সড়ক উন্নয়ন: এডিপির ১৬ লক্ষ টাকা লোপাটের অভিযোগ

প্রকাশ:| সোমবার, ৭ সেপ্টেম্বর , ২০১৫ সময় ০৯:১৭ অপরাহ্ণ

পেকুয়া
মুহাম্মদ গিয়াস উদ্দিন, পেকুয়া
কক্সবাজারের পেকুয়া উপজেলায় সড়ক উন্নয়নের কাজ না করেই এডিপি‘র (বার্ষিক উন্নয়ন কর্মসূচী) ১৬লক্ষাধিক টাকা লোপাটের অভিযোগ উঠেছে। তবে লোপাটের অভিযোগ সরাসরি অস্বীকার করেছেন পেকুয়া উপজেলা প্রকৌশলী মো. জাহেদুল আলম চৌধুরী। এ নিয়ে পুরো উপজেলায় তোলপাড় সৃষ্টি হয়েছে।

সংশ্লিষ্ট দফতরে খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, বার্ষিক উন্নয়ন কর্মসূচী (এডিপি থোক বরাদ্দ) এর আওতায় পেকুয়া উপজেলা প্রকৌশলীর কার্যালয় উপজেলার মগনামা আরএইচডি সড়ক হইতে মগনামা হাইস্কুল সড়ক আরসিসি দ্বারা উন্নয়নের জন্য চলতি বছরের জুন মাসের শেষের দিকে তড়িগড়ি করেই দরপত্র আহবান করেছিল। সড়কটি উন্নয়নের জন্য সর্বমোট ১৬লাখ ৪৬হাজার এক টাকা বরাদ্দ দেওয়া হয়। আর ওই কাজ বাস্তবায়নের জন্য কার্যাদেশ পান চট্টগ্রামের বাঁশখালীর উপজেলার ‘জনসেবা’ নামক একটি ঠিকাদারী প্রতিষ্টান। কার্যাদেশ পাওয়ার ৭দিনের মধ্যে ওই কাজটি বাস্তবায়নের নির্দেশনা থাকলেও গত ২মাসেও বাস্তবায়ন হয়নি।

সোমবার (৭সেপ্টেম্বর) সকালে সরেজমিনে মগনামার ওই সড়কে গিয়ে উন্নয়ন কাজের কোন ধরনের অস্তিত্ব খোঁজে পাওয়া যায়নি। স্থানীয়রা জানান, মগনামা আরএইচডি সড়কটি দীর্ঘদিন ধরে সংস্কার বঞ্চিত রয়েছে। এই সড়ক দিয়ে যানবাহন তো দূরের কথা জনসাধরনের পায়ে হেটে চলাও দায়। স্থানীয়রা গত দুই মাসেও ওই সড়কে কোন ধরনের উন্নয়নের কর্মকান্ড চোখে দেখেনি। এ নিয়ে স্থানীয়দের মাঝে তীব্র ক্ষোভ ও অসন্তোষের সৃষ্টি হয়েছে।

জানা গেছে, গত অর্থ বছরের শেষের দিকে বেশ তড়িগড়ি করেই পেকুয়া উপজেলা প্রকৌশলী মো. জাহেদুল আলম চৌধুরী ওই কাজের জন্য দরপত্র আহবান করেছিল। অর্থ বৎসর শেষ হওয়ার পূর্বেই ওই কাজ বাস্তবায়ন করে উপজেলা প্রকৌশলী বরাদ্দের সমুদয় অর্থ নিজেদের একাউন্টে স্থানাতরিত করেছিল। সেই থেকে এডিপির বরাদ্দের অর্থগুলো কোন অবস্থায় আছে সেটা কেউ জানেনা। মেরামতের জন্য ১৬লক্ষাধিক টাকা বরাদ্দের পুরোটাই গায়েব হয়েছে এমনই অভিযোগ উঠেছে।

তবে পেকুয়া উপজেলা প্রকৌশলী মো. জাহেদুল আলম চৌধুরী জানিয়েছেন, বন্যা ও ভারী বর্ষনের জন্য তারা মগনামার আরএইচডি সড়কের আরসিসি দ্বারা উন্নয়নের কাজ বাস্তবায়ন করতে পারেনি। বরাদ্দের টাকা লোপাটের অভিযোগটি ভিত্তিহীন দাবী করে তিনি আরো বলেন, আগামী এক সপ্তাহের ভিতরেই সড়ক উন্নয়নের কাজ শেষ করা হবে।