স্বৈরাচার থাকলে অগ্রগতি সম্ভব নয়: খসরু,বিচার বিভাগ গণভবনে বন্দি: শাহাদাৎ

প্রকাশ:| শনিবার, ২২ মার্চ , ২০১৪ সময় ০৯:৫১ অপরাহ্ণ

পাঁচ জানুয়ারির জাতীয় নির্বাচনে অংশ না নেয়ায় সংসদে প্রতিনিধিত্ব না থাকলেও বিএনপিকেই ‘বিরোধী দল’ হিসেবে উল্লেখ করেছে তৈরি পোশাক মালিকদের সংগঠন বিজিএমইএ।

শনিবার চট্টগ্রামে বিজিএমইএ আয়োজিত কাফেক্সপো’র সমাপণী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি ছিলেন সাবেক বাণিজ্যমন্ত্রী ও নগর বিএনপির সভাপতি আমির খসরু মাহমুদ চৌধুরী।

অনুষ্ঠানে বিজিএমইএ’র নেতারা বিএনপিকে ‘বিরোধীদল’ সম্বোধন করে দেশকে অস্থির পরিস্থিতি থেকে রক্ষায় এবং তৈরি পোশাক খাতকে সহযোগিতার আহবান জানান। তবে আমির খসরু দেশে কোন বিরোধী দল নেই বলে উল্লেখ করেন।

অনুষ্ঠানে আমির খসরু বলেন, কোন স্বৈরাচারের মাধ্যমে দেশের অর্থনৈতিক উন্নয়ন, সুষ্ঠু বিনিয়োগের পরিবেশ গড়ে তোলা সম্ভব নয়। স্বৈরাচার থাকলে অগ্রগতি হবেনা। এজন্য দেশে ‘বৈধ’ সরকার ও ‘বৈধ’ বিরোধীদলের প্রয়োজন।

দেশে একটি ‘বৈধ’ সরকার ও বিরোধী দল ছাড়া অর্থনীতিসহ সকল ক্ষেত্রে অগ্রগতি সম্ভব নয় বলেও মন্তব্য করেন আমীর খসরু মাহমুদ চৌধুরী।

শনিবার বিকালে নগরীর এম এ আজিজ সংলগ্ন জিমনেসিয়ামে আয়োজিত এ অনুষ্ঠানে তিনি আরও বলেন, অথনৈতিক অগ্রগতির জন্য জাতীয় ঐক্য দরকার। এর জন্য রাজনৈতিক গণতান্ত্রিক পরিবেশ থাকতে হবে। কিন্তু দেশে কোন রাজনৈতিক বা সামাজিক সুশাসন বিরাজ করছে না। গণতান্ত্রিক ও সাংবিধানিক অধিকার নেই, জানমালের নিরাপত্তা নেই।

টিআইবি’র সাম্প্রতিক জরিপের প্রসঙ্গ টেনে এনে বিএনপি চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা আমীর খসরু বলেন, তাদের জরিপেও সংসদে কনো বিরোধীদল নেই বলে উঠে এসেছে।

তিনি বলেন, বিরোধীদল আছে জেলখানায়, আদালতে, পুলিশ-র‌্যাবের গুলির মুখে। প্রতিনিয়ত তাদের পাখির মতো গুলি করে হত্যা করা হচ্ছে।

বিজিএমইএ’র প্রথম সহ-সভাপতি নাসিরউদ্দিন আহমদ চৌধুরীর সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত সমাপণী অনুষ্ঠানে আরও বক্তব্য রাখেন বিজিএমইএ’র সাবেক সভাপতি ও চট্টগ্রাম উত্তর জেলা বিএনপি’র সহ-সভাপতি এস এম ফজলুল হক, বিজিএমইএ’র সহ-সভাপতি এস এম মান্নান কচি, পরিচালক নজরুল ইসলাম প্রমুখ।

