্তন করবে তারপরও ফাঁসির রশি গলার নিয়ে গাড়ী চালাবে না। বাংলাদেশ সড়ক পরিবহন শ্রমিক ফেডারেশন চট্টগ্রাম আঞ্চলিক কমিটির সভাপতি মোহাম্ম মুছা বলেন, চাকুরীর অন্যতম শর্ত হলো নিয়োগপত্র। নিয়োগপত্র না পাওয়ার কারণে পরিবহন শ্রমিকেরা সরকার ঘোষিত কল্যাণ তহবিল থেকে বঞ্চিত হচ্ছে। তিনি বলেন, প্রতিদিন শত শত বৈধ গাড়ীর পাশাপাশি হাজার হাজার অবৈধ গাড়ী রাস্তায় চলাচলের সুযোগ পাচ্ছে। সড়ক ব্যবস্থার দায়িত্বরত ব্যক্তিদের ঘুষ, দুর্নীতি বন্ধ না হলে সড়ক দূর্ঘটনা কমবে না। তিনি অনতিবিলম্বে খসড়া পরিবহন আইন-২০১৭ বাতিলের দাবী জানান। সমাবেশ শেষে একটি লাল পতাকা মিছিল নগরীর গুরুত্বপূর্ণ সড়ক প্রদক্ষিণ করে বিআরটিসি মোড়ে গিয়ে শেষ হয়।