স্বয়ংক্রিয় মেশিনে হাতের ছোঁয়া ছাড়াই তৈরি বসুন্ধরা টিস্যু

প্রকাশ:| বৃহস্পতিবার, ১৮ ফেব্রুয়ারি , ২০১৬ সময় ১০:৫৭ অপরাহ্ণ

উন্নতমানের কাঁচামাল দিয়ে স্বয়ংক্রিয় মেশিনে হাতের ছোঁয়া ছাড়াই তৈরি বসুন্ধরা টিস্যু পণ্য দেশের অভ্যন্তরীণ চাহিদা মিটিয়ে বিশ্বের উন্নত দেশে রপ্তানি হচ্ছে। বর্তমানে আন্তর্জাতিক মানের বসুন্ধরা টিস্যু পণ্য দেশের সেরা ব্রান্ডে পরিণত হয়েছে।

মাসুদুজ্জামানবৃহস্পতিবার রাতে বসুন্ধরা টিস্যু পণ্যের ট্রেড স্কিম ২০১৫ এর সাফল্য উদযাপন উপলক্ষে আয়োজিত অনুষ্ঠানে এসব কথা বলেন বসুন্ধরা পেপার মিলস লিমিটেডের মহাব্যবস্থাপক (বিক্রয়) মো. মাসুদুজ্জামান। আন্দরকিল্লার প্যারাগন কনভেনশন হলে আয়োজিত ‘সমৃদ্ধির পথে মিলি একসাথে’ শীর্ষক অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্য দেন তিনি।

সাফল্যের ধারাবাহিকতা তুলে ধরে তিনি বলেন, ব্যবসায় সুনাম একটি বড় সম্পদ। সুনামের সাথে ব্যবসা পরিচালনা করলে একটু দেরিতে হলেও মুনাফা আসবেই। এসব বিবেচনা করে বসুন্ধরা গ্রুপ সবসময় গুণগতমানের পণ্য তৈরি এবং বাজারজাত করে। শুরু থেকে বসুন্ধরা টিস্যুর ক্রেতার কথা মাথায় রেখে বাজারের চাহিদা অনুযায়ী পণ্য উৎপাদন করে আসছে।

বিভাষ কান্তি সাহার সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি ছিলেন বসুন্ধরা পেপার মিলস লিমিটেডের উপ মহাব্যবস্থাপক (বিক্রয়) মো. শাহেনুর রহমান, সহকারী মহাব্যবস্থাপক (বিক্রয়) মো. আলমগীর হোসেন ও চট্টগ্রামের বিক্রয় ব্যবস্থাপক রাজু আহমেদ।

মো. আলমগীর হোসেন বলেন, বসুন্ধরা টিস্যু অধিক শোষণক্ষমতা নিশ্চিত করায় ভোক্তাদের আস্থা অর্জনে সক্ষম হয়েছে। পণ্যের সঠিক মান নিশ্চিত করতে বসুন্ধরা পেপার মিলস সর্বদা অঙ্গীকারবদ্ধ। দেশের শীর্ষ শিল্পপ্রতিষ্ঠান বসুন্ধরা গ্রুপের অঙ্গপ্রতিষ্ঠান হিসেবে এ মিলটি আন্তর্জাতিক মানের বসুন্ধরা টিস্যু পেপার, ফেসিয়াল টিস্যু, টয়লেট টিস্যু, ন্যাপকিন, হ্যান্ড টাওয়েল, কিচেন টাওয়েল, ক্লিনিক্যাল বেডশিট, বেবি ডায়াপার, মোনালিসা স্যানিটারি ন্যাপকিন, এফোর পেপার, এক্সারসাইজ বুক ইত্যাদি তৈরি করে অভ্যন্তরীণ বাজারের শীর্ষস্থানে অবস্থান করছে। শুধু তাই নয়, আন্তর্জাতিক বাজারেও ব্যাপক সমাদৃত হয়েছে, বিদেশের মাটিতে দেশের সম্মান অর্জনে সহায়ক ভূমিকা রাখছে।

অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন প্রতিষ্ঠানের চট্টগ্রামের আঞ্চলিক বিক্রয় ব্যবস্থাপক মো. সাইফুল ইসলাম ও মো. লোকমান হোসেন, বসুন্ধরা পেপার মিলস লিমিটেডের পরিবেশক ও ছয় শতাধিক ব্যবসায়ী।

ফাল্গুনী সরকার ও ইভা চৌধুরীর উপস্থাপনায় অনুষ্ঠানে প্রতিভা মিউজিক মিডিয়ার এসডি সুজনের পরিচালনায় গান করেন শিল্পী মমি, আজাদ ও নিপা। উপজাতীয় সাংস্কৃতিক ইনস্টিটিউট, খাগড়াছড়ির নৃত্যশিল্পীরা পরিবেশন করে ঐতিহ্যবাহী পাহাড়ি ও ত্রিপুরাদের বোতল নৃত্য।

প্রধান অতিথি পরিবেশক বেস্ট সেলার হিসেবে শাকুরা স্টোরের স্বত্বাধিকারী নমিতা চক্রবর্তী এবং র‌্যাফেল ড্রয়ের বিজয়ীদের হাতে পুরস্কার তুলে দেন।