‘‘স্বাধীনতার ৪৪ বছর পরেও মুক্তিযুদ্ধের স্বপ্ন ভুলণ্টিত হয়েছে বারবার’’

প্রকাশ:| রবিবার, ২০ ডিসেম্বর , ২০১৫ সময় ০৭:০৬ অপরাহ্ণ

সুন্নী সমাবেশ

ইসলামী ফ্রন্ট বাংলাদেশ চট্রগ্রাম নগর দক্ষিণ শাখার উদ্যোগে সংগঠনের ২৫তম প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী’ র সমাবেশ হালিশহর বড়পোল চত্তরে সভাপতি মুহাম্মদ নুরুল ইসলাম জিহাদীর সভাপতিত্বে এবং সাঃ সম্পাদক-মাওঃ মুহাম্মদ আশ্রাফ হোসাইনের পরিচালনায়ে সমাবেশে প্রধান অতিথির বক্তব্য রাখেন ইসলামী ফ্রন্ট কেন্দ্রিয় কমিটির সিঃযুগ্ন মহাসচিব-আলহাজ্ব স.উ.ম.আব্দুস সামাদ।

রোববার বিকেল ৩টায় হালিশহর বড়পোল চত্তরে প্রধান অতিথির বক্তব্যে আব্দুস সামাদ বলেন, স্বাধীণতার ৪৪ বছর পরেও মুক্তিযুদ্ধের স্বপ্ন ভুলণ্টিত হয়েছে বারবার। বিজয়ের এ মাসে শহীদ মুক্তিযুদ্ধাদের সোনার বাংলা প্রতিষ্টায় সব সরকার ব্যর্থতার পরিচয় দিয়েছে ।আর সরকার সভা,সমাবেশ , সেমিনারে নাস্তিÍকবাদ ও জঙ্গী দমনের কথা বলেলও যা আজো কার্যকরী ভাবে এগোতে পারে নি। চলমান সময়ে একেরপর এক বিশ্ব-বিদ্যালয় গুলোতে নাস্তিÍকবাদ ও জঙ্গী উত্তানে দেশবাসীকে চরমভাবে আতংকের মধ্যে রেখ্রেছে। বর্তমানে ইসলামী ফ্রন্ট বাংলাদেশ এ সকল অনিয়ম-অন্যায় অবিচার ও জুলুমের বিরোদ্ধে প্রতিষ্টা লগ্ন থেকেই দূর্বার আন্দোলন চালিয়ে যাচ্ছে ।একদিকে সরকার উন্নয়নের কথা বলেছে,আর অন্যদিকে তাদের যুব-ছাত্র নেতা,পাতি নেতা,সিকি নেতা এবং বড় মোড়লরা লুঠ-পাট,দূনীর্তি,দখল আর টেন্ডারবাজীতে লিপ্ত ।এই অনিয়ম-লুট-পাট বন্ধসহ দূর্নীতির অনুসন্ধান করে বিচারে আওতায় আনরা জোর দাবি জানান । তিনি আরো অভিযোগ করে বলেন যে,চট্রগ্রাম উন্নয়নের জন্য ডাক ঢোল পেঠালেও প্রকৃত উন্নয়ন বচ্ঞিত হচ্ছে বলে দুঃখ প্রকাশ করেন,গ্যাস,পানি,বিদ্যুৎ নিত্য প্রয়োজনীয় দ্রব্যের মূল্য বৃদ্ধি করে অসহায় মানুষের জনজীবনে চরম অস্থিরতা সৃষ্টি করছেন ।গভীর সমূদ্র বন্দর করার কথাবলে সরকার এখন পায়রা বন্দর কে প্রাধন্য দিয়ে চট্রলা বাসীর সাথে বিমাতা সুলভ আচরণ করেছে । এই বৈষম্য চট্রলা বাসী মেনে নিতে পারিনা ।অতি শীঘ্রই বিশ্ব-বিদ্যালয় গুলোতে নাস্তিÍকবাদ ও জঙ্গী উত্তানে বন্দ করতে না পারলে সরকারের বিরোদ্ধে তীব্র আন্দোলনের ঘোষনা দেন।

সমাবেশে বিশেষ অতিথির বক্তব্য রাখেন-মাওঃ কাজী সুলাইমান চৌধুরী,যুবসেনা নগর সাঃসম্পাদক- সৈয়দ মুহাঃআবু আজম,ছাত্রসেনা নগর সভাপতি- মুহাঃ নুরুল্লাহ রায়হান খান,জসিম উদ্দিন,নায়েবুল ইসলাম পুতুল,শফিউল আলম, এলাম রেজা কাদেরী সহ নগর,উত্তর-দক্ষিণ,থানা,ওয়ার্ড ও মসজিদ-ম্রাদ্রাসা কমিটির নেতৃবৃন্দ ।


আরোও সংবাদ