স্থগিত হলো লাউয়াছড়ার ২৫ হাজার গাছ কাটার সিদ্ধান্ত

প্রকাশ:| শনিবার, ২০ আগস্ট , ২০১৬ সময় ০৮:২৪ অপরাহ্ণ

দেশব্যাপি মানববন্ধন, স্বারকলিপি প্রদান, অবস্থান কর্মসূচি, সমাবেশ, গনসাক্ষরসহ বিভিন্ন কর্মসুচির মাধ্যমে স্থগিত হলো রেল বিভাগের লাউয়াছড়া জাতীয় উদ্যানের ২৫ হাজার গাছ কাটার সিদ্ধান্ত। রক্ষা পেল জাতীয় উদ্যানের জীব বৈচিত্র ও পরিবেশ।

লাউয়াছড়াজানা যায়, লাউয়াছড়ার ভীতরে ট্রেন চলাচলে দূর্ঘটনা এড়াতে গত ৯ এপ্রিল রেলওয়ের বিভাগীয় প্রকৌশলী-২ মো. আরমান হোসেন স্বাক্ষরিত একটি চিঠি বন্য প্রাণী ব্যবস্থাপনা ও প্রকৃতি সংরক্ষণ বিভাগকে দেওয়া হয়। চিঠিতে বলা হয়েছিল ঢাকা-সিলেট রেললাইনের শ্রীমঙ্গল-ভানুগাছ সেকশনের ২৯৩/১ থেকে ২৯৮/১ কিলোমিটারের পাহাড়ি এলাকায় ঝড়-বৃষ্টিতে গাছ উপড়ে ও ভেঙে রেললাইনের ওপর পড়ছে। এতে যেকোনো সময় দূর্ঘটনা ও যাত্রী সাধারণের প্রাণহানি ঘটতে পারে।

এ অবস্থায় উদ্যান এলাকার রেললাইনের উভয় পাশের নুন্যতম ৫০ ফুট পর্যন্ত গাছ কাটতে হবে। একইভাবে রেললাইনের রশিদপুর-সাতগাঁও বিভাগের ২৭১/২ থেকে ২৭৯/৭ কিলোমিটার পর্যন্ত উভয় পাশের গাছও কাটতে হবে। তা না হলে পরবর্তী সময়ে কোনো দুর্ঘটনা ঘটলে ‘দ্য রেলওয়েজ অ্যাক্ট, ১৮৯০’-এর ১২৮ ধারা মোতাবেক পদক্ষেপ নেওয়া হবে।

রেলওয়ে কর্তৃপক্ষের এমন সিন্ধান্তের প্রতিবাদ জানিয়ে জীববৈচিত্য ও পরিবেশ রক্ষার দাবীতে “লাউয়াছড়া জীববৈচিত্র্য ও রক্ষা আন্দোলন” সহ বেশ কয়েকটি সংগঠন ও দেশে ও বিদেশের বিভিন্ন স্থানে গাছ রক্ষার জন্য আন্দোলনের ঝড় উঠে। এমন আন্দোলনের স্তুপে লাউয়াছড়ার জাতীয় উদ্যানের গাছ কাটা বন্ধ রয়েছে।

এ ব্যাপারে সিলেট বিভাগীয় বন কর্মকর্তা মিহির কুমার দে মুঠোফোনে বলেন, রেল মন্ত্রনালয়ের মিটিংয়ে বন বিভাগ ও রেল বিভাগের উপস্থিতে বিভিন্ন দিক পর্যালোচনা করে গাছ না কাটার সিদ্ধান্তে উপনিত হয়েছে। তবে অধিক ঝুকিপূর্ণ গাছ হলে স্থানীয় কর্মকর্তাদের নিয়ে কমিটি ঘটনের মাধ্যমে জেলা প্রশাসক অথবা ইউএনও এর উপস্থিতিতে গাছ কাটা হবে। রেলওয়ের বিভাগীয় প্রকৌশলী আরমান হোসেনা সাথে কথা হলে তিনি বলেন, মেটিংয়ে গাছ না কাটার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে।


আরোও সংবাদ