স্যুয়ারেজের পানি ড্রিংকিং ওয়াটার বলে চালিয়ে দেয়া হচ্ছে

প্রকাশ:| মঙ্গলবার, ২১ জুন , ২০১৬ সময় ০৮:৫৫ অপরাহ্ণ

স্যুয়ারেজের পানি রাখা হয়েছে রিজার্ভারে। সেখানে আবার ভাসছে মরা তেলাপোকা। আর এই পানিই ১৯ লিটারের জারে ভরে পিউর ড্রিংকিং ওয়াটার হিসেবে বিক্রি করছে ‘প্রিয়া ড্রিংকিং ওয়াটার’।

ভ্রাম্যমাণ আদালতনগরীর আন্দরকিল্লা এলাকায় অবস্থিত এই প্রতিষ্ঠানের বিএসটিআই লাইসেন্স নেই। এরপরও দীর্ঘদিন ধরে পানি বাজারজাত করে সাধারণ মানুষের সঙ্গে প্রতারণা করে আসছিল। তবে শেষ পর্যন্ত ধরা পড়েছে চট্টগ্রাম জেলা প্রশাসনের নির্বাহি ম্যাজিস্ট্রেট তাহমিলুর রহমানের হাতে।

মঙ্গলবার দুপুরে ওই প্রতিষ্ঠানে অভিযান পরিচালনা করে প্রতিষ্ঠানের মালিক পাপড়ি রাণী ধরকে দুই লাখ টাকা জরিমানা করেছেন ভ্রাম্যমাণ আদালত।

তাহমিলুর রহমান বলেন, রিজার্ভারে ওয়াসা, ডিপ টিউওয়েল ও স্যুয়ারেজের লাইনের একত্রিত সংযোগ এবং পানিতে মৃত তেলাপোকা, স্যুয়ারেজের ময়লা দেখা গেছে। জার ওয়াশিং মেশিন থাকার কথা থাকলেও সাধারণ ডিটারজেন্ট দিয়ে হাতে পরিষ্কার করা হয় ব্যবহৃত জারগুলো।

তিনি বলেন, পানি রিফিল হবার কথা অটোমেটিক ফিলিং মেশিনে। কিন্তু তাও অকার্যকর অবস্থায় দেখতে পাওয়া যায়।জীবাণু মুক্তকরণে কোন ইউভি (অতিবেগুনী রশ্মি) এর ব্যবস্থাও সেখানে ছিল না। পানির জার গুলোতে উৎপাদন ও মেয়াদ উত্তীর্ণ তারিখ সম্বলিত ট্যাগ বা সীল পাওয়া যায়নি।

অভিযান পরিচালনার সময় জেলা প্রশাসনের শিক্ষানবিস নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট হাসান বিন আলী, বিএসটিআই কর্মকর্তা মো. সাফায়েত হোসেন, ক্যাবের সদস্য জান্নাতুল ফেরদৌস, তৌহিদুল ইসলাম উপস্থিত ছিলেন।

নির্বাহি ম্যাজিস্ট্রেট চানান, চট্টগ্রামে ২৯টি অবৈধ ও লাইসেন্সবিহীন ড্রিংকিং ওয়াটার কোম্পানি রয়েছে। এমনকি লাইসেন্স প্রাপ্ত অনেক কোম্পানির বিরুদ্ধে সরাসরি ওয়াসার পানি ব্যবহার করে বোতলজাত করার অভিযোগ রয়েছে।

এদিকে অস্বাস্থ্যকর পরিবেশে ইফতার সমগ্রী তৈরির অপরাধে দুই হোটেলকে মোট ২৫ হাজার টাকা জরিমানা করা হয়েছে। চকবাজারে সাদিয়াস কিচেনের ফ্রিজে বাসি খাবার পাওয়া যাওয়ায় পাঁচ হাজার টাকা জরিমানা করে সতর্ক করা হয়েছে।

সাইমুম রেস্তোরায় অস্বাস্থ্যকর পরিবেশে খাবার তৈরির অপরাধে ২০ হাজার টাকা জরিমানা করা হয়েছে। তবে ভ্রাম্যমাণ আদালতের উপস্থিতি টের পেয়ে তারা বাসি ইফতারি ড্রেনে ফেলে দেয়।


আরোও সংবাদ