সৈয়দ মইনুদ্দীন আল্-হাসানীর খোশরোজ শরিফে লাখো ভক্তের ঢল

প্রকাশ:| বুধবার, ১০ ফেব্রুয়ারি , ২০১৬ সময় ০৯:৪১ অপরাহ্ণ

ঘানা
ফটিকছড়ি প্রতিনিধি॥
বুধবার মাইজভাণ্ডার দরবার শরীফে ইমামে আহলে সুন্নাত হযরত শাহ্সূফী মাওলানা সৈয়দ মইনুদ্দীন আহমদ আল্-হাসানী (ক.)’র ৭৯তম খোশরোজ শরিফ ও মাইজভাণ্ডার রহমানিয়া মইনীয়া দরসে নিজামী মাদ্রাসা, হেফজখানা ও এতিমখানার সালানা জলসা লাখো ভক্ত-জনতার উচ্ছ্বাস উদ্দীপনায় মাইজভাণ্ডার দরবার শরিফে অনুষ্ঠিত হয়েছে।

খোশরোজ মাহফিলে বিশেষ অতিথি ছিলেন বিশিষ্ট শিল্পপতি আল্হাজ্ব ফখরুল আনোয়ার, শাহ্জাদা সৈয়দ মেহবুব-এ-মইনুদ্দীন আল্-হাসানী (ম.জি.আ.), শাহজাদা সৈয়দ মাশুক-এ-মইনুদ্দীন আল্-হাসানী (ম.জি.আ.), শাহ্জাদা সৈয়দ হাসনাইন-এ-মইনুদ্দীন আল্-হাসানী (ম.জি.আ.)। মাহফিলে প্রধানবক্তা ছিলেন ঘানা থেকে আগত, ইন্টারন্যাশনাল এসোসিয়েশন অব সুফীজমের উপদেষ্টা ড. আহমদ তিজানী বিন ওমর।

বিশেষ বক্তা ছিলেন ঢাকা জাতীয় মসজিদ বায়তুল মোকাররমের খতিব হযরতুলহাজ্ব আল্লামা অধ্যক্ষ জালালুদ্দীন আল্-কাদেরী। উলামায়ে কেরামের মধ্যে আলোচনায় অংশ নেন আন্জুমানে রহমানিয়া মইনীয়া মাইজভাণ্ডারীয়ার কেন্দ্রীয় মহাসচিব খলিফা আলহাজ্ব মুহাম্মদ আলমগীর খান মাইজভাণ্ডারী, হযরতুলহাজ্ব আল্লামা অধ্যক্ষ মুহাম্মদ হাসান রেজা, মাওলানা নূরুল ইসলাম জামালপুরী, মাওলানা মুফতী বাকী বিল্ল¬াহ্ আল-আযহারী, মাওলানা রুহুল আমিন ভূঁইয়া চাঁদপুরী, অধ্যক্ষ মাওলানা গোলাম মুহাম্মদ খান সিরাজী, মাওলানা বাকের আনসারী, মাওলানা শেখ সাদী মুহাম্মদ আব্দুল¬াহ, মাওলানা আব্দুস ছাত্তার সিদ্দিকী, মাওলানা মুহাম্মদ হাসান, আন্জুমানে রহমানিয়া মইনীয়া মাইজভাণ্ডারীয়ার কেন্দ্রীয় সহ-সভাপতি আলহাজ্ব কবির চৌধুরী, মাইজভাণ্ডার রহমানিয়া মইনীয়া দরসে নেজামী মাদরাসা হেফজখানা ও এতিমখানার সুপার মাওলানা নইমুদ্দীন প্রমুখ। সালাত-ছালাম পরিবেশন শেষে অশান্ত নিগৃহীত অবস্থা থেকে দেশ ও বিশ্ববাসীর নাজাত কামনায় মুনাজাত পরিচালনা করেন পীরে ত্বরীকত মাওলানা সৈয়দ সাইফুদ্দীন আহমদ আল-হাসানী (ম.জি.আ.)।

সভাপতির বক্তব্যে তিনি বলেনÑ দেশ ও বিশ্বে আজ নিরপরাধ মানবতার চরম অপমান-নিগ্রহ চলছে। শান্তিকামী নিরীহ মানুষের ওপর শক্তিধর মানুষের প্রবল শোষণ-নিপীড়ন আজ মাত্রা ছাড়িয়ে গেছে। নিপীড়ন-শোষণ-বঞ্চনামুক্ত একটি শান্তিময় পৃথিবী ও মানবিক সমাজ গড়তে আজীবন দিশারীর ভূমিকা রেখেছেন হযরত শাহ্সূফী মাওলানা সৈয়দ মইনুদ্দীন আহমদ আল্-হাসানী (ক.)। তিনি আউলিয়ায়ে কেরামের প্রদর্শিত ইসলামের শান্তি ও অহিংস নীতি ও দর্শন ব্যক্তি-পরিবার, অর্থনৈতিক ও সামাজিক জীবনে অনুসরণ করলে বর্তমান নিগৃহীত অবস্থা থেকে পরিত্রাণ মিলতে পারে বলে অভিমত ব্যক্ত করেন।