সেবকদের জন্য আধুনিক আবাসন এর শুভ উদ্বোধন করলেন মেয়র

প্রকাশ:| সোমবার, ২৫ আগস্ট , ২০১৪ সময় ০৯:৩৮ অপরাহ্ণ

Screenshot_55চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশন সেবকদের জন্য ৬তলা বিশিষ্ঠ ৪টি ভবন এডিপি‘র আওতায় নির্মান করেছে। নগরীর আন্দরকিল্লাহ ওয়ার্ডের বান্ডেল সেবক কলোনীতে ৩টি এবং ফিরিঙ্গী বাজার সেবক কলোনীতে ১টি মোট ৪টি ভবন নির্মিত হয়েছে। প্রতিটিতে ২ কোটি টাকা করে মোট ৮ কোটি টাকা ব্যয় হয়েছে। ৪টি ৬তলা ভবনে ১৯০ টি পরিবার স্বাচ্ছন্দে বসবাস করার সুযোগ পাচ্ছে। ১ টি পরিবারের জন্য ১টি ফ্ল্যাট, এতে বাথ, কিচেন ছাড়াও ২টি বেড রুম রয়েছে। কম খরচে সুন্দর পরিবেশে সুষ্ঠভাবে জীবনধারনের জন্য এ ব্যবস্থা করে দেয়া হয়েছে। অবশিষ্ট ভবন গুলোও ভেঙ্গে পর্যায়ক্রমে নতুন ভবন নির্মাণ করা হবে। বানিজ্যিক নগরীর আদলে সেবকদের জীবন মান আধুনিক করার লক্ষেই এ আবাসন ব্যবস্থা। চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশনের মেয়র আলহাজ্ব মেহাম্মদ মনজুর আলম ২০০৮সনে ভারপ্রাপ্ত মেয়র পদে আসীন থাকা কালিন সেবকদের আবাসন গড়ে তোলার এ প্রকল্প গ্রহন করেন।
২৫আগষ্ট ২০১৪খ্রি. সোমবার সন্ধ্যা ৭টায় চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশনের মেয়র আলহাজ্ব মোহাম্মদ মনজুর আলম আধুনিক ব্যবস্থাপনায় নির্মিত সেবকদের ভবনে বরাদ্দ প্রাপ্তদের ফ্ল্যাট বুঝিয়ে দেন। বান্ডেল সেবক কলোনীর ৪নং ভবনের সামনে অনুষ্ঠিত এক অনুষ্ঠানে মেয়র সেবকদের বাসভবন ফলক উম্মোচন করে আনুষ্ঠানিকভাবে শুভ উদ্বোধন করেন।
অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন মায়াদিন সরদার। এতে প্রধান অতিথি ছিলেন চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশনের মেয়র আলহাজ্ব মোহাম্মদ মনজুর আলম।বিশেষ অতিথি ছিলেন কাউন্সিলর জহর লাল হাজারি, চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশনের সচিব রশিদ আহমদ, প্রধান পরিচ্ছন্ন কর্মকর্তা শেখ শফিকুল মন্নান ছিদ্দিকী ও বিশিষ্ট ব্যবসায়ী আলহাজ্ব আইয়ুব আলী। আলোচনা করেন গাদুল সরদার, শ্যাম দাশ সরদার, চিরিঙ্গীলাল সরদার, গুরুচরণ দাশ শুভ প্রমুখ। প্রধান অতিথি চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশনের মেয়র আলহাজ্ব মোহাম্মদ মনজুর আলম বলেন, হরিজন সম্প্রদায়ের পূর্নবাসন করা আমার অঙ্গীকার ছিল। তিনি সীতাকুন্ডের পাহাড়ে হরিজনদের জমি লীজ নেয়ার জন্য স্রাইন কমিটির নিকট আবেদন করার জন্য অনুরোধ জানান। তিনি বলেন, হরিজনের সন্তানদের উচ্চশিক্ষার জন্য প্রিমিয়ার বিশ্ববিদ্যালয়ে কোটা নির্ধারন করা হবে। মেয়র বলেন, ২০১৪সনে ভারতে তীর্থ দর্শনে হরিজন থেকে ৩ জন পুরুষ ও ১ জন মহিলাকে ফ্রি পাঠানো হবে। তিনি বলেন, উচ্চশিক্ষা অর্জন করে নিজ পায়ে দাঁড়াতে হবে। প্রসঙ্গক্রমে মেয়র বলেন, ২০১০সনে নির্বাচনের পূর্বে দেয়া ওয়াদা একটি একটি করে পূরন করা হচ্ছে। তিনি বলেন, আবাসন ব্যবস্থা, চাকুরী স্থায়ী করন, পোষ্য নিয়োগ, বেতন ভাতা বৃদ্ধি করা হয়েছে। মেয়র বলেন, সেবকদের জীবন ধারনের যাবতীয় সুযোগ সুবিধা নিশ্চিত করা হলেও তাদের নিকট থেকে প্রয়োজনীয় সার্ভিস পাওয়া যাচ্ছেনা। তিনি পরিচ্ছন্ন নগরীর স্বার্থে সকলকে আন্তরিকতার সাথে নিজ নিজ কর্তব্য সম্পাদনের আহবান জানান। অনুষ্ঠানে হরিজন সম্প্রদায় মেয়রকে ক্রেষ্ট উপহার দেন এবং ফুলেল শুভেচ্ছায় বরণ করেন।

চসিক এর উচ্ছেদ অভিযান অব্যাহত
চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশনের উদ্যোগে সিটি ম্যাজিস্ট্রেট নাজিয়া শিরিনের নেতৃত্বে মহানগর এলাকায় মোবাইল কোর্ট/উচ্ছেদ অভিযান পরিচালিত হয়। অভিযানকালে কোতোয়ালী থানাধীন চেরাগী পাহাড় মোড়, নন্দন কানন থিয়েটার ইনস্টিটিউটের সম্মুখে ও অপর্ণা চরণ স্কুলের সামনে থেকে সহ সর্বমোট ৩টি অবৈধ ইউনিপোল উচ্ছেদ করা হয়। এ সময় উক্ত এলাকার ফুটপাত ও নালার উপর নির্মিত অবৈধ ভাসমান দোকান উচ্ছেদ করা হয়। অভিযানকালে সিটি কর্পোরেশনের সংশ্লিষ্ট বিভাগ সমূহের কর্মকর্তা-কর্মচারীগন, কোতোয়ালী থানা ও সি এম পি পুলিশ ম্যাজিস্ট্রেটকে সহায়তা করেন।


আরোও সংবাদ