সোনিয়া গান্ধীর ত্যাগের বিন্দুমাত্রও যদি হাসিনা-খালেদা দেখাতেন

প্রকাশ:| বৃহস্পতিবার, ৭ নভেম্বর , ২০১৩ সময় ১০:৩৭ অপরাহ্ণ

প্রাক্তন ছাত্রলীগ ফাউ-েশনের চেয়ারম্যান নূরে আলম সিদ্দিকী বলেছেন, ভারতে সোনিয়া গান্ধী যে ত্যাগের মহিমা দেখিয়েছেন নূরে আলম সিদ্দিকীতার বিন্দুমাত্রও যদি হাসিনা-খালেদা দেখাতে পারতেন তাহলে দেশের অবস্থা এমন হত না। দেশ আজ মহাসংকটে বলে উল্লেখ করে তিনি বলেন, শেখ হাসিনা তার বাবার যে উদারতা ছিল তার কিছুই অর্জন করতে পারেননি। বঙ্গবন্ধুর স্মৃতিচারণ করে তিনি বলেন, সারাজীবন বঙ্গবন্ধুকে ভুলতে পারিনি। তার আদর্শের সঙ্গে আপোষ করিনি। কিন্তু তার রক্তের মানুষও ক্ষমতার জন্য অনেক আপোষ করেছেন। যারা বঙ্গবন্ধুর চামড়া দিয়ে ডুগডুগি বানাতে চেয়েছে একটা ভোটের জন্য তাদের দলে নেয়া হয়েছে। চ্যানেল আইয়ের টক শো- তৃতীয় মাত্রায় গতরাতে তিনি এসব কথা বলেন। সাবেক এ ছাত্রনেতা বিরোধী দলের সমালোচনা করে বলেন, আন্দোলনের মত আন্দোলন করুন। আপনাদের প্রতিটি নেতাকে রাস্তায় দেখতে চাই। কাফনের কাপড় মাথায় বেধে রাস্তায় নামুন। হয় আন্দোলন সফল হবে নইলে লাশ যাবে কবরে। আপনারা ঘরে বসে হরতাল ডাকবেন আর জনগণ মারা যাবে, আমরা যারা শিল্প কারখানা করি আমরা বিপদের মধ্যে থাকব এভাবে ক্ষমতায় যাওয়া চলবে না। তিনি বলেন, আপনার হরতাল দেন আর আমরা শ্রমিকের কাছে, বিদ্যুতের কাছে, গ্যাসের কাছে বাধা থাকি। এসময় তিনি শেখ হাসিনার সমালোচনা করে বলেন, আপনি প্রতিদিন বক্তৃতা দেন বিদ্যুত বেড়েছে তিনগুন অথচ আপনার দলের বড় বড় লোক, যাদের নাম উচ্চারণ করতে ভয় পায় অর্থমন্ত্রী, ছাড়া আর কেউ বিদ্যুত পায়না। বঙ্গবন্ধুর ঘনিষ্ঠ সহচর নূরে আলম সিদ্দিকী বলেন, ভারতের সঙ্গে রেল যোগাযোগ, বাস চলাচল সবকিছুই হয়েছে বিএনপির আমলে। বিএনপির আমলে তাদের সঙ্গে সম্পর্ক বন্ধ ছিলনা। বন্ধ রাখা সম্ভবও নয়। আওয়ামী লীগ আমলে কতগুলো চুক্তি হয়েছে, কিন্তু এখনও কিছুই আদায় করতে পারেনি। তবে, ভৌগলিক অবস্থান ও ইতিহাস বিবেচনায় ভারতের বিরোধিতা করা ঠিক হবে না বরং কুটনৈতিক তৎপরতার মাধ্যমে স্বার্থ আদায় করতে হবে বলেও তিনি উল্লেখ করেন।