স্বপ্ন পূরণে ছাত্রলীগকে মুখ্য ভূমিকায় কাজ করতে হবে

প্রকাশ:| সোমবার, ১৮ মে , ২০১৫ সময় ১১:৩৮ অপরাহ্ণ

সকল প্রতিবন্ধকতা পেরিয়ে রূপকল্প ২০৪১ বাস্তবায়নে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার স্বপ্ন পূরণে ছাত্রলীগকে মুখ্য ভূমিকায় কাজ করতে হবে বলে মন্তব্য করেছেন চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের উপ-উপাচার্য ড. ইফতেখার উদ্দিন চৌধুরী।

স্বপ্ন পূরণে ছাত্রলীগকে মুখ্য ভূমিকায় কাজ করতে হবেসোমবার শেখ হাসিনার স্বদেশ প্রত্যাবর্তন দিবসের অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে এ মন্তব্য করেন তিনি।

চবি উপ-উপাচার্য বলেন, বঙ্গবন্ধুর হাতে গড়া ছাত্র সংগঠন বাংলাদেশ ছাত্রলীগ। এ জাতির অধিকার আদায়ে এ সংগঠনের ভূমিকা ছিল অগ্রণী। ১৯৭৫ সালে বঙ্গবন্ধুকে যারা হত্যা করেছে তাদের ষড়যন্ত্রসহ বর্তমান রাজনীতির স্বাধীনতা বিরোধীদের বিরুদ্ধে সবসময় সোচ্চার ছাত্রলীগ। বাঙালি জাতির অন্ধকার সময় দূর করে ১৯৮১ সালে বঙ্গবন্ধুর তনয়া প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা যখন এ হতাশগ্রস্ত জাতির দায়িত্ব নিয়েছিল তখন ছাত্রলীগ ছিল তার প্রেরণার উৎস।

মহানগর ছাত্রলীগের সভাপতি ইমরান আহমেদ ইমুর সভাপতিত্বে সাধারণ সম্পাদক নুরুল আজিম রনির সঞ্চালনায় অনুষ্ঠানে বক্তব্য রাখেন নগর ছাত্রলীগের সহ-সভাপতি একরামুল হক রাসেল, শাহীন জুবায়ের বাপ্পী, ফররুখ আহমেদ পাভেল, সরওয়ার আলম, যুগ্ম সম্পাদক জাকারিয়া দস্তগীর, সুজন বর্মন, গোলাম ছামদানী জনি, মঈনুর রহমান মঈন, সাংগঠনিক সম্পাদক শওকত আলী রনি, খোরশেদ আলম মানিক।

সভাপতির বক্তব্যে ইমরান আহমেদ ইমু বলেন, ১৯৭৫ সালের ১৫ আগষ্ট জাতির জনককে হত্যা করেছে ষড়যন্ত্রকারীরা। একুশবার প্রাণ নাশের চেষ্টা করা হয় জননেত্রী শেখ হাসিনার। থেমে নেই হত্যাকারীদের ষড়যন্ত্র, একইসঙ্গে থেমে নেই ছাত্রলীগের দুর্বার প্রতিরোধ। ছাত্রলীগ দেশের গণতন্ত্র রক্ষা, মুক্তিযুদ্ধের চেতনা সমুন্নত রাখতে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার পাশে আমৃত্যু কাজ করে যেতে অঙ্গীকারবদ্ধ।

সাধারণ সম্পাদকের বক্তব্যে নুরুল আজিম রনি বলেন, বাঙালির অধিকার আদায়ের লক্ষ্যে গণতন্ত্র রক্ষায় ১৯৮১ সালে ১৭মে জননেত্রী শেখ হাসিনা দেশে পদার্পণ করেছিলেন। তিনি এ দেশকে অর্থনীতিতে সমৃদ্ধ একটি দেশে পরিণত করতে ‘রূপকল্প ২০৪১’ বাস্তবায়নে কাজ করে চলেছেন। ছাত্রলীগ বিশ্বাস করে শেখ হাসিনা বাঁচলে বাংলাদেশ বাঁচবে। তাই নেত্রীকে রক্ষার জন্য সকল ষড়যন্ত্র রাজপথে থেকে মোকাবেলা করার প্রত্যয় ব্যক্ত করে।

এসময় আরও উপস্থিত ছিলেন নগর ছাত্রলীগের অর্থ সম্পাদক হাসানুল আলম সবুজ, পরিবেশ বিষয়ক সম্পাদক আকতার হোসেন সৌরভ, উপ-প্রচার সম্পাদক আবদুল হালিম চৌধুরী মিতু, আশরাফ উদ্দিন টিটু, উপ-দপ্তর সম্পাদক সনেট চক্রবর্ত্তী, উপ-সম্পাদক দীপঙ্কর সোম শান্তু, ইমরান কামাল বনি, আবদুল আহাদ, শফিকুল ইসলাম পারভেজ, মিজানুর রহমান মিজান, এমআর হৃদয়, সহ-সম্পাদক আজিজুল হক আজিজ, শেখর দাশ, সাব্বির সাকিব, সদস্য আসাদুজ্জামান জেবিন, নাসিম আহমেদ সোহেল, রাসেল ভট্টাচার্য্য, বোরহান উদ্দিন গিফারী, আল মামুন জুয়েল, ইমরান আহমেদ শাওন, মোরশেদ আলম বাবুল, আরাফাত রুবেল, আবু সালেহ নুর রিমন, আশেকান আউলিয়া কলেজ ছাত্র সংসদের জিএস এসএম করিম, ইসলামিয়া বিশ্ববিদ্যালয় কলেজ ছাত্রলীগ নেতা বিকাশ দাশ, ওমর গণি এমইএস কলেজ ছাত্রলীগ নেতা আনিসুর রহমান, সরকারী সিটি কলেজ ছাত্রলীগ নেতা আকবর হোসেন রাজন সহ বিভিন্ন ওয়ার্ড, থানা পর্যায়ের ছাত্রলীগ নেতারা।