গত বৃহস্পতিবার থেকে জিমনেশিয়াম প্রাঙ্গণে শুরু হওয়া তৈরি পোশাক ও সংশ্লিষ্ট মেশিনারিজের প্রদর্শনী কাফেক্সপো শনিবার শেষ হচ্ছে।

দীর্ঘদিন ধরে বিজিএমইএ’র এ প্রদর্শনীর উদ্বোধনীতে সরকারী দলের মন্ত্রীকে প্রধান অতিথি এবং সমাপণীতে বিরোধী দলের চট্টগ্রামের শীর্ষ নেতাকে প্রধান অতিথি করার রেওয়াজ চালু আছে। পাঁচ জানুয়ারির নির্বাচনের পর সংসদে বিরোধী দল হিসেবে আছে জাতীয় পার্টি।

সরকার জিয়া পরিবারের বিরুদ্ধে ষড়যন্ত্রে লিপ্ত বলে মন্তব্য করেছেন নগর বিএনপির সাধারণ সম্পাদক ডা.শাহাদাৎ হোসেন। একইসঙ্গে বিচার বিভাগ ও আইন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার গণভবনে বন্দি বলেও মন্তব্য করেছেন নগর বিএনপির এই নেতা।

শনিবার সকালে নাসিমন ভবনের সামনে যুবদলের এক বিক্ষোভ সমাবেশে শাহাদাৎ বলেন, আইনের প্রতি সম্মান দেখিয়ে বিএনপি চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়া নিজেই আদালতে উপস্থিত হয়েছিলেন। কিন্তু নিয়ম অনুযায়ী বিচারক এজালাসে কোন আদেশ না দিয়ে সরকারের নির্দেশে তার খাস কামরায় খালেদা জিয়া ও তারেক রহমানের বিরুদ্ধে অভিযোগ গঠন করেন।

শাহাদাত আরও বলেন, সরকার ক্ষমতায় আসার পর থেকে খালেদা জিয়া ও তারেক রহমান এবং জিয়ার পরিবারের বিরুদ্ধে নানা ষড়যন্ত্রে লিপ্ত। রাজনৈতিকভাবে মোকাবেলা করতে ব্যর্থ হয়ে সরকার খালেদা জিয়া ও তারেক রহমানের বিরুদ্ধে বিচারককে দিয়ে জিয়া অরফেনেজ ট্রাস্ট মামলায় চার্জ গঠনের নির্দেশ দিয়েছে। একইভাবে সরকার মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীরসহ কেন্দ্রীয় নেতাদের জামিন বাতিল করে কারাগারে পাঠায়।

ডা.শাহাদাত জিয়া অরফেনেজ ট্রাস্ট মামলায় খালেদা জিয়া এবং তারেক রহমানের বিরুদ্ধে চার্জ গঠন করায় তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানান। অবিলম্বে জিয়া পরিবারের বিরুদ্ধে সকল মামলা প্রত্যাহারেরও দাবি জানান তিনি।

নগর যুবদলের সভাপতি কাজী বেলাল উদ্দিনের সভাপতিত্বে সংগঠনের নাসিমন ভবনস্থ দলীয় কার্যালয়ে সকাল ১১ টায় অনুষ্ঠিত হয়।

নগর যুবদলের সভাপতি কাজী বেলাল উদ্দিনের সভাপতিত্বে এবং সাধারণ সম্পাদক মোশারফ হোসেন দিপ্তীর সঞ্চালনায় অনুষ্ঠিত বিক্ষোভ সমাবেশে নগর বিএনপির সিনিয়র সহ-সভাপতি আবু সুফিয়ান, নগর যুবদলের সহসভাপতি নুর আহমদ গুড্ডু, সাংগঠনিক সম্পাদক ইকবাল হোসেন, সাবেক সহ-সাংগঠনিক সম্পাদক এম আজিজ বক্তব্য রাখেন।


আরোও সংবাদ