চট্টগ্রামের পটিয়ায় নির্মিত হচ্ছে রাসেল স্মৃতি ভাস্কর্য

প্রকাশ:| শনিবার, ৩ আগস্ট , ২০১৩ সময় ০৫:৪৬ অপরাহ্ণ

স্বাধীনতা বিরোধী ও বঙ্গবন্ধুর খুনিরা একই সূত্রে গাঁথা : শওকত বাঙালি

জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান স্মারকগ্রন্থের (কেন তিনি অনন্য…) সম্পাদক ও বিশিষ্ট সাংস্কৃতিক ব্যক্তিত্ব sk raselশওকত বাঙালি বলেছেন, স্বাধীনতা বিরোধী ও বঙ্গবন্ধুর খুনিরা একই সূত্রে গাঁথা। খুনিরা শুধু বঙ্গবন্ধু নয়, ছোট্ট রাসেলকেও ভয় করতো, নইলে এমন নিষ্পাপ শিশুকে তারা হত্যা করতো না।
শহীদ শেখ রাসেলের স্মৃতিকে চির জাগরুক রাখার পাশাপাশি নতুন প্রজন্মের কাছে তাঁকে তুলে ধরতেই শেখ রাসেল স্মৃতি ভাস্কর্য নির্মিত হচ্ছে উল্লেখ করে তিনি বলেন, বিরোধীদলীয় নেত্রী থাকাকালীন আমরা শেখ রাসেল স্মৃতি পাঠাগারের পক্ষ থেকে জননেত্রী শেখ হাসিনার সাথে দেখা করি এবং বিস্তারিত অবহিত করার পর তিনি এটিকে রাসেলকে ঘিরে বেসরকারি উদ্যোগে প্রতিষ্ঠিত সবচেয়ে বড় পাঠাগার হিসেবে অভিহিত করেন।
রাসেল ভাস্কর্য নির্মাণ কমিটির আহবায়ক ও পাঠাগারের আজীবন সদস্য শওকত বাঙালি আরো বলেন, দেশবরেণ্য খুব কম মানুষই আছেন, যাঁরা রাসেল পাঠাগারে যাননি। দীর্ঘ ৩৩ বছর মাথা উঁচু করে প্রান্তিক জনপদে সংগঠনটি মুক্তিযুদ্ধের পক্ষের শক্তির অজেয় ঘাঁটি হিসেবে কাজ করে যাচ্ছে কোন প্রাপ্তির প্রত্যাশা না করে। রাসেল স্মৃতি পাঠাগারই আগামীতে বাংলাদেশের অন্যান্য পাঠাগারগুলিকে পথ দেখাবে বলে তিনি আশাবাদ ব্যক্ত করেন।
গতকাল ৩ আগস্ট বিকেলে নগরীর মেহেদীবাগস্থ চারুকলা ইন্সটিটিউটের ছাত্রাবাসস্থ স্টুডিওতে রাসেল ভাস্কর্যের নির্মাণ কাজ পরিদর্শনকালে তিনি এসব কথা বলেন।
রাসেল স্মৃতি পাঠাগারের উদ্যোগে, সংসদ সদস্য বেগম চেমন আরা তৈয়বের পৃষ্ঠপোষকতায়, আমরা করবো জয়-এর সার্বিক সহযোগিতায় ভাস্কর নাসির খান, শিল্পী তানভীর সরোয়ার রানা এবং ফজলে রাব্বির তত্ত্বাবধানে পটিয়ায় রাসেল মঞ্চের ওপর প্রায় ১৫ ফিট উচ্চতার ভাস্কর্যটি সুপার রিয়েলেস্টিক ফর্মে গড়ে তোলা হয়েছে।
প্রায় ১০ লক্ষ টাকা ব্যয়ে নির্মিত রাসেল মঞ্চ ও রাসেল ভাস্কর্য আগামী অক্টোবরে রাসেলের ৪৯তম জন্মদিনে উদ্বোধন করার পরিকল্পনা রয়েছে বলে জানালেন পাঠাগার সভাপতি ও পটিয়া উপজেলা যুবলীগ সভাপতি মো. সেলিম।
এসময় অন্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন সাংবাদিক প্রবীর বড়–য়া, আবু মোশাররফ রাসেল, আহমেদ কুতুব, পাঠাগারের উপদেষ্টা হুমায়ুন কবির রাশেদ, সঞ্জীব চক্রবর্ত্তী মিঠু, সহ-সভাপতি রতন কুমার দে, উজ্জ্বল চক্রবর্ত্তী, ভাস্কর নাসির খান, শিল্পী ফজলে রাব্বি প্রমুখ।